ধর্ষণের শিকার কিশোরী

January 2, 2017, এই সংবাদটি ৩৯৫ বার পঠিত

হোসাইন আহমদ॥ মৌলভীবাজার সদর উপজেলার ভাদগাঁও গ্রামের এক তের বছরের কিশোরীকে জোর পূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সে সদর উপজেলার কনকপুর ইউনিয়নের ভাদগাঁও গ্রামের “আ” অধ্যাক্ষরের এক ব্যাক্তির মেয়ে।
পরিবারের অভিযোগ, একই এলাকার মনাই ও আব্দুল ওয়াহিদ থাকে ধর্ষন করেছে। মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কিশোরী জানায়, “২৫ ডিসেম্বর রবিবার সন্ধ্যা ৭টায় তার মা’র সাথে ঘরের বাহিরে রান্না করছিল। প্রস্্রাব করার জন্য ঘরের পিছনে গেলে ভাদগাঁও গ্রামের আদালত মিয়ার ছেলে মনাই ও ছখাই মিয়ার ছেলে আব্দুল ওয়াহিদ তার পড়নের ওড়না দিয়ে মুখবন্ধ করে ও চোখ বেধে বাড়ির পার্শ্ববর্তী জমিতে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। এসময় সে চিৎকার দিলে তারা পালিয়ে যায়। পরে সে হাওরের পার্শ্ববর্তী একটি বাড়ির উঠানে গিয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়ে”।
কিশোরীর বাবা বলেন, পূর্ব বিরোধের জের ধরে আদালত মিয়ার ছেলে মনাই ও ছখাই মিয়ার ছেলে আব্দুল ওয়াহিদ আমার মেয়েকে ধরে নিয়ে ধর্ষন করেছে।
এ বিষয়ে মনাই ও আব্দুল ওয়াহিদ এর সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদেরকে পাওয়া যায়নি।
কনকপুর ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউর রহমান চৌধুরী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।
মৌলভীবাজার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ অকিল উদ্দিন বলেন, ওই ঘটনায় মামলা হয়েছে এবং আসামীদেরকে ধরার জন্য অভিযান অব্যাহত আছে।
এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের গাইনি বিভাগে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •