চাতলাপুর সীমান্তে পতাকা বৈঠকে ধরে নেওয়া বাংলাদেশী ৮টি গরু ফেরৎ দিল বিএসএফ ॥ ১৫ দিনে প্রায় ২০ লক্ষ টাকার মালামাল আটক

September 19, 2013, এই সংবাদটি ৩৫৪ বার পঠিত

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার শরীফপুর ইউনিয়নের শরীফপুর ও চাতলাপুর সীমান্ত থেকে ধরে নেয়া গরু পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ফিরিয়ে এনেছে বিজিবি। এ ছাড়াও গত ১৫ দিনে জেলার বিভিন্ন সীমান্ত থেকে বিপুল সংখ্যক চোরাই মালামাল আটক করেছে ১৪ বিজিবি। ১৭ সেপ্টেম্বর বিকালে নো-ম্যান্স ল্যান্ড এলাকা থেকে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বিএসএফ বাংলাদেশী ৮টি গরু ধরে নিলে এলাকাবাসী বিজিবিকে বিষয়টি অবগত করে। বিষয়টি নিয়ে বিজিবি প্রথমে বিএসএফকে মৌখিক ভাবে জানিয়ে কোন সারা না পায়নি। পরে এ নিয়ে বুধবার সকাল ৯ টায় চাতলাপুর সীমান্তে বিজিব ও বিএসএফের কোম্পানী কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে গরুগুলো বাংলাদেশের সাধারণ কৃষকের প্রমানিত হলে বিএসএফ তা ফেরত দিতে বাদ্যহয়। শ্রীমঙ্গলস্থ ১৪ বিজিবি কার্যালয় সূত্র জানায়, ঘাস খেতে খেতে ১৭ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার বিকালে চাতলাপুর সীমান্ত এলাকায় বাংলাদেশী ৮টি গরু নো-ম্যান্স ল্যান্ডে প্রবেশ করে। ফলে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাংলাদেশী গরুগুলো ধরে ভারতে নিয়ে যায়। ১৪ বিজিবির উপ-অধিনায়ক মেজর শাহেদ মেহের জানান, এ নিয়ে বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর সকাল ৯ টায় চাতলাপুর সীমান্তে বিজিবি ও বিএসএফের কোম্পানী কমান্ডার পর্যায়ে জরুরুী পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক শেষে দুপুরের দিকে বিএসএফ সদস্যরা ধরে নেওয়া ৮টি বাংলাদেশী গরু ফেরৎ দিয়েছে। পতাকা বৈঠকে বিজিবির পক্ষে নেতৃত্ব দেন চাতলাপুর ক্যাম্প কমান্ডর হাবিলদার মোঃ মিন্টু মিয়া ও বিএসএফের পক্ষে নেতৃত্ব দেন লাটিউড়া ক্যাম্প কমান্ডার কুশল শিং। মেজর শাহেদ মেহের আরো জানান, বিজিবি জোয়ানরা এ সীমান্তে দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছে। গত ১৫ দিনে সীমান্ত দিয়ে পাচারের সময় ভারতীয় বিড়ি, ফেনসিডিল, মদসহ প্রায় ২০ লক্ষ টাকার ভারতীয় মালামাল আটক করেছে।
মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার শরীফপুর ইউনিয়নের শরীফপুর ও চাতলাপুর সীমান্ত থেকে ধরে নেয়া গরু পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ফিরিয়ে এনেছে বিজিবি। এ ছাড়াও গত ১৫ দিনে জেলার বিভিন্ন সীমান্ত থেকে বিপুল সংখ্যক চোরাই মালামাল আটক করেছে ১৪ বিজিবি। ১৭ সেপ্টেম্বর বিকালে নো-ম্যান্স ল্যান্ড এলাকা থেকে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বিএসএফ বাংলাদেশী ৮টি গরু ধরে নিলে এলাকাবাসী বিজিবিকে বিষয়টি অবগত করে। বিষয়টি নিয়ে বিজিবি প্রথমে বিএসএফকে মৌখিক ভাবে জানিয়ে কোন সারা না পায়নি। পরে এ নিয়ে বুধবার সকাল ৯ টায় চাতলাপুর সীমান্তে বিজিব ও বিএসএফের কোম্পানী কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে গরুগুলো বাংলাদেশের সাধারণ কৃষকের প্রমানিত হলে বিএসএফ তা ফেরত দিতে বাদ্যহয়। শ্রীমঙ্গলস্থ ১৪ বিজিবি কার্যালয় সূত্র জানায়, ঘাস খেতে খেতে ১৭ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার বিকালে চাতলাপুর সীমান্ত এলাকায় বাংলাদেশী ৮টি গরু নো-ম্যান্স ল্যান্ডে প্রবেশ করে। ফলে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাংলাদেশী গরুগুলো ধরে ভারতে নিয়ে যায়। ১৪ বিজিবির উপ-অধিনায়ক মেজর শাহেদ মেহের জানান, এ নিয়ে বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর সকাল ৯ টায় চাতলাপুর সীমান্তে বিজিবি ও বিএসএফের কোম্পানী কমান্ডার পর্যায়ে জরুরুী পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক শেষে দুপুরের দিকে বিএসএফ সদস্যরা ধরে নেওয়া ৮টি বাংলাদেশী গরু ফেরৎ দিয়েছে। পতাকা বৈঠকে বিজিবির পক্ষে নেতৃত্ব দেন চাতলাপুর ক্যাম্প কমান্ডর হাবিলদার মোঃ মিন্টু মিয়া ও বিএসএফের পক্ষে নেতৃত্ব দেন লাটিউড়া ক্যাম্প কমান্ডার কুশল শিং। মেজর শাহেদ মেহের আরো জানান, বিজিবি জোয়ানরা এ সীমান্তে দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছে। গত ১৫ দিনে সীমান্ত দিয়ে পাচারের সময় ভারতীয় বিড়ি, ফেনসিডিল, মদসহ প্রায় ২০ লক্ষ টাকার ভারতীয় মালামাল আটক করেছে। স্টাফ রিপোর্টার॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •