বড়লেখায় পানি নিষ্কাষনের নালায় বাঁধ ১ মাস ধরে ৪০ পরিবার পানিবন্ধী উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশ উপেক্ষিত

April 20, 2016, এই সংবাদটি ১৯০ বার পঠিত

 

বড়লেখা প্রতিনিধি॥ বড়লেখায় রাস্তার পাশের পানি নিষ্কাষনের নালা বন্ধ করে দেয়ায় ১ মাস ধরে পানিবন্ধী হয়ে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে ৪০ পরিবারের তিন শতাধিক মানুষ। এলাকাবাসীর অমানবিক জনদুর্ভোগের অভিযোগ আমলে নিয়ে উপজেলা প্রশাসন তিন কর্ম দিবসের মধ্যে নালার বাঁধ কেটে পানি নিষ্কাষনের ব্যবস্থা করার নির্দেশ দিলেও প্রভাবশালীরা এর তোয়াক্কা করেনি।

ইউএনও বরাবরে এলাকাবাসীর লিখিত অভিযোগ সুত্রে  জানা গেছে, উপজেলার দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউপির ঘোলসা রাজারগুল গ্রামের প্রভাবশালী সোনাহর আলী, মহব্বত আলী, এখলাছ আলী প্রমূখের বাড়ী সংলগ্ন রাস্তার পাশের নালা দিয়ে এলাকার পানি নিষ্কাষিত হয়ে আসছে। এরা গত বছর নালা বন্ধ করে দিলে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হলে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপে বাঁধ কেটে পানি প্রবাহ স্বাভাবিক করা হয়। প্রায় এক মাস আগে এসব প্রভাবশালীরা নালায় বাঁধ দেয়ায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হলে এলাকাবাসী এবারও ইউএনও বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেন। সরেজমিন তদন্ত করে উপজেলা প্রকৌশলী বিদ্যুৎ ভুষন পাল ১৭ এপ্রিল অভিযুক্ত সোনাহর আলী গংদের তিন কর্মদিবসের মধ্যে নালার বাঁধ কেটে জলাবদ্ধতা নিরসনের লিখিত নোটিশ করলেও বুধবার বিকেল পর্যন্ত তারা পানি নিষ্কাষনের ব্যবস্থা করেনি। ফলে পানিবন্ধী মানবেতর জীবন যাপন করছে ভুক্তভোগী এলাকাবাসী।

গ্রামের কেন্দ্রিয় মসজিদের ইমাম মাওলানা ফারুক আহমদ, অভিযোগকারী নুর উদ্দিন, জইন উদ্দিন, দীপক রঞ্জন দাস প্রমূখ জানান, চারজন ব্যক্তির কারনে গ্রামের ৪০ পরিবারের কয়েকশ’ মানুষ ১ মাস ধরে অমানবিক দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। ছাত্র-ছাত্রীরা স্কুল কলেজে যেতে পারছে না। রাস্তা তলিয়ে যাওয়ায় সংখ্যালঘুরা কালাচাঁদ বাড়ীর পুজা পার্বন বন্ধ রেখেছে।

উপজেলা প্রকৌশলী বিদ্যুৎ ভুষন পাল জানান, ইউএনও’র নির্দেশে তিনি সরেজমিন পরিদর্শন করে অভিযোগের সত্যতা পেয়ে ১৭ এপ্রিল অভিযুক্তদের ৩ দিনের মধ্যে নালার বাঁধ কেটে দেয়ার নির্দেশ দেন।

 

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •