রাজনগরে শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকীতে সেলাই মোশিন বিতরণ ও আলোচনা সভা

August 10, 2021, এই সংবাদটি ৩০৭ বার পঠিত

আউয়াল কালাম বেগ: সংকটে সংগ্রামে নির্ভীক সহযাত্রী” এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে নিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিণী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯১ তম জন্মবার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয় ৮ আগস্ট রবিবার।
এ উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে
সেলাই মেশিন বিতরণ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রিয়াংকা পাল। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শাহজাহান খান। এসময় মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর এর মাধ্যমে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ৭ জন নারী প্রশিক্ষণার্থীর মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি উর্মি রায়ের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শেখ ইফফাত আরা ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মিলন বক্ত, রাজনগর থানা অফিসার্স ইনচার্জ মোঃ নজরুল ইসলাম, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সাবেক কমান্ডার সজল চক্রবর্তী। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান দেওয়ান খায়রুল মজিদ ছালেখ, কামারচাক ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নজমুল হক সেলিম, ফতেহপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নকুল চন্দ্র দাস, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি মাহমুদুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আকলু মিয়া চৌধুরী, প্রেসক্লাবের সভাপতি আউয়াল কালাম বেগ, সহ সভাপতি শংকর দুলাল দেব, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ফৌজি ও সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আকমল হোসেন প্রমুখ।
এদিকে শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে সেলাই মেশিন বিতরণ ও আলোচনা সভা শেষে স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রাহমানের ৪৬ তম শাহাদাত বার্ষিকীতে জাতীয় শোক দিবস ২০২১ উদযাপন উপলক্ষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রিয়াংকা পালের সভাপতিত্বে এক প্রস্তুতি মুলক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় জাতীয় পতাকা উত্তোলনের বিষয়টি আলোচনায় উঠে আসে। বক্তারা অভিযোগ করেন রাজনগরের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বানিজ্যিক কর্মক্ষেত্রে বা বেসরকারী স্থাপনায় যথাযথ নিয়মে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয় না। আবার কোন কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে একে বারেই পতাকা উত্তোলন করেননা। বক্তাদের কথা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রিয়াংকা পাল মনোযোগ সহকারে শুনেন তিনি বলেন এখন থেকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে মানুষকে উদ্ভুদ্ধ করতে জাতীয় দিবসের আগের দিন প্রচার মাইক বের করা হবে প্রয়োজনে আইন অমান্য কারীদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •