জাতীয় শোক দিবসে মৌলভীবাজার আওয়ামী লীগের কর্মসূচি

August 13, 2023,

সালেহ আহমদ (লিপক) জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস-২০২৩ পালন উপলক্ষে মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে।

মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক অ্যাডভোকেট নিখিল রঞ্জন দাশ এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, জেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী অঙ্গসংগঠনের পক্ষ থেকে ১৫ আগষ্টের কর্মসূচি সফল করতে ইতিমধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ১৫ আগষ্ট সকাল ৬টা শহরের চৌমুহনাস্থ দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা অর্ধনমিতকরন ও কালো পতাকা উত্তোলন, সকাল ৭টায় কালোব্যাজ ধারণ, সকাল ৯টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্ত্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সংসদ সদস্য নেছার আহমেদ এমপি ও সাধারণ সম্পাদক জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মিছবাহর রহমানের নেতৃত্বে জেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সকাল ১১টায় পৌর জনমিলন কেন্দ্রে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। আলোচনা সভা শেষে বঙ্গবন্ধু ৭৫’র ১৫ আগষ্টের সকল শহীদদের আত্মার শান্তি কামনায় মোনাজাত ও শিরনী বিতরণ করা হবে।

সন্ধ্যা ৭টায় চৌমুহনাস্থ কালীবাড়ি ও পশ্চিমবাজারস্থ আখড়ায় বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করা হয়েছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস-২০২৩ পালন উপলক্ষে সকল কর্মসূচিতে আওয়ামী লীগের সর্বস্তরের কর্মকর্তা, সদস্য ও সহযোগী সংগঠনের সকল নেতাকর্মীদের উপস্থিত থাকার জন্য মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে সভাপতি নেছার আহমদ এমপি ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মিছবাহুর রহমান জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের পক্ষ থেকে বিশেষভাবে অনুরোধ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট ভোররাতে সেনাবাহিনীর কয়েকজন বিপথগামী সদস্য ধানমন্ডির ৩২ নম্বর বাসভবনে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করে।

ঘাতকরা শুধু বঙ্গবন্ধুকেই হত্যা করেনি, তাদের হাতে একে একে প্রাণ হারিয়েছেন বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিণী বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা, বঙ্গবন্ধুর সন্তান শেখ কামাল, শেখ জামাল ও শিশু শেখ রাসেলসহ পুত্রবধূ সুলতানা কামাল ও রোজি জামাল।

পৃথিবীর এই জঘন্যতম হত্যাকাণ্ড থেকে বাঁচতে পারেননি বঙ্গবন্ধুর অনুজ শেখ নাসের, ভগ্নীপতি আবদুর রব সেরনিয়াবাত, তার ছেলে আরিফ, মেয়ে বেবি ও সুকান্তবাবু, বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক শেখ ফজলুল হক মনি, তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী আরজু মনি এবং আবদুল নাঈম খান রিন্টু ও কর্ণেল জামিলসহ পরিবারের ১৬ জন সদস্য ও ঘনিষ্ঠজন।

সে সময় বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা বিদেশে থাকায় প্রাণে রক্ষা পান।

জাতীয় শোক দিবসকে সামনে রেখে শোকের মাসের প্রথম দিন থেকেই আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠন বিস্তারিত কর্মসূচি পালন করে আসছে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”

মন্তব্য করুন

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com