ট্রেনের হুইসেল মানেননি মাইক্রো চালক : ট্রেন থেমে যাওয়ায় অন্য যাত্রীরা রক্ষা পায়

September 7, 2021, এই সংবাদটি ১১৪ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার॥ কুলাউড়ায় ট্রেনের ধাক্কায় ধুমড়ে মুচড়ে গেছে যে মাইক্রোবাস, তার চালককে নিষেধ করার পরও তিনি গাড়ি রেল লাইনে তুলে ফেলেন। এমনকি এসময় ট্রেনের হুইসেল বাজলেও তাতে কর্ণপাত করেননি ওই চালক।
হুইসেলের মধ্যেই লেভেল ক্রসিং পার হওয়ার একপর্যায়ে রেললাইনের একটি অংশে মাইক্রোবাসের চাকা আটকে যায়। এরপর চোখের পলকেই ঘটে দুর্ঘটনাটি।
রবিবার ৫ সেপ্টেম্বর দুপুরে সিলেট-ঢাকা রেলপথের কুলাউড়ার ভাটেরা এলাকায় লেভেল ক্রসিংয়ে দুর্ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী মনিরুল ইসলাম নামের এক ব্যাক্তি এসব কথা বলেছেন।
মনিরুল ইসলামের দাবি- মাইক্রোবাসটি লেভেল ক্রসিং পার হওয়ার সময় তিনি ঘটনাস্থলে ছিলেন। তাড়াহুড়ো করে লেভেল ক্রসিং পার হওয়ার আগেই মাইক্রোবাসচালককে সতর্ক করেছিলেন জানিয়ে মনিরুল বলেন-‘ট্রেনের হুইসেল শুনে আমিও নিষেধ করছিলাম। মাইক্রোবাসটি রেলক্রসিংয়ে গিয়ে চাকা আটকে পড়ে। এসময় চালক মাইক্রো থেকে নেমে সটকে পড়ে। এ অবস্থায় ধাক্কা লাগে ট্রেনের সাথে। এসময় ট্রেনের ইঞ্জিনের অগ্রবাগে আটকে ১০০ মিটার দূরে গিয়ে পড়ে মাইক্রোবাসটি। আমরা তো মনে করছি, কেউ বাঁচবে না।’
দুর্ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী জামাল আহমদ নামের অপর ব্যক্তি জানান, মাইক্রোবাসটি রেল লাইন পাড়ি দেয়ার সময় চাকা আটকে থেমে গেলে তিনি সহ আরও কয়েকজন গা থেকে কাপড় খুলে হাত উচিয়ে থামার জন্য সিগনাল দেন। ট্রেনের গতি কমিয়ে এসে থেমে যাওয়ায় অন্যান্য যাত্রী প্রাণে রক্ষা পায়।
সিলেট রেলস্টেশন থেকে জানানো হয়-ঢাকা থেকে সিলেটগামী আন্তঃনগর পারাবত এক্সপ্রেস কুলাউড়ার ভাটেরা পেরিয়ে ফেঞ্চুগঞ্জের দিকে দ্রুতগতিতে যাচ্ছিল। ভাটেরার কাছে হোসেনপুর নামের জায়গায় রেলক্রসিংয়ে দুর্ঘটনাটি ঘটে। দুর্ঘটনার পর সিলেটের পথে রেল যোগাযোগ সাময়িক সময়ের জন্য বন্ধ থাকলেও ১ ঘণ্টা পর তা আবার সচল হয়।
সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে- মাইক্রোবাসে থাকা হতাহত সবাই একই পরিবারের। সিলেট নগরীর লোহারপাড়া এলাকার ৩ বাসিন্দা মারা যায়। আহত হয়েছেন ৭ জন।
নিহত ফরিদ উদ্দিনের বড় মেয়ে রেজওয়ানা উদ্দিন বলেন- দুটি মাইক্রোবাসে করে তারা ভাটেরায় এক আত্মীয়ের বিয়েতে যাচ্ছিলেন। একটি মাইক্রোবাস আগে ছিল। সামনের মাইক্রোবাসটিকে অনুসরণ করতে গিয়ে তাড়াহুড়োয় দুর্ঘটনাটি ঘটে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •