জুড়ীতে আইসিভিজিডি অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত

September 22, 2021, এই সংবাদটি ৯২ বার পঠিত

আল আমিন আহমদ॥ জুড়ী উপজেলায় আইসিভিজিডি প্রকল্প বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে এক অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বুধবার ২২ সেপ্টেম্বর দুপুরে উপজেলা পরিষদের জনমিলন কেন্দ্রে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোনিয়া সুলতানার সভাপতিত্বে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা কার্যালয়ের সুজাউদ্দৌলার উপস্হাপনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জুড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্বা এম এ মোঈদ ফারুক।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন,উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রিংকু রঞ্জন দাশ, রনজিতা শর্মা, সহকারী কমিশনার (ভূমি) রতন কুমার অধিকারি,উপজেলা আওয়ামিলীগের সাধারণ সম্পাদক, ইউপি চেয়ারম্যান মাসুক আহমদ, ইউপি চেয়ারম্যান সালেহ উদ্দিন আহমদ, ইউপি চেয়ারম্যান শ্রীকান্ত দাশ,জায়ফরনগর ইউপি চেয়ারম্যান হাজী মাছুম রেজা, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ওমর ফারুক, সাগরনাল ইউপি প্যানেল চেয়ারম্যান ময়নুল ইসলাম জুনেদ,উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি সিরাজুল ইসলাম,লীড এনজিও সীমান্তিক, সিলেট এর প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা (ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগাম) হাসান ইমাম চৌধুরী, মুহিত হোসেইন, শফিকুল ইসলাম
সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হোসনে আরা তালুকদার স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হোসনে আরা তালুকদার। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোনিয়া সুলতানা সভায় জানান,সারা দেশে সরকার আইসিভিজিডির দ্বিতীয় পর্যায়ে একটি পাইলট প্রকল্প গ্রহণ করেছে। জেলার মধ্যে একমাত্র জুড়ী উপজেলায় এ প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্দ্যোগ নেয়া হয়েছে। জুড়ীতে ১৫০০ জন দরিদ্র মানুষ ভিজিডির আওতাভুক্ত রয়েছে। তার মধ্যে ৮০% হারে ১২০০ জন লোক এ সুবিধা পাবে।
প্রকল্প বাস্তবায়নে নিযুক্ত ” সীমান্তিক” নামক এনজিও সংস্হা ” সভায় জানায়,টেকসই জীবিকা গ্রহণের মাধ্যমে খাদ্য নিরাপত্তা অর্জন,উদ্যোক্তা হওয়ার ও ব্যবসা পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় সক্ষমতা বৃদ্ধি এবং প্রাতিষ্ঠানিক অর্থনীতিতে যুক্তকরণের মাধ্যমে নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করা,জীবন ও পুষ্টি মান উন্নয়নে আচরণ পরিবর্তন, সরকারি নীতি ও কৌশল অনুযায়ী ভিজিডি কর্মসূচিতে প্রয়োজনীয় সংস্কার আনয়নে মাধ্যমে “গ্রামীণ দরিদ্র নারীদের চরম দারিদ্র্য থেকে মুক্তি এবং তাদের খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা উন্নতকরণ” করার লক্ষ্যে
জনপ্রতি ১৫ হাজার টাকা করে জীবনমান উন্নয়নের জন্য অনুদান ও পুষ্টি চাল দেয়া হবে।উদ্যোক্তা হিসেবে তাদেরকে দক্ষতা বৃদ্ধি করে সারা দেশে ৬৪ জেলায় ১ লক্ষ সুবিধাভোগীকে আওতাভুক্ত করে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে চায় সরকার।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •