করোনায় ঘরবন্দি মানুষ প্রকৃতির কাছে যেতে চায় : বিকল্প পর্যটন স্পটে ভীড়

May 18, 2021, এই সংবাদটি ১৪৮ বার পঠিত

ইমাদ উদ দীন॥ বলা চলে বিকল্প পর্যটন স্পট। ঈদে জেলা জুড়ে হঠাৎ আবিষ্কৃত অখ্যাত নামমাত্র ওই স্পটগুলোতেও দৃশ্যমান ছিলো মানুষের ভীড়। ওখানেও ছিলোনা স্বাস্থ্যবিধির কোনো বালাই। করোনার ঝুঁকি নিয়েই দিনভর চলে সেলফিবাজি আর প্রাণবন্ত আড্ডা। প্রতিবছরই সঙ্গত কারনে ঈদে ভীড় বাড়ে এজেলার পর্যটন স্পট গুলোতে। ওখানকার মনোরম প্রকৃতি কাছে টানে পর্যটকদের। এটাই পর্যটন অধ্যুষিত এজেলার ঐতিহ্য। কিন্তু গেল বছর থেকে এ নিয়মের ঘটছে ব্যত্যয়। কারণ মহামারি করোনায় লকডাউন। পর্যটন স্পট পরিদর্শনে রয়েছে বিধিনিষেধ। এবছরও একই কড়াকড়ি। করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে গণপরিবহন রয়েছে বন্ধ। তারপরও ঈদকে উপলক্ষে করে ঘরবন্দি মানুষ একটু স্বস্তির নি:শ^াস নিতে প্রকৃতির কাছাকাছি থাকতে চায়। প্রকৃতির মানসকন্যা হিসেবে পরিচিত এজেলায় ঘুরতে চায়। কিন্তু করোনায় নেই সেই সুযোগ। তাই উপায়ন্ত না দেখে তারা তাৎক্ষণিক বেঁচে নেয় বিকল্প পর্যটন স্পট।
জেলা প্রশাসন সুত্রে জানা যায় করোনা মহামারির সক্রমণ ঠেকাতে মাধবকুন্ড জলপ্রপাত,জাতীয় উদ্যান লাউয়াছড়াসহ জেলার সবক’টি পর্যটন স্পট বন্ধ রয়েছে। পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত আগের প্রজ্ঞাপনটি বলবৎ থাকবে। এমনাবস্থায় জেলার ছোট বড় পর্যটন স্পটগুলো বন্ধ থাকায় দর্শনার্থীরা বিকল্প পর্যটন স্পট বের করে একটু স্বস্তির নি:শ^াসের প্রচেষ্ঠা ছিলো চোখে পড়ার মতো। জেলার স্বনামধন্য পর্যটন স্পট গুলোতে গিয়ে মলিন মুখে ফেরার পথে ওই সকল স্পটের আশপাশে নিজেরাই আবিস্কার করেন এসকল অস্থায়ী পর্যটন স্পট। আর সেখানেই খোঁজেন একটু প্রশান্তি। জেলার সবকটি উপজেলার বড় সড়কের পাশের চা বাগান,রাবার বাগান,পাহাড়ী পথ,পাহাড়ী টিলা,নদীর পাড়, গ্রামীণ সড়ক,খেলার মাঠ,হাওরের তীর ঘেষা সড়ক,ব্রীজ,কালভার্ট,পীচঢালা বড় সড়কের পাশের গাছতলায় নানা বয়সের মানুষের উপচেপড়া ভীড় ছিলো লক্ষণীয়। ওখানে আগন্তুকদের মুঠোফোনে সেলফি আর আড্ডায় বেশ জমে উঠে পুরো এলাকা।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান এসব স্থানে কোনোদিনও মানুষের এতো জটলা দেখেননি তারা। করোনাকালীন জেলার ঐতিহ্যবাহী দর্শনীয় স্থানগুলো বন্ধ থাকায় এসকল অখ্যাত স্থানই হয়ে উঠে বিকল্প পর্যটন স্পট। ওই স্থানগুলোতে আসা অনেকেই জানান ঈদের ছুটি আর ঘরবন্ধী একপেশে মনোভাব কাটাতে অনেকটা ঝুঁকি জেনেও ওখানে পরিবারের সদস্যসহ এসেছেন। মূল স্পট গুলো বন্ধ তারপরও তাদের আগমনে জেলার অর্ধশতাধিক পর্যটন স্পটের আশেপাশের এলাকা বেশ জমজমাট হয়ে উঠে।
এছাড়াও ট্রাক মিনি ট্রাক সাজিয়ে সড়কে সড়কে ঘুরে নাচ গানে ফুর্তিতে মেতে উঠতে দেখা যায় একদল তরুণদের। তারা জানালেন পর্যটন স্পট বন্ধ থাকায় ঈদে এটাই তাদের করোনাকালীন মন ভালো রাখার বিকল্প আয়োজন। কিন্তু এমন সব আয়োজনের অধিকাংশ ক্ষেত্রেই চোখে পড়েনি স্বাস্থ্যবিধি মানার সচেতনতা। জেলা প্রশাসন সুত্রে জানা যায় এ জেলায় প্রতিবছর প্রায় দুই লক্ষাধিক পর্যটক ঘুরতে আসেন। এই খাত থেকে সমৃদ্ধ হয় রাজস্ব আয়। কিন্তু গেলো বছর থেকে এশিল্পে করোনার কারনে দূর্দশা চলছে। তবে পরিস্থিতির উন্নতি হলে এজেলার পর্যটন স্পট গুলো দর্শনার্থীদের জন্য খোলে দেওয়া হবে। আর ওই স্থানগুলো আরও আর্কষণীয় করতে প্রয়োজনীয় সংস্কারও করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •