সদর উপজেলায় পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি গ্রহীতার হার ৮০.৭২%

September 25, 2018, এই সংবাদটি ১৭০ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার॥ মৌলভীবাজার সদর উপজেলার প্রান্তিক জনগন ও কিশোর-কিশোরীদের প্রজনন স্বাস্থ্য  ও পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি সম্পর্কে সচেতন করতে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ। তারা প্রতিনিয়ত সদর উপজেলার বিভিন্ন কমিউনিটি ক্লিনিক ও ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গিয়ে সপ্তাহে তিন দিন স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করছেন। কিশোর কিশোরীদের প্রজনন স্বাস্থ্য সম্পর্কে কিভাবে সেবা প্রদান করেন সে বিষয়ে জানতে কথা হয় চাঁদনীঘাট ইউনিয়ন পরিবার কল্যান সহকারী ইতশ্রী দত্তের সাথে। তিনি বলেন কমিউনিটি কিøনিক বসে কিশোরীদের মাসিক হওয়ার সময় তাদের কে আমরা প্যাড ব্যাবহার করতে বলি। যখন মাসিক শুরু হয় সে যেন ভাল ভাবে থাকে তার  মনের ভিতরে যেন কোন ভয়ভীতি কাজ না করে। মেয়েদের মাসিকের সময় পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে ও পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে । এই বয়সে ছেলে মেয়েদের দৈহিক ও মানসিক পরিবর্তন ঘটে তাই তাদের জন্য পুষ্টিকর বা সুষম খাবার খাওয়া প্রয়োজন। কিশোর -কিশোরীদের বয়ঃসন্ধিকালে যে দৈহিক পরিবর্তন হয়  এই বিষয়ে তাদের যেমন জ্ঞান থাকে না সেজন্য পরিবারে উচিত মা বাবা ভাই বোন কে এই বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত করা।আজ যারা কিশোর কিশোরী পরবর্তী সময়ে তারাই হবে দম্পতি তাই পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি সম্পর্কে আমাদের জানা উচিত ।এ ব্যাপারে সদর উপজেলার একাটুনা ও চাঁদনীঘাট ইউনিয়নে পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক আব্দুস সালাম  মামুন জানান পরিবার পরিকল্পনার প্রচলিত পদ্ধতি, স্বল্প মেয়াদী, দীর্ঘমেয়াদী ও স্থায়ী পদ্ধতি। ইউনিয়ন পরিষদের প্রত্যেকটি ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মাসে তিনটি ক্যাম্প করে থাকেন। যার মাধ্যমে ৫ বছর মেয়াদী ইমপ্ল্যান্ট সর্ম্পকে ধারনা প্রদান করে থাকেন। স্থায়ী পদ্ধতিতে গ্রহনে পুরুষ ও নারীরা এগিয়ে আসে। তবে নারীরা বেশি এগিয়ে আসে। নারীরা খাবার বড়ি, ইনজেকশন , ইমপ্লান্ট, ও স্থায়ী পদ্ধতিতে বেশি আগ্রহী । তবে খাবার বড়ি ৪৫%  থেকে ৫০% নারীরা খেয়ে থাকেন । এচাড়াও নবদম্পতিদের তাদের ইচ্ছামত পদ্ধতি নিতে বলা হয়ে থাকে।পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি গ্রহনের হার সর্ম্পকে সদর উপজেলার পরিবার পরিকল্পনার সহকারী অফিসার আবু ছালে মোহাম্মদ জাকির রেডিও পল্লীকণ্ঠকে জানান সদর উপজেলায় মোট গ্রহীতার হার ৮০.৭২% এর মধ্যে দম্পতি রয়েছেন ৫৪,৮৪৯জন,গ্রহীতা রয়েছে ৪৪,২৭২জন। যার মধ্যে সদর উপজেলায় অস্থায়ী পদ্ধতি খাবার বড়ি গ্রহীতা ২০,৫৭০,পুরুষ কনডম ব্যাবহারকারী ৪,৫৫৯,ইনজেকশন গ্রহীতা ৬,৬৯০,আইইউডি গ্রহীতা ১,৮১৪জ,ইমপ্ল্যান্ট২,৩৪১,স্থায়ী পদ্ধতি পুরুষ৩,০৭৭,স্থায়ী পদ্ধতি মহিলা৫,২২১জন। তবে স্থায়ী পদ্ধতি গ্রহীতা লক্ষমাত্রার চেয়ে বেশি আছে ।স্থায়ী পদ্ধতি নিয়ে সদর উপজেলার মাতৃমঙ্গল ও মেরিস্টোপ্সসে নিয়মিত ক্যাম্প চলমান রয়েছে ।বর্তমানে সদর উপজেলায় পদ্ধতি গ্রহনের হার বেড়েছে । সরকারী কর্মসূচীর পাশাপাশি কিশোর কিশোরীদের প্রজনন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি সর্ম্পকে কমিউনিটি রেডিও পল্লীকণ্ঠ এফএম ৯৯.২ মৌলভীবাজার নিয়মিত উঠান বৈঠক,টকশো,ম্যাগাজিন অনষ্ঠান প্রচার করে যাচ্ছে ।

 

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •