কুলাউড়ার হাজিপুর ইউনিয়ন-ভোট না দেয়ায় মিলছে না সনদ বিপাকে শিক্ষার্থীরা

May 19, 2016, এই সংবাদটি ১১৮ বার পঠিত

এইচ ডি রুবেল : কুলাউড়া উপজেলার হাজিপুর ইউনিয়নের মানুষ পড়েছেন গ্যাড়াকলে। বর্তমান চেয়ারম্যানকে ভোট না দিয়ে নতুন চেয়ারম্যান নির্বাচিত করায় কোন প্রকার সনদ পাচ্ছেনা মানুষ। বর্তমান চেয়ারম্যান মানুষের সাথে খারাপ আচরণ করে ফিরিয়ে দিচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপবৃত্তির জন্য প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জন্মনিবন্ধন কার্ড না পাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন।

জানা যায়, হাজীপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মাহমুদ আলী ৩য় দফা নির্বাচনে পরাজিত হন স্বতন্ত্র প্রার্থী ও সাংবাদিক আব্দুল বাছিত বাচ্চুর কাছে। এ পরাজয় তিনি সহজে মেনে নিতে পারছেন না। আর তাই ক্ষেপেছেন ভোটারদের উপর। নির্বাচন ৭মে শেষ হওয়ার পর জন্মনিবন্ধন কার্ড ও  ইউনিয়ন সার্টিফিকেট নিতে আসা মানুষের সাথে তিনি খারাপ আচরণ করছেন। গালিগালাজ ও বেধে ফেলার হুমকি দিচ্ছেন। বিশেষ করে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শতভাগ উপবৃত্তি দেয়ায় বিণিœ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্মনিবন্ধন সনদের প্রয়োজন হয়। ফলে জন্মনিবন্ধন সনদ আনতে গিয়ে বিপাকে পড়ছেন অভিভাবকরা। হাজিপুর ইউনিয়নে প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার্থীদের একটি অংশ উপবৃত্তি বঞ্চিত হওয়ার আশংকা করছেন।

কটারকোনা গ্রামের তোয়াহিদ মিয়া ও রনচাপ গ্রামের শামসুল ইসলাম অভিযোগ করেন, চেয়ারম্যান মাহমুদ আলী তাদের নাগরিকত্ব সনদ না দিয়ে অশালিন আচরণ করে ইউনিয়ন থেকে তাড়িয়ে দেন। তাছাড়া নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান আব্দুল বাছিত বাচ্চুর চিহ্নিত সমর্থকদের সরাসরি ফিরিয়ে দিয়ে বলছেন, তোমাদের চেয়ারম্যান আসলে সার্টিফিকেট পাবে। ততদিন অপেক্ষা কর। আর বিচার চাইতে গেলে মানুষকে বলেন, নতুন চেয়ারম্যান বিচার করবেন। এনিয়ে হাজিপুর ইউনিয়নের মানুষের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান মাহমুদ আলী জানান, আমি বর্তমানে সিলেট আছি। আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ সঠিক নয়। নতুন চেয়ারম্যানদের শপথ নেয়ার আগ পর্যন্ত আমি সকল কাগজে সই করছি।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •