ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদকের গাড়িতে হামলা জুড়ীতে ক্ষমতাসীন দলের দ্বন্ধ চরমে

June 15, 2021, এই সংবাদটি ৩৬৯ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার॥ ছাত্রলীগের কার্যক্রম স্থগিত। আর যুবলীগের এক নেতাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। একের পর এক ঘটনায় নেতাকর্মীদের ক্ষোভ বিরাজ করছে। গেল ৩ দিন থেকে জুড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগ ও তার সহযোগি সংগঠন নিয়ে জেলা জুড়ে সরকারদলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে নানা আলোচনা সমালোচনা চলছে। বলা চলে জেলার জুড়ী উপজেলায় ক্ষমতাসীন দলের দ্বন্ধ এখন চরমে। সংগঠনবিরোধী কার্যকলাপের দায়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সকল কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। সেই সাথে যুবলীগের সহ-সভাপতিকে কারণ নোটিশ করা হয়েছে।
১৪ জুন সোমবার রাতে জেলা যুবলীগ ও ছাত্রলীগ পৃথকভাবে এই চিঠি ইস্যু করে। জানা যায় ১৩ জুন থেকে হঠাৎ করেই অশান্ত হয়ে উঠে জুড়ী উপজেলার ক্ষমতাসীন দলের রাজনীতি। নেতাকর্মীরা বলছেন এর নেপথ্যের দায়ী ব্যক্তি উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি আহমদ কামাল অহিদ। তিনি স্থানীয় এমপি এবং পরিবেশ বন ও জলবায়ু বিষয়ক মন্ত্রী শাহাব উদ্দিনের খালাতো ভাই। নেতাকর্মীরা জানান মন্ত্রীর খালাতো ভাই অহিদ রাজনৈতিক অঙ্গণে নিজের প্রভাব বিস্তার করতেই মূলত এই অশান্তির জাল বিস্তার করেছেন। এমনটিই অভিযোগ তোলছেন তারা। তারা বলছেন উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাহাব উদ্দিন সাবেল ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল ভূইয়া উজ্জ্বলকে ব্যবহার করে গড়ে তোলেছেন একটি একটি নিজস্ব বলয়। যাদের দিয়ে তিনি চালান নানা অপকর্ম।
সম্প্রতি কলার ছবি ফেসবুকে দেওয়ার ঘটনা নিয়ে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী স্বপন মিয়াকে তুলে নিয়ে নির্যাতন চালান ছাত্রলীগ সভাপতি সাহাব উদ্দিন সাবেল। ছাত্রলীগ সভাপতির এমন কর্মান্ডের আশ্রয়দাতা যুবলীগ নেতা অহিদ। এমনটি দলীয় নেতাকর্মীদের অভিযোগ। জানা যায় এপ্রিল মাসে মন্ত্রী প্রসঙ্গে কথা বলা নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সামসুজ্জামান রানু মহালদারের বাসায় যুবলীগের সহ-সভাপতি আহমদ কামাল অহিদের নেতৃত্বে হামলা চালানো হয়। এ হামলার ঘটনার নিষ্পত্তি হয় ১৩ জুন। ওই ঘটনায় জুড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা বদরুল হোসেনের বাসায় হয় সালিশ বৈঠক। বন পরিবেশ ও জলবায়ু বিষয়ক মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন রুদ্ধদ্বার বৈঠক করে বিষয়টি নিষ্পত্তি করেন। অভিযোগ উঠেছে মন্ত্রী জুড়ী থেকে বড়লেখার উদ্দেশ্যে রওয়ানা কিছু সময়ের মধ্যেই অহিদের নেতৃত্বে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী বাহিনী ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইনের গাড়িতে হামলা হয়।
ওই ঘটনায় ১৪ জুন সোমবার রাতে ছাত্রলীগ জুড়ীতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে। ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইনের গাড়িতে হামলার ঘটনায় মৌলভীবাজার জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বিকাশ ভৌমিক ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ রেজাউর রহমান সুজন কারণ দর্শানো নোটিশ দেন। ওই নোটিশে ১৪ জুন সোমবার ৩ কার্যদিবসের ভেতরে জুড়ী যুবলীগের সহ-সভাপতি আহমদ কামাল অহিদকে কারণ দর্শানোর জন্য বলা হয়। এছাড়া জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ আমিরুল হোসেন চৌধুরী আমীন ও সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলম একই দিনে জুড়ী উপজেলা ছাত্রলীগের সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপের দায়ে সকল সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত করেন। এদিকে জুড়ী থানা পুলিশ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইনের গাড়িতে হামলার ঘটনায় আরিফ নামের এক যুবককে আটক করেছে।
এবিষয়ে অভিযুক্ত জুড়ী উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি আহমদ কামাল অহিদ গণমাধ্যমকর্মীদের জানান আমি ঘটনার সাথে জড়িত নই। জেলা যে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আমি এর জবাব দেবো। জুড়ীর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ বলছে আমি জাকিরের গাড়িতে হামলার ঘটনায় জড়িত না। তাহলে কেন ১৪ জুন সোমবার রাত ১০টায় আমার বাড়িতে ইট পাটকেল নিক্ষেপ ও ৩ রাউন্ড গুলি ছুড়া হলো। এলাকার লোকজন এই ঘটনার পর ক্ষিপ্ত হয়েছে।
এবিষয়ে জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ সঞ্জয় চক্রবর্তী গণমাধ্যমকে জানান বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত আছে। ছাত্রলীগ সাবেক কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেনের গাড়িতে হামলা ঘটনায় আটক যুবক আরিফকে ১৫১ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •