বর্ষা

August 4, 2020, এই সংবাদটি ১৬১ বার পঠিত

মোঃ আবু তাহের॥
আষাঢ় বাদল দিনে বৃষ্টি ঝরে
অবিরাম,শন শন বাঁশির সুরে।
মন চায়,চেয়ে থাকি জানালা খুলে
ভাল লাগে ঘরের কোণে বসে,
শীতের কাঁথা মুরি দিয়ে শুয়ে,
গীটার বা তবলায় সুর তুলে।
শুকনা সীম বিচি আর চাল ভাজা,
কট কট করে খেতে দারুণ মঝা।
গরু, ছাগল সব বাঁধা গোয়ালে,
ভিঝা মুরগীর বাচ্ছা,পাখের নিচে,
চুড়ই পাখি বেন্টির ফাঁকে ফাঁকে
মাথা বাহির করে চিউ চিউ ডাকে,
বাহিরে না যায় খাদ্য অন্বষণে।
বেলা শেষে যদি সূর্যের দেখা মিলে
ঘরের বাহির সব মনের সুখে।
ঘুম হয়,নিঝুম বাদল রাতে।
কদম ফুল নব বধুর খোঁপায়
বউ,শাশুরী,কন্যা নাইওর যায়,
কেউ বাপের বাড়ি কেউ স্বামীর বাড়ি
নৌকা চড়ে,নয়া পানি আষাঢ় মাসে।
আষাঢ় মাসে ভাসা জলে,নৌকা চলে
পাল উড়াইয়া,ঝির ঝির বাতাসে।
শ্রমজীবিদের বেকার সময়
আষাঢ় শ্রাবণ নিদানের কালে।
বর্ষার বৃষ্টি ঝরে,অথই জল
হাওর বাওর ও নদী নালায়।
নৌকা ভাটির অঞ্চলে,মানুষের
একমাত্র চলাচলের বাহক।
অতি বৃষ্টিতে কখনো বন্যা হয়
মানুষের সীমাহীন দুর্গতি,
নষ্ট হয় মাঠের ফসল,ঘর বাড়ি,
পুকুরের মাছ,জানমালের ক্ষতি।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •