মহান বিজয় দিবসে আপন নিবাসে ফিরে গেল বেশ কিছু পশুপাখি

December 17, 2013, এই সংবাদটি ২৬৭ বার পঠিত

মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আপন নিবাসে ফিরে গেল বেশ কিছু পশুপাখি। ১৬ ডিসেম্বর সোমবার দুপুরে মৌলভীবাজারে অবস্থিত লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলস্থ বণ্যাপ্রাণি সেবা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এ অবমুক্ত অনুষ্টানে উপস্থিত ছিলেন বিজিবি শ্রীমঙ্গল সেক্টর কমান্ডর কর্ণেল আবু সালেহ মোহাম্মদ গোলাম আম্বিয়া, বিজিবি ৫৫ ব্যাটালিয়ানের সিও লে. কর্ণেল কাজী আরমান হোসেন. ১৪ ব্যাটালিয়ানের সিও লে. কর্ণেল চৌধুরী সাইফুদ্দিন কাউসার, মেজর মাজেদ. মেজর ছায়েদ মেহের, বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মাহবুর রহমান, বণ্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সিতেশ রঞ্জন দেব, শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাব সভাপতি গোপাল দেব চৌধুরী, রেঞ্জার মো. মর্তজা আলী,ফাউন্ডেশনের পরিচালক সজল দেব প্রমুখ। অবমুক্তকৃত পশুপাখির মধ্যে রয়েছে লজ্ঝাবতি বানর, মেছোবাঘ, তক্কক, অজাগর সাপ, রয়েল স্নাইপ, গন্ধবকুল ও বিভিন্ন জাতের পাখি। সিতেশ রঞ্জন দেব জানান, এ প্রাণিগুলো বিভিন্ন এলাকা থেকে আটক ও আহত অবন্থায় উদ্ধার করে সেবাযতœ দিয়ে সুস্থ্য করে তুলে অবমুক্ত করা হয়।
মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আপন নিবাসে ফিরে গেল বেশ কিছু পশুপাখি। ১৬ ডিসেম্বর সোমবার দুপুরে মৌলভীবাজারে অবস্থিত লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলস্থ বণ্যাপ্রাণি সেবা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এ অবমুক্ত অনুষ্টানে উপস্থিত ছিলেন বিজিবি শ্রীমঙ্গল সেক্টর কমান্ডর কর্ণেল আবু সালেহ মোহাম্মদ গোলাম আম্বিয়া, বিজিবি ৫৫ ব্যাটালিয়ানের সিও লে. কর্ণেল কাজী আরমান হোসেন. ১৪ ব্যাটালিয়ানের সিও লে. কর্ণেল চৌধুরী সাইফুদ্দিন কাউসার, মেজর মাজেদ. মেজর ছায়েদ মেহের, বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মাহবুর রহমান, বণ্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সিতেশ রঞ্জন দেব, শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাব সভাপতি গোপাল দেব চৌধুরী, রেঞ্জার মো. মর্তজা আলী,ফাউন্ডেশনের পরিচালক সজল দেব প্রমুখ। অবমুক্তকৃত পশুপাখির মধ্যে রয়েছে লজ্ঝাবতি বানর, মেছোবাঘ, তক্কক, অজাগর সাপ, রয়েল স্নাইপ, গন্ধবকুল ও বিভিন্ন জাতের পাখি। সিতেশ রঞ্জন দেব জানান, এ প্রাণিগুলো বিভিন্ন এলাকা থেকে আটক ও আহত অবন্থায় উদ্ধার করে সেবাযতœ দিয়ে সুস্থ্য করে তুলে অবমুক্ত করা হয়। শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •