কুলাউড়ায় নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যানের ইন্ধনে সীমানা প্রাচীর ভাংচুর! সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগীর অভিযোগ

December 4, 2021, এই সংবাদটি ৮২ বার পঠিত

মাহফুজ শাকিল॥ মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার হাজিপুর ইউনিয়নে নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান ওয়াদুদ বক্সের ইন্ধনে স্থানীয় এক ব্যবসায়ীর জায়গার ওপর নির্মানাধীন সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। কুলাউড়া থানায় এ ব্যাপারে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন হাজীপুর ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ভুক্তভোগী মাজহারুল আলম।
এ ঘটনায় শনিবার ৪ ডিসেম্বর দুপুরে কুলাউড়ায় সংবাদ সম্মেলন করে ন্যায় বিচার ও দোষীদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান ভুক্তভোগী মাজহারুল আলম।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মাজহারুল অভিযোগ করে গণমাধ্যমকর্মীদের জানান, প্রায় একমাস পূর্বে উপজেলার হাজীপুরের রনচাপ মৌজার জে.এল নং ৮৮, খতিয়ান নং ৬২ এবং ৭৩০ ও ৭৭৫ নং দাগের ৪৫ শতক জায়গার চারপাশে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ শুরু করেন। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনের আগে ওই ইউনিয়নের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও ইউপি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াদুদ বক্সের ভাই ছালিক বক্স ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা না দেওয়ায় নির্বাচনের তিনদিনের মাথায় বৃহস্পতিবার দুপুরে ওয়াদুদ বক্সের ইন্ধনে মেম্বার পদপ্রার্থী জাহাঙ্গীর হোসেন নামে স্থানীয় এক বাসিন্দা সীমানা প্রাচীরের পিলার ভেঙ্গে ফেলেন। পরদিন শুক্রবার আবারো ওয়াদুদ বক্সের ভাই ছালিক বক্স দেশীয় অস্ত্র ও লোকজন নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্মাণাধীন সীমানা প্রাচীর ভাঙচুর করেন। এতে প্রায় ৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়। ভাঙচুর শেষে ছালিক বক্স মুঠোফোনে মাজহারুলকে এ বিষয়ে কোন আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের চেষ্টা করলে প্রাণনাশের হুমকি দেন। থানা পুলিশ ঘটনাস্থল সরেজমিনে পরিদর্শন করেন এবং পরিস্থিতি শান্ত করেন।
এ ঘটনায় শনিবার ভুক্তভোগী মাজহারুল আলম হুকুমদাতা হিসেবে ওয়াদুদ বক্স, ছালিক বক্সকে প্রধান আসামী, জাহাঙ্গীর হোসেন, সামছুল হক, লিয়াকত আলী, রইছ আলী, মখন মিয়া, সিয়াম মিয়াকে অভিযুক্ত করে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।
অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে হাজীপুরের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান ওয়াদুদ বক্স মুঠোফোনে বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সত্য নয়। রাস্তা নিয়ে স্থানীয় কয়েকটি গ্রামের বাসিন্দাদের সাথে মাজহারুল আলমের জায়গার সীমানা প্রাচীর নির্মাণ নিয়ে বিরোধ ছিলো। এলাকার লোকজনের বাঁধা না মেনে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করায় এলাকার লোকজনই উত্তেজিত হয়ে সীমানা প্রাচীর ভাঙচুর করেছে বলে তিনি দাবি করেন।
এ বিষয়ে কুলাউড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম জানান, হাজীপুরে রাস্তার ওপর সীমানা প্রাচীর নির্মাণ নিয়ে স্থানীয় দুই পক্ষের বিরোধ চলছে। শুক্রবার সীমানা প্রাচীর ভাঙচুরের ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়েছে। দুই পক্ষের বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •