এ কেমন শত্রুতা! আগাছানাষক ছিটিয়ে বুরো ধানের বীজতলা পুড়িয়ে দেয়া

January 13, 2022,

বিকুল চক্রবর্তী॥ শ্রীমঙ্গলে আগাছানাষক কিটনাষক ছিটিয়ে সাধারণ কৃষকের বুরো ধানের বীজতলা জ¦ালিয়ে দিয়েছে দুবৃর্ত্তরা। এ ঘটনায় আতংকে রয়েছেন এলাকার কৃষকরা। এর ফলে অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে ৫০/৬০ বিঘা জমিতে বুরো আবাদ। এতে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা দিশে হারা হয়ে পড়েছেন। স্থানীয়দের ধারণা এটি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনী জয় পড়াজয়ের জের।
স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ শাহাজাহান মিয়া জানান, শ্রীমঙ্গল উপজেলার হাইল হাওরের পূর্বপাড়ে ইছবপুর গ্রামের প্রান্তিক কৃষক প্রশান্ত দেব, জগাই বাদ্যকর সাধন শুল্ক বৈদ্য, কনা বাদ্যকর ও পাশবর্তী খাইছড়া চা বাগানের জয়রাম প্রজাপতি বুরো ধান আবাদের জন্য এ বীজতলাগুলো তৈরী করেন। বুধবার জমিতে গিয়ে দেখেন কে বা কারা তাদের বীজতলায় আগাছানাশক স্প্রে করে সব হালি চারা নষ্ট করে দিয়েছে।
খবর পেয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও এলাকার কৃষক কৃষি বিভাগের লোকজন ছুঠে যান সেখানে। তারা ধারনা করে দুই একদিন আগে কোন চক্র আক্রোস মুলক এ কাজকরে। গ্রামবাসী বিভাস দেব ও মো: পাশা মিয়া বলেন একসাথে অনেক গুলো পরিবারের সাথে পূর্বশত্রুতা থাকার কথা নয়, তাছাড়া একই পাশেই একই গ্রামের মায়া মিয়ার বীজতলা অক্ষত রয়েছে। এটি সদ্য সমাপ্ত হওয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন পরবর্তী আক্রোশ মেটাতে কোন চক্র করতে পারে।
উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের ইছবপুর ব্লকের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম জানান, ধানের চারার পাশাপাশি জমির আশে পাশের ঘাসও মরে গেছে। ওখানে কেউ আগাছা দমনের ঔষধ স্প্রে করেছে। এ চারা জমিতে রোপন করলে কোন কাজে আসবেনা। যে পরিমান চারা নষ্ট বা ক্ষতি হয়েছে তা দিয়ে প্রায় ৬০ বিঘা জমি চাষ করা যেতো।
কৃষক প্রশান্ত দেব জানান, তাদের কষ্টের বীজতলা নষ্ট হওয়ায় তাদের এখন পথে বসতে হবে। ধার কর্জ করে বীজতলা তৈরী করা হয়েছিল।
ক্ষতিগস্থ অপর কৃষক জয়রাম প্রজাপতি জানান, নিজের জমি নেই। পরের জমি বর্গাচাষ করেন। এখন জমির মালিককেই কি বুজাবেন আর নিজের ভবিষ্যত খোড়াকিই কিভাবে আসবে।
তবে এ ঘটনায় কৃষকদের সহায়তা এবং দোষীদের খোঁজে বের করে আইনের আওয়াতায় আনার দাবী জানান শ্রীমঙ্গল উপজেলা চেয়ারম্যান ভানু লাল রায়।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •