ইসলামের নামে সন্ত্রাস ঠেকাতে ব্রিটেনের পার্লামেন্টে নতুন বিল

May 12, 2016, এই সংবাদটি ২০৬ বার পঠিত

মুনজের আহমদ চৌধুরী॥ ইসলামের নামে ব্রিটেনে সন্ত্রাসবাদে সম্পৃক্ত সংগঠন সরাসরি নিষিদ্ধ করার বিধান রেখে ১৮ মে ব্রিটেনের পার্লামেন্টে উত্থাপিত হচ্ছে নতুন বিল। এ বিল পার্লামেন্টে পাশ হলে ইসলামের নামে বিদ্বেষ-বা ঘৃনা ছড়ানোর উদ্দেশ্যে যেসব স্থান ব্যাবহৃত হয়, বা এ সংক্রান্ত বক্তব্য বা উৎসাহিত করা হয় সেসব বন্ধ করে দিতে সরাসরি ব্যাব¯’া নেবে সরকার। তবে স্থানের বিষয়টি সুনির্দিষ্টভাবে উল্লেখ না করায় হল, অডিটোরিয়ামের পাশাপাশি অনেক ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানও পড়তে পারে এ আইনের আওতায়। এ আইনের প্রস্তাবনায় ধর্মীয় সন্ত্রাসবাদে সম্পৃক্ত বা অভিযুক্ত কোন ব্যাক্তি ব্রিটেনে কোন জবের আবেদন করলে তার নিয়োগদাতাকে জানানো হবে তার অতীত ইতিহাস। ভ্যেটিং রুলসেও আরোপ করা হবে নতুন বিধি। এতে করে অভিযুক্তরা অনেকাংশে হারাবেন ব্রিটেনে চাকুরীর সুযোগ। মুলত,ধর্মীয় জঙ্গি বা সন্ত্রাসবাদে সম্পৃক্ত কোন ব্যাক্তির মাধ্যমে যাতে নতুন করে স্কুল- শিক্ষাপ্রতিষ্টানের মতো সংবেদনশীল কর্মস্থালে সন্ত্রাসবাদ বা উগ্রবাদ না ছড়ায় এ জন্যই নেয়া হয়েছে এমন প্রস্তাবনা।
ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় ধর্মের নামে সন্ত্রাস ঠেকাতে ক্ষমতা বাড়ানো হবে অফকমেরও। ব্রিটেনে কোন টিভি, রেডিও , অনলাইন বা মুদ্রিত সংবাদপত্র ধর্মীয় সন্ত্রাসবাদ ছড়ানো বা উগ্রপন্ত্রার প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ প্রচার চালালে তার বিরুদ্ধেও কঠোর ব্যাবস্থা নেবে সরকার। একই সাথে হেলথ ভিজিটর, নার্সারী স্কুল, জব সেন্টারগুলোকেও ইসলামের নামে সন্ত্রাসবাদ বা জঙ্গিবাদের সাথে সম্পৃক্ততার কোন সন্দেহজনক আলামত পেলে তা সাথে সাথে রির্পোট করার কথা বলা হয়েছে আইনে।
প্রধানমন্ত্রী ডেভিট ক্যামেরন ব্রিটেনে ধর্মীয় সন্ত্রাসবাদ ঠেকাতে এ আইনটি দ্রুতই পার্লামেন্টের মাধ্যমে কার্যকর করতে চান। ব্রিটেনের রানী কুইন এলিজাবেথের আসন্ন বক্তৃতায়ও উঠে আসবে ধর্মের নামে উগ্রপš’া আর সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ব্রিটেনের নীতিগত সংহত অবস্থানের বিষয়টি।
এ সংক্রান্ত দীর্ঘমেয়াদী কর্মপরিকল্পনার আওতায় আগামী দু সপ্তাহের মধ্যে ব্রিটেনে কিভাবে গোপনে শরীয়া আদালত পরিচালিত হচ্ছে সে সংক্রান্ত একটি সতন্ত্র রির্পোট ( ইন্ডিপেন্ডেন্ট রিভিউ) প্রকাশিত হবে। হোম সেক্রেটারী থেরেসা মে ডিসেম্বরে ব্রিটেনে শরীয়া আদালতের নামে প্রচলিত ব্রিটিশ বিচার ব্যাবস্থার সমান্তরাল এই প্রক্রিয়া নিয়ে তদন্তের ঘোষনা দেন। এ প্রক্রিয়ার ধারাবাহিকতায় ব্রিটেনের কারা আইনের বিধিতেও সংস্কার আনতে চায় ব্রিটিশ সরকার।
প্রধানমন্ত্রী ডেভিট ক্যামেরন বলেছেন, ইসলামের নামে সন্ত্রাসবাদ ঠেকানো ব্রিটেনের এ প্রজন্মের চ্যালেঞ্জ। ১৮ মাসে ব্রিটেনে ৭ দফায় ইসলামী চরমপন্থীরা সন্ত্রাসী হামলার চেষ্টা চালায়। কিন্তু ব্রিটিশ পুলিশ তাদের এ সম্ভাব্য হামলা প্রতিহত করতে সক্ষম হয়।
উল্লেখ্য, অন্তত সাড়ে আটশ ব্রিটিশ নাগরিক বা দেশটির সাথে সম্পর্কিত ব্যাক্তি গেল কয়েক বছরে সিরিয়ায় গেছেন অথবা সিরিয়ায় যাবার চেষ্টা চালান বলে হালনাগাদ তথ্য প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ সরকার। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিট ক্যামেরন ও হোম সেক্রেটারী থেরেসা মে বছর ব্রিটেনে ইসলামের নামে সন্ত্রাসবাদ ঠেকাতে প্রচলিত আইনে ব্যাপক পরিবর্তনের ঘোষনা দেন। আর এ বাস্তবতায় আগামী ১৮ই মে পার্লামেন্টে উঠছে এই নতুন বিল।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •