অভিযান চলছে দোকানপাট বন্ধ,বাড়তি সতর্কতা : উদ্বেগ উৎকন্ঠায় পুরো জেলা

April 2, 2017,

ইমাদ উদ দীন॥ হঠাৎ শান্ত শহরটি অশান্ত। জেলা শহরে দু’টি জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের খবরে উদ্বেগ উৎকন্ঠায় প্রবাসী অধ্যুষিত এ জেলার লোকজন। বেলা বাড়ার সাথে গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ দেখে প্রবাসীরা যোগাযোগ করতে থাকেন তাদের আতœীয় স্বজনদের সাথে। জঙ্গি আস্তানার একটি বাড়ি সদর উপজেলার খলিলপুর ইউনিয়নের ফতেহপুর। অন্যটি পৌর শহরের বড়হাট এলাকায়। একটি বাড়ি থেকে অন্যটির দুরত্ব প্রায় ২০ কিলোমিটার। গভীর রাত থেকেই প্রশাসনের প্রস্তুতি। কোন বড় ধরনের অভিযানের হবে এমনটিই কিছুটা টের পাচ্ছিল নগর বাসী। তাই রাত থেকে তাদের কৌতুহলের শেষ নেই। শেষ রাতেই জানা গেল অভিযানের নির্দিষ্ট বাড়ি। ভোর থেকে শহরের বড়হাটের জঙ্গি আস্তানার ওই বাড়ির দিকে চোখ পৌরবাসীর। ওই এলাকার আশপাশের চা দোকানীরা প্রতিদিনের মত তাদের দোকানের কাজ শুরু করতে গেলেই টের পান চুলায় গ্যাস নেই। বিদ্যুৎ নেই। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজন তাদেরকে দোকান খোলতে বারন করছেন। কিছু সময়ের ভেতরে পুরো শহর জুড়ে শুরু হয় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর বাড়তি নজরদারী। শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট ও প্রবেশ দ্বার গুলোতে মোতায়ন করা হয় অতিরিক্ত র‌্যাব ও পুলিশ। সন্দেহ হলে চালানো হচ্ছে তল্লাশি। শহরের ঢাকা সিলেট সড়কের দু’পাশের দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গুলো বন্ধ রয়েছে। ঘুম থেকে উঠে কিছু টের পাওয়ার আগেই বড়হাট এলাকার লোকজন দেখতে পান তাদের বাসার আশপাশে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজন। মাইকে ঘোষণা হচ্ছে বাসার লোকজন যেন নিরাপদে বাসার ভিতরে অবস্থান করেন। বারন করা হয় বাসার ছাদে না ওঠতে। স্কুল কলেজ গামী শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত হলেও তারা বাসা থেকে বের হতে পারেন নি। সিলেটের পরপরই মৌলভীবাজারে ও জঙ্গি আস্থানায় অভিযান হচ্ছে এমন খবর গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চাউর হলে জেলার সাত উপজেলারই মানুষের মধ্যে দেখা উদ্বেগ উৎকন্ঠা। উৎসুক জনতা অভিযান দেখতে ভিড় করলেও বাড়িটির আশপাশে যেতে আইন শৃঙ্খলাবাহীর সদস্যদের বাঁধার মুখে পড়ছেন। শহরের মনুনদী তীরবর্তী বড়হাট আবু শাহ (র:) দাখিল মাদ্রাসা সংলগ্ন ৩ তলার ওই বাড়িটির কয়েক কিলোমিটার এলাকা নিরাপত্তা জনিত কারণে পুলিশ,র‌্যাব ও গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন ঘিরে রেখেছে। সেখানে আইনশৃঙ্খলা বাহীনির সদস্য ছাড়া অন্য কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছেনা। মিডিয়া কর্মীরা ওই গলির ভিতরে প্রবেশ করতে না পারায় তারা গলির মুখে প্রধান সড়কেই অবস্থান নিয়ে খোঁজ খবর নিচ্ছেন। স্থানীয় সুত্রে জানা যায় দুটি বাড়ির মালিকই সাইফুর রহমান নামের একজন লন্ডন প্রবাসী। বড়হাটের ওই বাড়ি ৩ তলা হলেও ১ম ও ২য় তলা রয়েছে ভাড়ায়। আর ৩য় তলা নির্মাণাধীন। দুপুর সাড়ে ১১টার দিকে ফতেহপুরে ও সাড়ে ১২টার দিকে বড়হাট উভয় বাড়িতে গোলাগুলির শব্দ পাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্ধারা। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঘন্টা খানেক পর সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে দুই জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের খবর জানানো হবে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”

মন্তব্য করুন

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com