বড়লেখায় সোনাই নদীর ভাঙনে বিলীন হচ্ছে ফসলি জমি হুমকিতে মসজিদ স্কুল ও রাস্তা

August 15, 2021, এই সংবাদটি ৬২ বার পঠিত

আব্দুর রব॥ বড়লেখা উপজেলার উত্তর শাহবাজপুর ইউপির উজানীপাড়া এলাকায় সোনাই নদীর ভাঙনের কবলে পড়েছে ফসলি জমি। সোনাই নদী ওই এলাকায় গত কয়েক বছর ধরে একটুআধটু করে ভাঙছে। গত এক বছরে ভাঙনে প্রায় ৫০০ মিটার জায়গা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এতে হুমকির মুখে পড়েছে ফসলি জমি, নদীতীরের পাকা রাস্তা, স্কুল ও মসজিদ।
এ অবস্থায় ভাঙন রোধে ব্যবস্থা নিতে এলাকাবাসীর পক্ষে স্থানীয় ইউপি সদস্য সেলিম আহমদ খান বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক বরাবরে লিখিত আবেদন করেছেন।
এলাকাবাসীর আবেদন সূত্রে জানা গেছে, উজানীপাড়া উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের উজানীপাড়া রাস্তার পাশ দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে সোনাই নদী। ওই এলাকায় রয়েছে হাজী মোহাম্মদ আব্দুল মজিদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উজানীপাড়া জামে মসজিদ ও ব্যাপক ফসলি জমি। উজানে অল্প বৃষ্টি হলে পাথারিয়া পাহাড় এলাকা ও ভারত থেকে নেমে আসা পানিতে নদীতে প্রবল ¯্রােতের সৃষ্টি হয়। এতে নদীর পাড়ে ভাঙন দেখা দেয়। গত কয়েক বছর ধরে ভাঙনের ফলে নদী তীরবর্তী কিছু বাসিন্দা বসতবাড়ি অন্যত্র নিয়ে গেছেন। এছাড়া ফসলি জমি নদীতে বিলীন হওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন স্থানীয় কৃষকরা। ভাঙন রোধে কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় দীর্ঘদিন থেকে এ অবস্থা চলছে। গত এক বছর ধরে ভাঙনের ফলে হুমকির মুখে রয়েছে পাকা সড়ক, স্কুল ও ফসলি জমি। নদীর ভাঙনস্থল থেকে পাকা সড়ক প্রায় ১০ ফিট ও বিদ্যালয় ৩০ ফিট দূরে রয়েছে। ভাঙন রোধ করলে পাকা সড়ক, স্কুল, মসজিদ ছাড়াও ২০ থেকে ২৫টি গ্রামের মানুষের ফসলি জমি ও বসতবাড়ি রক্ষা পাবে।
স্থানীয় ব্যবসায়ী ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গনি বলেন, ‘বেশ কয়েক বছর ধরে আমাদের এলাকায় নদী ভাঙছে। এতে অনেকের ফসলি জমি নদীতে বিলীন হয়েছে। সম্প্রতি বেশ কিছু জায়গা ভেঙেছে। নদীর পাড় ঘেঁষে একটি পাকা সড়ক গেছে। এছাড়া এলাকায় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মসজিদ রয়েছে। এখন এগুলোও হুমকির মুখে রয়েছে। দ্রুত নদী তীরে ব্লক ও বাঁধ নির্মাণ করে ভাঙন রোধে ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।’
বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) মৌলভীবাজার কার্যালয়ের পওর শাখা-৪ এর উপ-সহকারি প্রকৌশলী মো. সরওয়ার আলম চৌধুরী রোববার বিকেলে বলেন, ‘সরেজমিনে ভাঙনস্থল পরিদর্শন করেছি। প্রায় ৫০০ মিটার জায়গা নদী ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বাজেট বরাদ্দের জন্য ঢাকায় অর্থ চাহিদা প্রেরণ করা হয়েছে।’

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •