বড়লেখায় ভাড়ার টাকা চাওয়ায় দোকান ও গাড়ীতে আগুন

May 16, 2016, এই সংবাদটি ১৮৫ বার পঠিত

বিশেষ প্রতিনিধি॥ বড়লেখা উপজেলার বোবারতলে গাড়ীর পাওনা ভাড়ার টাকা চাওয়ায় দোকান ও গাড়ীতে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। এছাড়াও বাড়ীতেও হানা দিয়ে দুই মহিলার শ¬ীলতাহানী ও কয়েক লক্ষ টাকার মালমাল লুট করা হয়েছে। এঘটনায় দোকান ও গাড়ীর মালিক জামাল উদ্দিন বাদি হয়ে বড়লেখা থানায় একটি মামলা (নং-০৮/১২.০৫.১৬) দায়ের করেছেন।

Barlekha-Fire-(1)
মামলাল এজহার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বোবারতল ইসলামনগর গ্রামের জামাল উদ্দিনের দুটি জিপগাড়ী রয়েছে। জিপগাড়ীটি স্থানীয় রোডে চলাচল করে। গাড়ী ভাড়া বাবদ যাত্রী রুবেলের কাছে বকেয়া ১০০ টাকা চাইলে তিনি টাকা না দিয়ে উল্টো জামাল ও তার ছেলে মুহিবুরকে মারধরের চেষ্ঠা করে। একপর্যায়ে রুবেলের আত্মীয় ইব্রাহীম আলী, রুস্তুম আলী, সাহাব উদ্দিন, আব্দুল মজিদ, ইয়াছিন আলী, কাছিম আলী গংরা ১১ মে রাত সাড়ে ৮ টায় জামালের দোকানে ২য় দফা হামলা চালায়। তাদের হামলায় জামালের ভাতিজা খালেদ গুরুতর আহমদ। এসময় ৩ দিনে মধ্যে ইসলামনগর চৌমোহনা বাজার থেকে উচ্ছেদ করবে বলেও হুমকি দেয়। পরে স্থানীয়রা এসে বিষয়টি মিমাংশা করে দেয়। এদিকে ওইদিন রাত ৩ টার দিকে তারা আবারও হানা দিয়ে দোকানে আগুন লাগিয়ে দেয়। তাদের দেয়া আগুনে দোকানে থাকা রাইছমিল, দোকান ও দোকানে থাকা দুটি জীপগাড়ি পুড়ে ভস্মিভূত হয়ে যায়। এসময় স্থানীয়রা এগিয়ে এসে দোকানের আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। জামাল মিয়া তার ছেলেদের নিয়ে দোকানের আগুন নেভাতে আসলে সন্ত্রাসীরা জামালের বাড়ীতে হানা দিয়ে জামালের পুত্রবধু ফরিদা ইয়াছমিন ও রিপা বেগমের শ¬ীলতাহানী ঘটায়। ঘরের আসবাপত্র ভেঙ্গে নগদ টাকা, স্বর্ণলংকারসহ ৫-৬ লক্ষ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

Barlekha-Fire
এব্যাপারে জামাল মিয়ার ছেলে মুহিবুর রহমান সাংবাদিকদের কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ভাই তারা আমরার দোকান-গাড়ী জ্বালাইয়া আমরারে একেবারে পথের ফকির বানাইয়া দিছে। আমরা চাই এর সুষ্ঠ বিচার অউক।
এ ব্যাপারে জানান, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ইয়াকুব হোসেন আসামীদের ধরতে পুলিশী অভিযান অব্যাহত আছে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •