মনু নদীতে অনুষ্ঠিত নৌকা বাইচের পুরস্কার বিতরণে অনিয়ম : নৌকা দৌড়ের ভিডিও ফুটেজ প্রদর্শন

September 3, 2013, এই সংবাদটি ১৭৬ বার পঠিত

মৌলভীবাজারের মনু নদীতে গত ২৪ আগষ্ট অনুষ্ঠিত ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতায় বড়গাঁওয়ের শাহ্ মোস্তফা নামীয় নৌকা প্রথম স্থান অধিকার করলেও তাকে রহস্য জনক কারনে দ্বিতীয় স্থান নির্ধারণ করায় অভিযোগ করেছেন অংশ গ্রহনকারী নৌকার মালিক প্রবাসী কায়েসুল ইসলাম কাবুল। তিনি জানান প্রতিযোগীতায় তার নৌকা প্রথম স্থান অধিকার করে, ফলাফল ঘোষনার সময় দ্বিতীয় স্থান অধিকারী অন্তেহরির নৌকাকে প্রথম পুরষ্কার দেওয়া হয়। এ সময় তাকে ২য় পুরস্কার নেয়ার আহবান করলে অনুষ্ঠান স্থলে প্রতিবাদ করেন। কিন্তু এ প্রতিবাদের কর্ণপাত করেননি মৌলভীবাজার জেলা ক্রিড়া সংস্থার কর্মকর্তারা। গত ২ সেপ্টেম্বও মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন রাজনগর উপজেলার বড়গাঁওয় গ্রামের মৃত হাজী আব্দুর রউফ এর পুত্র কায়েসুল ইসলাম কাবুল। এর পর তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রতিযোগীতার সমাপ্ত সীমা রেখার নৌকা বাইচের ভিডিও ফুটেজ প্রদর্শন করেন। কাবুল আরো জানান তার নৌকাসহ ছয়টি নৌকা অংশ গ্রহণ করে। দুই গ্রুফে বিভক্ত হয়ে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। জগন্নাথপুরের নৌকা, উলুয়াইলের নৌকা ও বেটির নৌকা নিয়ে প্রথম দৌড় অনুষ্ঠিত হয়। এতে জগন্নাথপুরের নৌকা প্রথম হয়ে সরাসরি ফাইনেলে চলে যায়। বড়গাঁও, অন্তেহরি, বেলকুড়ির নৌকা নিয়ে দ্বিতীয় দৌড় অনুষ্ঠিত হয়। এতে বড়গাঁওয়ের নৌকা প্রথম হয়ে ফাইনেলে উত্তীর্ণ হয়। অন্তেহরির নৌকা এতে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে। অন্তেহরি, উলুয়াইল ও বেলকুড়ির নৌকা নিয়ে তৃতীয় দৌড় অনুষ্ঠিত হয়। এতে অন্তেহরি প্রথম হয়ে ফাইনেলে উত্তীর্ণ হয়। বড়গাঁও, অন্তেহরি ও জগন্নাথপুরের নৌকা ফাইনেলে অংশ নেয়। এতে তার বড়গাঁওয়ের শাহ্ মোস্তফা নামীয় নৌকা প্রথম স্থান অধিকার করে। ফিনিশিং পয়েন্টে অবস্থানরত জেলা ক্রিড়া সংস্থার কর্মকর্তা আলতাফ হোসেন ও গিয়াস মিয়া আমাদের নৌকাকে প্রথম বলে ঘোষনা করেন। ভিডিও ফুটেজেও তার নৌকা প্রথম হয়েছে বলে প্রমান আছে। কিন্তু রহস্যজনক কারণে প্রথম রাউন্ডে তার নৌকার সাথে দ্বিতীয় স্থান অধিকারী অন্তেহরির নৌকাকে প্রথম পুরষ্কার দেওয়া হয়েছে। প্রতিবাদে তিনি দ্বিতীয় স্থান অধিকারীর পুরষ্কার গ্রহণ করিনি। উক্ত বিষয়ে তদন্ত পূর্বক তাকে প্রথম পুরষ্কার দেওয়ার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জেলা ক্রীড়া সংস্থা সহ সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।
মৌলভীবাজারের মনু নদীতে গত ২৪ আগষ্ট অনুষ্ঠিত ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতায় বড়গাঁওয়ের শাহ্ মোস্তফা নামীয় নৌকা প্রথম স্থান অধিকার করলেও তাকে রহস্য জনক কারনে দ্বিতীয় স্থান নির্ধারণ করায় অভিযোগ করেছেন অংশ গ্রহনকারী নৌকার মালিক প্রবাসী কায়েসুল ইসলাম কাবুল। তিনি জানান প্রতিযোগীতায় তার নৌকা প্রথম স্থান অধিকার করে, ফলাফল ঘোষনার সময় দ্বিতীয় স্থান অধিকারী অন্তেহরির নৌকাকে প্রথম পুরষ্কার দেওয়া হয়। এ সময় তাকে ২য় পুরস্কার নেয়ার আহবান করলে অনুষ্ঠান স্থলে প্রতিবাদ করেন। কিন্তু এ প্রতিবাদের কর্ণপাত করেননি মৌলভীবাজার জেলা ক্রিড়া সংস্থার কর্মকর্তারা। গত ২ সেপ্টেম্বও মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন রাজনগর উপজেলার বড়গাঁওয় গ্রামের মৃত হাজী আব্দুর রউফ এর পুত্র কায়েসুল ইসলাম কাবুল। এর পর তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রতিযোগীতার সমাপ্ত সীমা রেখার নৌকা বাইচের ভিডিও ফুটেজ প্রদর্শন করেন। কাবুল আরো জানান তার নৌকাসহ ছয়টি নৌকা অংশ গ্রহণ করে। দুই গ্রুফে বিভক্ত হয়ে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। জগন্নাথপুরের নৌকা, উলুয়াইলের নৌকা ও বেটির নৌকা নিয়ে প্রথম দৌড় অনুষ্ঠিত হয়। এতে জগন্নাথপুরের নৌকা প্রথম হয়ে সরাসরি ফাইনেলে চলে যায়। বড়গাঁও, অন্তেহরি, বেলকুড়ির নৌকা নিয়ে দ্বিতীয় দৌড় অনুষ্ঠিত হয়। এতে বড়গাঁওয়ের নৌকা প্রথম হয়ে ফাইনেলে উত্তীর্ণ হয়। অন্তেহরির নৌকা এতে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে। অন্তেহরি, উলুয়াইল ও বেলকুড়ির নৌকা নিয়ে তৃতীয় দৌড় অনুষ্ঠিত হয়। এতে অন্তেহরি প্রথম হয়ে ফাইনেলে উত্তীর্ণ হয়। বড়গাঁও, অন্তেহরি ও জগন্নাথপুরের নৌকা ফাইনেলে অংশ নেয়। এতে তার বড়গাঁওয়ের শাহ্ মোস্তফা নামীয় নৌকা প্রথম স্থান অধিকার করে। ফিনিশিং পয়েন্টে অবস্থানরত জেলা ক্রিড়া সংস্থার কর্মকর্তা আলতাফ হোসেন ও গিয়াস মিয়া আমাদের নৌকাকে প্রথম বলে ঘোষনা করেন। ভিডিও ফুটেজেও তার নৌকা প্রথম হয়েছে বলে প্রমান আছে। কিন্তু রহস্যজনক কারণে প্রথম রাউন্ডে তার নৌকার সাথে দ্বিতীয় স্থান অধিকারী অন্তেহরির নৌকাকে প্রথম পুরষ্কার দেওয়া হয়েছে। প্রতিবাদে তিনি দ্বিতীয় স্থান অধিকারীর পুরষ্কার গ্রহণ করিনি। উক্ত বিষয়ে তদন্ত পূর্বক তাকে প্রথম পুরষ্কার দেওয়ার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জেলা ক্রীড়া সংস্থা সহ সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। স্টাফ রিপোর্টার॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •