মৌলভীবাজারে পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত

December 22, 2013, এই সংবাদটি ৫১৫ বার পঠিত

বড়কাপন সাহিত্য সংস্কৃতি যুব পরিষদের ধারাবাহিক কর্মসূচীর আওতাধীন আয়োজিত “বিভিন্ন প্রোডাক্টের পটেটো ক্রেকার্স ও ফাস্টফুডের শহরমুখী দাপটে বাঙালী ঐতিহ্যের বিলুপ্তপ্রায় পিঠা-পর্বনকে বর্তমান প্রজন্মের কাছে তুলে ধরার প্রয়াসে..” শ্লোগানকে ধারণ করে পিঠা উৎসব ১৪২০ এর পুরস্কার ও সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠান ২০ ডিসেম্বর শুক্রবার বিকেল ৩ ঘটিকায় সিলেট সড়কস্থ সংগঠনের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের সভাপতি কবি স’লিপকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক হাসান আহমেদের সঞ্চালনায় প্রধান অথিতি হিসেবে উপস্থিত থেকে “সেরা পিঠাশিল্পী ১৪২০” রাজনীন মোহাম্মদকে এপ্রোন পড়িয়ে ক্রেষ্ট ও সনদপত্র তোলে দেন সাবেক সংসদ সদস্য সৈয়দা হাসনা বেগম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ মাসুদ, ১১নং মোস্তফা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ রুমেল আহমদ, মৌলভীবাজার পাবলিক লাইব্রেরির সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক নজরুল ইসলাম মুহিব, একতা সমাজ কল্যাণ সমিতির প্রধান উপদেষ্টা শেখ তবারক হোসেন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মনসুর আলম চৌধুরী, সংগঠনের উপদেষ্টা মাওলানা হারিছ আল কাদরী, মাওলানা আব্দুল আজিজ প্রমুখ। “সেরা পিঠাশিল্পী ১৪২০” নির্বাচিত হওয়ায় অনুভূতি ব্যক্ত করেন রাজনীন মোহাম্মদ ও বিশেষ পুরস্কার প্রাপ্ত মিনারা আজমী। উল্লেখ, গত ১৩ ডিসেম্বর শুক্রবার বিকেল ৩ ঘটিকায় সিলেট সড়কস্থ সংগঠনের কার্যালয় প্রাঙ্গনে শুভ উদ্বোধন করেন ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ মাসুদ। বিশেষ অতিথি ও বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ জালাল আহমদ, ৭,৮,৯ সংরক্ষিত মহিলা আসনের কাউন্সিলর শাহিনা রহমান, ১১নং মোস্তফা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ রুমেল আহমদ। শতাধিক নারী শিশুর অংশগ্রহণ ও বিভিন্ন প্রকার পিঠা পরিবেশন করে উৎসবকে প্রানবন্ত করে তুলেন।
বড়কাপন সাহিত্য সংস্কৃতি যুব পরিষদের ধারাবাহিক কর্মসূচীর আওতাধীন আয়োজিত “বিভিন্ন প্রোডাক্টের পটেটো ক্রেকার্স ও ফাস্টফুডের শহরমুখী দাপটে বাঙালী ঐতিহ্যের বিলুপ্তপ্রায় পিঠা-পর্বনকে বর্তমান প্রজন্মের কাছে তুলে ধরার প্রয়াসে..” শ্লোগানকে ধারণ করে পিঠা উৎসব ১৪২০ এর পুরস্কার ও সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠান ২০ ডিসেম্বর শুক্রবার বিকেল ৩ ঘটিকায় সিলেট সড়কস্থ সংগঠনের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের সভাপতি কবি স’লিপকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক হাসান আহমেদের সঞ্চালনায় প্রধান অথিতি হিসেবে উপস্থিত থেকে “সেরা পিঠাশিল্পী ১৪২০” রাজনীন মোহাম্মদকে এপ্রোন পড়িয়ে ক্রেষ্ট ও সনদপত্র তোলে দেন সাবেক সংসদ সদস্য সৈয়দা হাসনা বেগম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ মাসুদ, ১১নং মোস্তফা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ রুমেল আহমদ, মৌলভীবাজার পাবলিক লাইব্রেরির সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক নজরুল ইসলাম মুহিব, একতা সমাজ কল্যাণ সমিতির প্রধান উপদেষ্টা শেখ তবারক হোসেন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মনসুর আলম চৌধুরী, সংগঠনের উপদেষ্টা মাওলানা হারিছ আল কাদরী, মাওলানা আব্দুল আজিজ প্রমুখ। “সেরা পিঠাশিল্পী ১৪২০” নির্বাচিত হওয়ায় অনুভূতি ব্যক্ত করেন রাজনীন মোহাম্মদ ও বিশেষ পুরস্কার প্রাপ্ত মিনারা আজমী। উল্লেখ, গত ১৩ ডিসেম্বর শুক্রবার বিকেল ৩ ঘটিকায় সিলেট সড়কস্থ সংগঠনের কার্যালয় প্রাঙ্গনে শুভ উদ্বোধন করেন ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ মাসুদ। বিশেষ অতিথি ও বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ জালাল আহমদ, ৭,৮,৯ সংরক্ষিত মহিলা আসনের কাউন্সিলর শাহিনা রহমান, ১১নং মোস্তফা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ রুমেল আহমদ। শতাধিক নারী শিশুর অংশগ্রহণ ও বিভিন্ন প্রকার পিঠা পরিবেশন করে উৎসবকে প্রানবন্ত করে তুলেন। স্টাফ রিপোর্টার॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •