কুলাউড়ায় ৪ কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা সংস্কার করলো স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন

March 6, 2021, এই সংবাদটি ৪০৪ বার পঠিত

মাহফুজ সাকিল॥ কুলাউড়া উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডে একটি গ্রামীণ রাস্তার প্রায় ৪ কিলোমিটার জায়গা স্বেচ্ছাশ্রমে সংস্কার করলো চান্দগাঁও একতা যুব সংঘ নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন।
গত দুই সপ্তাহ ধরে ওই সংগঠনের সকল সদস্যরা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের মীরেরগাঁও পলকী নদীর ব্রীজ থেকে চান্দগাঁও ভায়া কাতাইরপার কবরস্থান পর্যন্ত এবং চান্দগাঁও-হাজীপুর রাস্তার পলকি নদীর ব্রীজ থেকে চান্দগাঁও (সাবেক ইউপি সদস্য) এখলাছুর রহমানের বাড়ির সামনের চৌমুহনী পর্যন্ত কাঁচা রাস্তা সংস্কার করেন। প্রায় চার কিলোমিটার দীর্ঘ কাঁচা রাস্তার বিভিন্ন স্থানে ভাঙাচোরা ও বেহাল দশার কারণে স্থানীয় এলাকার মানুষের দূর্ভোগের কোন কমতি নেই।
সামান্য বৃষ্টি হলেই ভাঙা অংশ কাঁদা-পানিতে মিশে একাকার হয়ে যায়। ফলে এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে দুর্ভোগে পড়েন ইউনিয়নের ৬/৭টি গ্রামের প্রায় দশ সহস্রাধিক মানুষ। যেন দেখার কেউ নেই ! এমন দূর্ভোগ দূর করার জন্য গ্রামবাসীরা জনপ্রতিনিধিদের কাছে গিয়েছিলেন কয়েকবার। কিন্তু তাতেও কোনো লাভ হয়নি। তাই নিজেদের সমস্যা সমাধানে নিজেরাই এগিয়ে এলেন।
গ্রামের মানুষের অসুবিধা দেখে তরুণ সমাজসেবক ও চান্দগাঁও একতা যুব সংঘের সভাপতি সালাউদ্দিন আহমদের উদ্যোগে সংগঠনের সদস্যরা স্বেচ্ছাশ্রম দিয়ে রাস্তায় মাটি ফেলে সংস্কার করে চলাচলের উপযোগী করে তুলেছেন। এই রাস্তা দিয়ে হাজীপুর ইউনিয়নের মীরেরগাঁও, চান্দগাঁও, পুরানতকি, ভূঁইগাঁও, কাথাইরপার গ্রামের কয়েক সহস্রাধিক মানুষ কুলাউড়া, শমসেরনগর, ভানুগাছ, শ্রীমঙ্গল, স্থানীয় পীরের বাজারসহ জেলা সদরে নিয়মিত যাতায়াত করেন। তাঁদের মধ্যে স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থী, চাকরিজীবী, ব্যবসায়ী, কৃষক, সবজি ব্যবসায়ীও রয়েছেন।
সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, স্থানীয় চান্দগাঁও একতা যুব সংঘের কিছু উদ্যোমী স্বেচ্ছাসেবী যুবক কোদাল নিয়ে রাস্তার পাশের জমি থেকে মাটি কেটে রাস্তায় ফেলছেন এবং ড্রেসিং করছেন। সংগঠনের সদস্যেদের এমন কর্মযজ্ঞ দেখে এলাকার কয়েকজন বয়োজৈষ্ঠ ব্যক্তি তাদের সাথে সংস্কার কাজে যোগ দেন। এছাড়া প্রতিদিন কাজের ফাঁকে সদস্যদের জন্য আয়োজন করা হয় দুপুরের খাবার। তাদের এই উদ্যোগকে স্থানীয় এলাকার লোকজন সাধুবাদ জানাচ্ছেন।
রাস্তা সংস্কারের কাজে অংশ নেন স্থানীয় মুরব্বি মুতলিব মিয়া, আব্দুর রউফ,আবুল মিয়া, সংগঠনের সভাপতি সালাউদ্দিন আহমেদ, সংগঠনের উপদেষ্ঠা ও পৃষ্ঠপোষক ডা. দীপক মল্লিক, শিক্ষক মোঃ লুৎফুর রহমান, বাবু অনিমেষ মল্লিক, সাইদুর রহমান, মনির উদ্দিন, সংগঠনের সিনিয়র সদস্য শাহাব উদ্দিন, আজিম উদ্দিন, সেলিম আহমদ, সায়েদ আহমেদ, মাহমুদ আহমেদ, দেলোয়ার হুসাইন, নাজমুল ইসলাম, ফরিদ আহমেদ, রুমেল আহমেদ, ময়নুল ইসলাম, হেলাল আহমেদ, জলাল মিয়া, রহিম উদ্দিন,মিছবাউর রহমান,বিধন মল্লিক,তাপশ মল্লিক, নেপাল মল্লিক,খিতিশ মল্লিক,নির্মল মল্লিক, পরিমল মল্লিক, কামাল আহমদ, মুহিদ মিয়া, স্বপন মল্লিক, সজল মল্লিক, বাবুল মিয়া প্রমুখ।
এলাকাবাসী জানান, দীর্ঘদিন ধরে সরকারি বরাদ্দে স্থানীয় মেম্বার, চেয়ারম্যানের বরাদ্দে এ রাস্তার কোন সংস্কার কাজ হয়নি।
উক্ত রাস্তা সংস্কারের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মৌখিকভাবে জানানোর পরও এ বিষয়ে তারা কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেননি। অথচ সরকারের টিআর, কাবিখা, কর্মসৃজনসহ বিভিন্ন প্রকল্প বরাদ্দ করা হলেও তা গ্রামীণ রাস্তা সংস্কারের ক্ষেত্রে কোন উপকার আসছে না।
সংগঠনের সভাপতি সালাউদ্দিন আহমেদ বলেন, বেহাল রাস্তার কারণে তাঁদের দুর্ভোগের শেষ নেই। এ অবস্থায় আমাদের সংগঠনের সদস্যরা স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছেন। ১৪ তম দিনের মতো কাজ শেষ। পর্যায়ক্রমে রাস্তার বাকি কাজটুকুও সম্পন্ন করা হবে। সরকারি বরাদ্দে রাস্তার কাজ মেরামত করলে এলাকাবাসী অনেক উপকৃত হতো।
এ বিষয়ে হাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল বাছিত বাচ্চু বলেন, চান্দগাঁও একতা যুব সংঘের এমন উদ্যোগ শুনে আমি খুবই খুশি হয়েছি। কারণ এ ধরনের যুবকরাই মুক্তিযুদ্ধ ও ভাষা আন্দোলনে অংশ নিয়েছিলো বলে দেশ আজ স্বাধীন হয়েছে। আমি মনে করি, হাজীপুর ইউনিয়নের সকল ওয়ার্ডের যুবক বা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন যদি তাদের এই মহৎ কাজকে অনুসরণ করে তাহলে হাজীপুর ইউনিয়ন একটি আধুনিক ইউনিয়নে রুপান্তরিত হবে।
তিনি আরো বলেন, সরকারি বরাদ্দ প্রাপ্তি সাপেক্ষে গুরুত্ব বিবেচনায় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে শিগগিরই ওই রাস্তায় সংস্কারকাজ করা হবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম ফরহাদ চৌধুরী বলেন, স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা সংস্কার করায় ওই সংগঠনের এমন মহৎ কর্মযজ্ঞকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সাধুবাদ জানাই।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •