যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের অঙ্গিকার নিয়ে মন্ত্রী পরিষদ শপথ নিয়েছে- শ্রীমঙ্গলের জনসভায় সমাজকল্যান মন্ত্রী- মহসীন আলী

January 21, 2014, এই সংবাদটি ১১১ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার॥ সমাজ কল্যাণ মন্ত্রী সৈয়দ মহসীন আলী বলেছেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের অঙ্গিকার নিয়ে বর্তমান মন্ত্রী পরিষদ  শপথ গ্রহন করেছে। তাই কোন যুদ্ধাপরাধী এ দেশে থাকতে পারবেনা। তাদেরকে বিচারের আওতায় এনে সাজা দেয়া হবে।

২১ জানুয়ারী মঙ্গলবার বিকেলে নিজ জেলা মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার চৌমুহনায় এক সংবর্ধনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। মৌলভীবাজার সদর আসনের এমপি সৈয়দ মহসীন আলী মন্ত্রী হওয়ার পর এই প্রথম আসেন নিজ এলাকায়।

সংবর্ধনা সভায় সমাজকলাণ মন্ত্রী বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার উদ্দেশ্যে বলেন,‘আপোষহীন’ না থেকে জামায়াতের সঙ্গ ত্যাগ করে আলোচনার মধ্যদিয়ে সংকট নিরশনের আহব্বান করেন। হরতাল-অবরোধের মত জনবিরোধী কর্মসূচি দিয়ে বিএনপির জনপ্রিয়তা কমে মাত্র ৫ ভাগে এসেছে। দেশের অর্থনীতির চাকা ঘুতে হলে গাড়ীর চাকা ঘুরতে হবে। জনগন আর এই হরতাল অবরোধ মানে না। দেশে কোনও প্রকার হানা হানি মারামারি আর চলতে দেওয়া হবে না। ব্যবসায়িদের দোকানপাঠ খুলবে,গাড়ীর চাকা ঘুরতে হবে।

তিনি চা শ্রমিকদের উদ্দ্যেশে বলেন এক সাপ্তাহের মধ্যে চা শ্রমিকদের সমস্যা সমাধান করা হবে। প্রধান মন্ত্রীর ত্রান তহবিল থেকে প্রতি চা বাগানে একটি করে ডিপ টিবওয়েল ও স্যানেটারী ল্যাট্রিন প্রদান করা হবে।

তিনি শ্রীমঙ্গল বাসীর উদ্দ্যেশে বলেন শ্রীমঙ্গল শিশির বাড়ী ও সিন্দুর খান, মির্জাপুর,কালাপুর, ভৈরব বাজার এলাকার তৃণমূল পর্যায়ে মানুষের সাথে আমার গভীর সর্ম্পক রয়েছে।

মন্ত্রী হওয়ার পর প্রথম নিজ এলাকায় আসলে হাজার হাজার মানুষ রাস্তার দু-পাশে দাড়িয়ে হাত নাড়িয়ে শুভেচ্ছা জানায় তাকে। আগমন উপলক্ষে সমর্থকরা জেলা সদরে প্রায় শতাধীক তোরন এবং শ্রীমঙ্গল থেকে মৌলভীবাজার পর্যন্ত ফেস্টুন টাঙ্গানো হয়।

শ্রীমঙ্গল পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের ত্রান ও পূর্নবাসন সম্পাদক এমএ রহিম এর সভাপতিত্বে ও জেলা আওয়ামীলীগের উপ-প্রচার সম্পাদক আবু শহীদ আব্দুলাহ এর পরিচালনায়  এতে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি মোঃ ফিরোজ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যবসায়ী মোঃ ইউছুফ আলী, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রনধীর কুমার দেব, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বাবুল, মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এস এম উমেদ আলী, মৌলভীবাজার থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সভাপতি মসুদ আহমদ, সাধারণ সম্পাদক আনকার আহমদ,  কালিঘাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও চা শ্রমিক নেতা পরাগ বাড়ই, শ্রীমঙ্গল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আফজল মিয়া, চা শ্রমিক নেতা, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মাহমুদুল হাসান (মামুন), প্রথম আলো কমলগঞ্জ প্রতিনিধি মুজিবুর রহমান রঞ্জু,সাবেক যুবলীগ নেতা শাহীন মিয়া, সাবেক যুবলীগ বেলাল আহমদ, বিজয় হাজরা প্রমূখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার জেলা প্রসিকিউটর এস এম আজাদুর রহমান, শ্রীমঙ্গল থানা মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেত্রী আনোয়ারা বেগম, রাজনগর থানা মুক্তিযোদ্ধার কমান্ডার সজল কুমার ছত্রী। সর্ম্বধনা সভায় জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও শ্রীমঙ্গল উপজেলার পাঁচসহস্্রাধিক নেতাকর্মী ও সমর্থক উপস্থিত ছিলেন।

সর্ম্বধনা শেষে সমাজ কল্যাণ মন্ত্রী নিজ কন্ঠে দেশাবোত্বক গান এক সাগর রত্তের বিনিময়ে বাংলার স্বাধীনতা আনলো যারা , আমরা সবাই তারেকে ভূলবো না ” পরিবেশন করেন।

পরে সন্ধ্যায় তিনি হযরত সৈয়দ শাহ মোস্তাফ (রহ:) মাজার জিয়ারত ও মা-বাবার কবর জিয়ারত শেষে মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে শহীদের স্বরণে স্মৃতিস্তবে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

 

স্টাফ রিপোর্টার॥ সমাজ কল্যাণ মন্ত্রী সৈয়দ মহসীন আলী বলেছেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের অঙ্গিকার নিয়ে বর্তমান মন্ত্রী পরিষদ  শপথ গ্রহন করেছে। তাই কোন যুদ্ধাপরাধী এ দেশে থাকতে পারবেনা। তাদেরকে বিচারের আওতায় এনে সাজা দেয়া হবে।

২১ জানুয়ারী মঙ্গলবার বিকেলে নিজ জেলা মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার চৌমুহনায় এক সংবর্ধনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। মৌলভীবাজার সদর আসনের এমপি সৈয়দ মহসীন আলী মন্ত্রী হওয়ার পর এই প্রথম আসেন নিজ এলাকায়।

সংবর্ধনা সভায় সমাজকলাণ মন্ত্রী বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার উদ্দেশ্যে বলেন,‘আপোষহীন’ না থেকে জামায়াতের সঙ্গ ত্যাগ করে আলোচনার মধ্যদিয়ে সংকট নিরশনের আহব্বান করেন। হরতাল-অবরোধের মত জনবিরোধী কর্মসূচি দিয়ে বিএনপির জনপ্রিয়তা কমে মাত্র ৫ ভাগে এসেছে। দেশের অর্থনীতির চাকা ঘুতে হলে গাড়ীর চাকা ঘুরতে হবে। জনগন আর এই হরতাল অবরোধ মানে না। দেশে কোনও প্রকার হানা হানি মারামারি আর চলতে দেওয়া হবে না। ব্যবসায়িদের দোকানপাঠ খুলবে,গাড়ীর চাকা ঘুরতে হবে।

তিনি চা শ্রমিকদের উদ্দ্যেশে বলেন এক সাপ্তাহের মধ্যে চা শ্রমিকদের সমস্যা সমাধান করা হবে। প্রধান মন্ত্রীর ত্রান তহবিল থেকে প্রতি চা বাগানে একটি করে ডিপ টিবওয়েল ও স্যানেটারী ল্যাট্রিন প্রদান করা হবে।

তিনি শ্রীমঙ্গল বাসীর উদ্দ্যেশে বলেন শ্রীমঙ্গল শিশির বাড়ী ও সিন্দুর খান, মির্জাপুর,কালাপুর, ভৈরব বাজার এলাকার তৃণমূল পর্যায়ে মানুষের সাথে আমার গভীর সর্ম্পক রয়েছে।

মন্ত্রী হওয়ার পর প্রথম নিজ এলাকায় আসলে হাজার হাজার মানুষ রাস্তার দু-পাশে দাড়িয়ে হাত নাড়িয়ে শুভেচ্ছা জানায় তাকে। আগমন উপলক্ষে সমর্থকরা জেলা সদরে প্রায় শতাধীক তোরন এবং শ্রীমঙ্গল থেকে মৌলভীবাজার পর্যন্ত ফেস্টুন টাঙ্গানো হয়।

শ্রীমঙ্গল পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের ত্রান ও পূর্নবাসন সম্পাদক এমএ রহিম এর সভাপতিত্বে ও জেলা আওয়ামীলীগের উপ-প্রচার সম্পাদক আবু শহীদ আব্দুলাহ এর পরিচালনায়  এতে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি মোঃ ফিরোজ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যবসায়ী মোঃ ইউছুফ আলী, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রনধীর কুমার দেব, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বাবুল, মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এস এম উমেদ আলী, মৌলভীবাজার থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সভাপতি মসুদ আহমদ, সাধারণ সম্পাদক আনকার আহমদ,  কালিঘাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও চা শ্রমিক নেতা পরাগ বাড়ই, শ্রীমঙ্গল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আফজল মিয়া, চা শ্রমিক নেতা, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মাহমুদুল হাসান (মামুন), প্রথম আলো কমলগঞ্জ প্রতিনিধি মুজিবুর রহমান রঞ্জু,সাবেক যুবলীগ নেতা শাহীন মিয়া, সাবেক যুবলীগ বেলাল আহমদ, বিজয় হাজরা প্রমূখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার জেলা প্রসিকিউটর এস এম আজাদুর রহমান, শ্রীমঙ্গল থানা মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেত্রী আনোয়ারা বেগম, রাজনগর থানা মুক্তিযোদ্ধার কমান্ডার সজল কুমার ছত্রী। সর্ম্বধনা সভায় জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও শ্রীমঙ্গল উপজেলার পাঁচসহস্্রাধিক নেতাকর্মী ও সমর্থক উপস্থিত ছিলেন।

সর্ম্বধনা শেষে সমাজ কল্যাণ মন্ত্রী নিজ কন্ঠে দেশাবোত্বক গান এক সাগর রত্তের বিনিময়ে বাংলার স্বাধীনতা আনলো যারা , আমরা সবাই তারেকে ভূলবো না ” পরিবেশন করেন।

পরে সন্ধ্যায় তিনি হযরত সৈয়দ শাহ মোস্তাফ (রহ:) মাজার জিয়ারত ও মা-বাবার কবর জিয়ারত শেষে মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে শহীদের স্বরণে স্মৃতিস্তবে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

 

 à¦¸à§à¦Ÿà¦¾à¦« রিপোর্টার॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •