অবরোধের ৫ম দিনে মৌলভীবাজারে ২৫ টি গাড়ি ভাংচুর, সড়ক অবরোধ গ্রেপ্তার-২

December 6, 2013, এই সংবাদটি ২২৮ বার পঠিত

নির্বাচনের ঘোষিত তফসিল প্রত্যাখ্যান করে ৫ম দিনেও গাড়ি ভাংচুর, রাস্তায় ব্যারিকেটের মধ্য দিয়ে অবরোধ কমসূর্চী পালন করে মৌলভীবাজারে ১৮ দলের নেতাকর্মীরা। ৪ ডিসেম্বও বুধবার সকাল থেকে শহরের প্রতিটি গুরুত্বপূর্ন রাস্তায় বসে অবরোধ পালন করছে জামায়াত শিবিরসহ ১৮ দল। ভোর থেকেই মৌলভীবাজারের ৪টি স্পটে রাস্তা অবরোধ করে মিছিল সমাবেশ করে বিএনপি, জামায়াত, জমিয়ত, যুবদল, ছাত্রদল, ছাত্রশিবির, ছাত্রজমিয়তের নেতা কমীরা। শহরের চাঁদনীঘাট, শমসের নগর রোড, ওয়াপদা পয়েন্ট ও উপজেলা চত্বরে এসব মিছিল সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এসব স্থানে নেতৃত্ব দেন ১৮ দলীয় সংগ্রাম কমিটি মৌলভীবাজার জেলা যুগ্ন আহ্বায়ক ও মৌলভীবাজার জেলা জামায়াত আমীর আব্দুল মান্নান, বিএনপির প্রথম যুগ্ন সম্পাদক ও মৌলভীবাজার জেলা সংগ্রাম কমিটির আব্দুল মুকিত, জেলা জামায়াত সেক্রেটারী ইঞ্জিনিয়ার সাহেদ আলী, জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি আলহাজ্ব ইউসুফ আলী, সদর থানা বিএনপির আহ্বায়ক মৌলভী আব্দুল ওয়ালী সিদ্দিকী, জামায়াতের পৌর আমীর ইয়ামীর আলী, পৌর বিএনপির আহ্বায়ক এড আনোয়ার আক্তার শিউলী, সদর উপজেলা আমীর আলাউদ্দিন শাহ, সদর থানা বিএনপির যুগ্ন আহ্বায়ক মোঃ ফখরুল ইসলাম, জেলা জমিয়তের সহ-সাধারন সম্পাদক শাহ মাসুকুর রশীদ, ছাত্রদল নেতা আলী ছব্দর খান বাবর, কামাল আহমদ, পিপলু আহমদ, ছাত্রশিবির মৌলভীবাজার শহর সভাপতি হাফেজ তাজুল ইসলাম, জেলা সভাপতি দেলোওয়ার হোসেন, ছাত্রজমিয়ত জেলা সভাপতি জিল্লুর রহমান, যুবদল নেতা মুজিবুর রহমান মজনু, হেলু মিয়া, মতিন বক্স, মুক্তার হোসেন, আনসার মিয়া, মোবারক আহমদ প্রমুখ। অরোধের কারনে পরীক্ষার্থীসহ সাধারন মানুষ চরম র্দূভোগে পড়ে। দুরপাল্লার বাস চলাচল না করলেও রেল ও ছোট ছোট যানবাহন চলাচল করছে। শহরে নাশকতা এড়াতে র‌্যাব ও পুলিশের টহল জোরধার করা হয়েছে। অপরদিকে রাজনগর উপজেলায় মঙ্গলবার (০৩ ডিসেম্বর) রাত থেকে বুধবার (০৪ ডিসেম্বর) বিকাল ৫টা পর্যন্ত ১০টি গাড়ি ভাংচুর করেছে অবরোধকারীরা। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৭টায় রাজনগর উপজেলার মৌলভীবাজার-ফেঞ্চুগঞ্জ সড়কের চৌধুরীবাজারে ১টি ট্রাক ও ২টি অটোরিক্সায় ভাংচুর করে। অপরদিকে বুধবার সকাল ৭টায় মৌলভীবাজার-শ্রীমঙ্গল সড়কের মোকামবাজারে ২ টি ট্রাক ও ১টি অটোরিক্সা এবং মৌলভীবাজার-সিলেট সড়কে ১টি পিকআপ ও ১টি অটোরিক্সা ভাংচুর করা হয়। মঙ্গলবার রাতে ১৮ দলের বিক্ষোভ মিছিল থেকে ফেরার সময় পৌর ছাত্রদলের পাপলু আহমদ(২৪) ও পারভেজ আহমদ(২৫) নামের ২ ছাত্রদল কর্মীকে আটক করে মডেল থানা পুলিশ। বুধবার দুপুরে তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়। তবে শ্রীমঙ্গলে দুপুর ১টায় মতিগঞ্জ এলাকায় ৫টি সিএনজি ভাংচুর করে বিএনপির কর্মীরা। এছাড়া জেলা ৬টি উপজেলায় শান্তিপূর্ন অবরোধ পালনের খবর পাওয়া গেছে।
নির্বাচনের ঘোষিত তফসিল প্রত্যাখ্যান করে ৫ম দিনেও গাড়ি ভাংচুর, রাস্তায় ব্যারিকেটের মধ্য দিয়ে অবরোধ কমসূর্চী পালন করে মৌলভীবাজারে ১৮ দলের নেতাকর্মীরা। ৪ ডিসেম্বও বুধবার সকাল থেকে শহরের প্রতিটি গুরুত্বপূর্ন রাস্তায় বসে অবরোধ পালন করছে জামায়াত শিবিরসহ ১৮ দল। ভোর থেকেই মৌলভীবাজারের ৪টি স্পটে রাস্তা অবরোধ করে মিছিল সমাবেশ করে বিএনপি, জামায়াত, জমিয়ত, যুবদল, ছাত্রদল, ছাত্রশিবির, ছাত্রজমিয়তের নেতা কমীরা। শহরের চাঁদনীঘাট, শমসের নগর রোড, ওয়াপদা পয়েন্ট ও উপজেলা চত্বরে এসব মিছিল সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এসব স্থানে নেতৃত্ব দেন ১৮ দলীয় সংগ্রাম কমিটি মৌলভীবাজার জেলা যুগ্ন আহ্বায়ক ও মৌলভীবাজার জেলা জামায়াত আমীর আব্দুল মান্নান, বিএনপির প্রথম যুগ্ন সম্পাদক ও মৌলভীবাজার জেলা সংগ্রাম কমিটির আব্দুল মুকিত, জেলা জামায়াত সেক্রেটারী ইঞ্জিনিয়ার সাহেদ আলী, জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি আলহাজ্ব ইউসুফ আলী, সদর থানা বিএনপির আহ্বায়ক মৌলভী আব্দুল ওয়ালী সিদ্দিকী, জামায়াতের পৌর আমীর ইয়ামীর আলী, পৌর বিএনপির আহ্বায়ক এড আনোয়ার আক্তার শিউলী, সদর উপজেলা আমীর আলাউদ্দিন শাহ, সদর থানা বিএনপির যুগ্ন আহ্বায়ক মোঃ ফখরুল ইসলাম, জেলা জমিয়তের সহ-সাধারন সম্পাদক শাহ মাসুকুর রশীদ, ছাত্রদল নেতা আলী ছব্দর খান বাবর, কামাল আহমদ, পিপলু আহমদ, ছাত্রশিবির মৌলভীবাজার শহর সভাপতি হাফেজ তাজুল ইসলাম, জেলা সভাপতি দেলোওয়ার হোসেন, ছাত্রজমিয়ত জেলা সভাপতি জিল্লুর রহমান, যুবদল নেতা মুজিবুর রহমান মজনু, হেলু মিয়া, মতিন বক্স, মুক্তার হোসেন, আনসার মিয়া, মোবারক আহমদ প্রমুখ। অরোধের কারনে পরীক্ষার্থীসহ সাধারন মানুষ চরম র্দূভোগে পড়ে। দুরপাল্লার বাস চলাচল না করলেও রেল ও ছোট ছোট যানবাহন চলাচল করছে। শহরে নাশকতা এড়াতে র‌্যাব ও পুলিশের টহল জোরধার করা হয়েছে। অপরদিকে রাজনগর উপজেলায় মঙ্গলবার (০৩ ডিসেম্বর) রাত থেকে বুধবার (০৪ ডিসেম্বর) বিকাল ৫টা পর্যন্ত ১০টি গাড়ি ভাংচুর করেছে অবরোধকারীরা। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৭টায় রাজনগর উপজেলার মৌলভীবাজার-ফেঞ্চুগঞ্জ সড়কের চৌধুরীবাজারে ১টি ট্রাক ও ২টি অটোরিক্সায় ভাংচুর করে। অপরদিকে বুধবার সকাল ৭টায় মৌলভীবাজার-শ্রীমঙ্গল সড়কের মোকামবাজারে ২ টি ট্রাক ও ১টি অটোরিক্সা এবং মৌলভীবাজার-সিলেট সড়কে ১টি পিকআপ ও ১টি অটোরিক্সা ভাংচুর করা হয়। মঙ্গলবার রাতে ১৮ দলের বিক্ষোভ মিছিল থেকে ফেরার সময় পৌর ছাত্রদলের পাপলু আহমদ(২৪) ও পারভেজ আহমদ(২৫) নামের ২ ছাত্রদল কর্মীকে আটক করে মডেল থানা পুলিশ। বুধবার দুপুরে তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়। তবে শ্রীমঙ্গলে দুপুর ১টায় মতিগঞ্জ এলাকায় ৫টি সিএনজি ভাংচুর করে বিএনপির কর্মীরা। এছাড়া জেলা ৬টি উপজেলায় শান্তিপূর্ন অবরোধ পালনের খবর পাওয়া গেছে। স্টাফ রিপোর্টার॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •