জুড়ীতে হাড়কাঁপানো শীতে জনজীবন বিপর্যস্ত

January 2, 2014, এই সংবাদটি ২৪৮ বার পঠিত

মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার সর্বত্র গত রোববার থেকে হাড়কাঁপানো শীত ও ঘন কুয়াশার কারণে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। প্রচন্ড শীতে দিন মজুরেরা কাজে যেতে পারছেনা। ঘন কুয়াশার কারণে রাস্তায় হেড লাইট জ্বালিয়ে যানবাহন চলাচল করতে দেখা গেছে। গত চারদিন দুপুরের পর কিছু সময়ের জন্য সূর্যের আলো দেখা গেছে। হাড়কাঁপানো শীতে ছিন্নমূল ও অভাবী মানুষেরা বস্ত্রের অভাবে দূর্ভোগ পোহাচ্ছেন। অত্রাঞ্চলের অভাবী মানুষেরা সন্ধ্যা নামার সাথে সাথে বাড়ীর আঙ্গীনায় খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন। শীতের তীব্রতা দিন দিন ভাড়ার সাথে গরম কাপড় কিনতে জুড়ী শহরের বিভিন্ন মার্কেট কিংবা ফুটপাতে ভীড় জমাচ্ছেন ভুক্তভোগীরা। তবে ছিন্নমূল ও অভাবী মানুষেরা টাকার অভাবে গরম কাপড় কিনতে পারছেন না। প্রচ- শীতের কারণে উপজেলার সর্বত্র সর্দি, কাঁশি, নিউমেনিয়া ও শ্বাসকষ্ট রোগীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এখন পর্যন্ত সরকারি কিংবা বেসরকারিভাবে গরীবদের মধ্যে শীতবস্ত্র প্রদান করেন নি।
মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার সর্বত্র গত রোববার থেকে হাড়কাঁপানো শীত ও ঘন কুয়াশার কারণে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। প্রচন্ড শীতে দিন মজুরেরা কাজে যেতে পারছেনা। ঘন কুয়াশার কারণে রাস্তায় হেড লাইট জ্বালিয়ে যানবাহন চলাচল করতে দেখা গেছে। গত চারদিন দুপুরের পর কিছু সময়ের জন্য সূর্যের আলো দেখা গেছে। হাড়কাঁপানো শীতে ছিন্নমূল ও অভাবী মানুষেরা বস্ত্রের অভাবে দূর্ভোগ পোহাচ্ছেন। অত্রাঞ্চলের অভাবী মানুষেরা সন্ধ্যা নামার সাথে সাথে বাড়ীর আঙ্গীনায় খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন। শীতের তীব্রতা দিন দিন ভাড়ার সাথে গরম কাপড় কিনতে জুড়ী শহরের বিভিন্ন মার্কেট কিংবা ফুটপাতে ভীড় জমাচ্ছেন ভুক্তভোগীরা। তবে ছিন্নমূল ও অভাবী মানুষেরা টাকার অভাবে গরম কাপড় কিনতে পারছেন না। প্রচ- শীতের কারণে উপজেলার সর্বত্র সর্দি, কাঁশি, নিউমেনিয়া ও শ্বাসকষ্ট রোগীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এখন পর্যন্ত সরকারি কিংবা বেসরকারিভাবে গরীবদের মধ্যে শীতবস্ত্র প্রদান করেন নি। à¦•à§à¦²à¦¾à¦‰à§œà¦¾ অফিস॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •