বড়লেখায় ৪২ দিন ধরে ছেলে-মেয়েসহ মা অবরুদ্ধ অবশেষে উদ্ধার

October 2, 2018, এই সংবাদটি ২২১ বার পঠিত

বড়লেখা প্রতিনিধি॥ বড়লেখা আদালতে চলমান একটি মামলা প্রত্যাহারের হুমকিতে বিবাদীরা ৪২ দিন ধরে নিজ গৃহে বাদীর স্কুল পড়–য়া ছেলে ও কলেজ পড়–য়া মেয়েসহ স্ত্রীকে অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অবশেষে নির্বাহী ম্যাজিেেস্ট্রটের নির্দেশে মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশ তাদেরকে উদ্ধার করেছে।

থানা পুলিশ ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ২৫ সেপ্টেম্বরের ১১৪০ নং অভিযোগ সুত্রে সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার দক্ষিণভাগ দক্ষিণ ইউপির পেনাগুল গ্রামের মৃত রইছ আলীর ছেলে সাহাব উদ্দিন বাবুল তারই ছোটভাই নিজাম উদ্দিনের বিরুদ্ধে বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়েল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জাল কাগজপত্রে প্রায় এক কোটি টাকার ভু-সম্পত্তি আত্মসাত চেষ্টার মামলা করেন। ১৯ আগস্ট নিজাম উদ্দিন অন্য একটি মামলায় জেল থেকে জামিনে রেরিয়ে সাহাব উদ্দিন বাবুলকে কতিপয় লোক নিয়ে অস্ত্রেসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে মামলা প্রত্যাহারের হুমকি দেন। অন্যতায় হত্যার পর লাশ গুম করারও হুমকি দেন। পরদিন ২০ আগস্ট আদালতের ধার্য তারিখ থাকায় বড় ছেলেকে নিয়ে সাহাব উদ্দিন বাবুল জানালা দিয়ে বেরিয়ে কোর্টে হাজিরা দেন। এরপর অব্যাহত হুমকি-ধমকির কারণে ছেলেসহ তিনি আর বাড়ি যেতে পারেননি। তার স্ত্রী নাজমিন চৌধুরী, স্কুল পড়–য়া ছেলে সিনহাজ আহমদ ও কলেজ পড়–য়া মেয়ে নাছরিন আক্তারকে ৪২ দিন যাবৎ নিজ গৃহে অবরুদ্ধ রাখেন বিবাদী নিজাম উদ্দিন।

বড়লেখার থানার এসআই মিন্টু চৌধুরী জানান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নির্দেশে তিনি ২ অক্টোবর মঙ্গলবার দুপুরে অবরুদ্ধ ছেলে-মেয়ে ও মাকে উদ্ধার করে দুইটি ঘর বাদি সাহাব উদ্দিনকে এবং একটি ঘর সাবেক ইউপি মেম্বার ছয়েফ উদ্দিনের জিম্মায় বুঝিয়ে দিয়েছেন।

এব্যাপারে অভিযুক্ত নিজাম উদ্দিন জানান, সাহাব উদ্দিন বাবুল একাধিক মিথ্যা মামলা দিয়ে তাকে হয়রানী করছেন। তিনি কাউকে হুমকি-ধমকি ও অবরুদ্ধ রাখেননি। সবই সাহাব উদ্দিন বাবুলের সাজানো নাটক। পুলিশ বে-আইনীভাবে তার বাড়িতে প্রবেশ করেছে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •