করোনা নিয়ন্ত্রনে আসলে ঈদুল আযহার নামাজ মৌলভীবাজার টাউন ঈদগাহে অনুষ্ঠিত হবে- পৌর মেয়র ফজলুর রহমান

May 17, 2021, এই সংবাদটি ২০৪ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার॥ কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাস সংক্রামনের কারণে এ বছরও ভিন্ন এক বাস্তবতায় সারাদেশে উদযাপিত হয়েছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। ঈদের নামাজ এবারও ঈদগাহের পরিবর্তে হয়েছে প্রতিটি মসজিদে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের সাথে ঈদুল ফিতর পালন করেছেন মুসলমানরা।
মৌলভীবাজার জেলা বাসীর প্রত্যাশা ছিলো সর্ববৃহৎ ঢালাই ঈদগাহ মৌলভীবাজার পৌরসভার নিয়ন্ত্রণাধীন হযরত সৈয়দ শাহ মোস্তাফা (র:) পৌর ঈদগাহে মুসল্লীরা ঈদুল ফিতরের নামজ আদায় করবেন। করোনা ভাইরাসের কারনে সরকারি বিধি নিষেধ থাকায় ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় করা যায়নি।
মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় শেষে কয়েক জন মুসল্লী বলেন, করোনা ভাইরাসের কারনে ঈদের নামাজ ঈদগাহে না পড়ে আজ মসজিদে পড়ছি স্বাস্থ্যবিধি মেনে। ঈদগাহেও আমরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে নামাজ পড়তে পারতাম। বছরে দুটি ঈদ আর এই ঈদের নামাজ ঈদগাহে পড়ার জন্য সারা বছর অপেক্ষা করি। খোলা আকাশের নিছে ঈদের নামাজ পড়ার পর ঈদের আনন্দ আরো বাড়িয়ে দেয়।
ঈদের নামাজ আদায় শেষে মুসল্লী ষাটউর্দ্ধো মোহাম্মদ রহিম দীর্ঘশাষ ফেলে বলেন আমার বড় ইচ্ছা ছিলো এতো সুন্দর ঈদগাহে ঈদের নামাজ পড়ব, আল্লাহ কাছে চাইবো মৃত্যুর আগে যেনো এই ঈদগাহে ঈদের নামাজ পড়তে পাড়ি। তবে ঈদগাহ পূণ নির্মানের সাথে যারা জড়িত রয়েছেন, ঈদের দিনে আমি তাদের সকলের জন্য দোয়া করি উনাদের জন্য মৌলভীবাজার দৃষ্টিনন্দন একটি ঈদগাহ হয়েছে।
পৌর মেয়র ফজলুর রহমান বলেন ঈদগাহের ডালাইর কাজ ও বাওয়ান্ডারী দেয়ালের কাজ এক বছর আগে শেষ হয়েছে। ঈদগাহের মিম্বরের কাজ শেষ, ঈদের নামাজের জন্য আমাদের ঈদগাহ প্রস্তুত। আমাদের এই ঈদগাহে বীর মুক্তিযোদ্ধা, বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ ও বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর আলহাজ্ব আজিজুর রহমানের জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। তাই ঈদের নামাজের জন্য ঈদগাহ পুরোপুরি তৈরি। সরকারি বিধিনিষেধ না থাকলে ঈদুল ফিতরে নামাজ ঈদ গায়ে অনুষ্ঠিত হত। আগামী ঈদুল আজহার ঈদে সরকারি বিধিনিষেধ না থাকলে ঈদের নামাজ ঈদগায়ে অনুষ্ঠিত হবে। মহান আল্লাহ এই করোনা ভাইরাস মহামারি থেকে সবাইকে মুক্ত করবেন এবং আগামী পবিত্র ঈদুল আযহার নামাজ যেনো ঈদগাহে পড়তে পারি এই দোয়া করি।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •