(ভিডিওসহ) যানজট নিরসনে পৌর মেয়র সহ বিশিষ্ট জনের শহরে পশ্চিম এলাকা পরিদর্শন

September 20, 2018, এই সংবাদটি ১,০১৪ বার পঠিত

আশরাফ আলী॥ মৌলভীবাজার পৌর শহরকে যানজট মুক্ত করতে পৌরসভার উদ্যোগে নেওয়া হচ্ছে একের পর এক প্রদক্ষেপ। শহরের চৌমুহনা, শমসেরনগর রোড, এম সাইফুর রহমান রোড, বেরীর পাড় ও কুসুমবাগ এলাকায় প্রায় সময় লেগে থাকে যানজট। যানজটের কারণে দূর্ভোগ পোহাতে হয় নাগরিকদের।

বৃহস্পতিবার ২০ সেপ্টেম্বর দুপুরে যানজট নিরসনে পৌরসভার উদ্যোগে কুসুমবাগ এলাকা পরিদর্শন করা হয়। পরিদর্শনে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র মোঃ ফজলুর রহমান, প্রেসক্লাব সভাপতি আবদুল হামিদ মাহবুব, সহ-সভাপতি সৈয়দ হুমায়েদ আলী শাহিন, পৌর কাউন্সিলর ফয়সল আহমদ, আলহাজ¦ আয়াছ আহমদ, জালাল আহমদ, মাসুদ আহমদ ও আনিসুজ্জামান বায়েছ।

এ ছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক এস এম উমেদ আলী,  সালেহ এলাহি কুটি, হাসনাত কামাল, মু. ইমাদ উদ দিন।

এর আগে ১০ সেপ্টেম্বর মৌলভীবাজার পৌরসভা অভিযান চালিয়ে শহরকে যানজট মুক্ত করতে কুসুমবাগ পয়েন্ট এলাকা থেকে সিএনজিচালিত ষ্ট্যান্ডগুলো আলোচনার ভিত্তিতে সরিয়ে দেওয়া হয়। ষ্ট্যান্ডগুলো সরানোর ফলে কুসুমবাগ এলাকার যানজট অনেকাংশে কমে এসেছে। ষ্ট্যান্ডগুলো সরিয়ে নেওয়ায় স্বস্তি প্রকাশ করেছেন সাধারণ নাগরিকগণ।

মুর্শেদ আহমদ নামের একজন পথচারী বলেন, আগে কুসুমবাগ পয়েন্টে অবৈধ ও এলোমেলে ভাবে গাড়ি[ পার্কিং এর কারণে যানজট লেগেই থাকত। ষ্ট্যান্ডগুলো পৌরসভা অভিযান চালিয়ে সরিয়ে দেওয়ায় কুসুমবাগ পয়েন্ট যানজট মুক্ত হয়েছে। তাজুল ইসলাম নামের আরেকজন জানান, কুসুমবাগ এলাকাসহ শহরের বিভিন্ন স্থানে যদি রাস্তার উপর থেকে গাড়ির অবৈধ পার্কিং বন্ধ করা যায় তাহলে পৌর শহরে যানজট কমে আসবে।

পৌর শহরের কুসুমবাগ এলাকাকে যানজট মুক্ত রাখার জন্য ৪জন কমিশনার নিয়ে একটি সমন্বয় কমিটি গঠন করা হয়েছে পৌরসভার উদ্যোগে। এ কমিটিতে রয়েছেন ফয়সল আহমদ, আয়াছ আহমদ, মাসুদ আহমদ, জালাল উদ্দিন।

মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র মোঃ ফজলুর রহমান বলেন, শহরকে যানজট মুক্ত রাখতে হলে সবার সহযোগীতা প্রয়োজন। পৌরসভার সকল নাগরিককে শহরকে যানজট মুক্ত ও পরিচ্ছন্ন রাখতে আহবান জানান। এজন্য সকল রাজনৈতিক ও সামাজিক নেতৃবৃন্দ, পেশাজীবি, শিক্ষক, ছাত্র, সাধারণ নাগরিক সহ সাংবাদিকদের সহযোগীতা কামনা করেন।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •