দুবাইয়ের আভির বাজার চট্টগ্রাম-সিলেটীদের দখলে

October 27, 2022,

তোফায়েল আহমেদ (পাপ্পু),দুবাই থেকে॥ সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ের তথা মধ্যপ্রাচ্যের শীর্ষ পর্যায়ের ফল ও সবজির বাজার আল আভির। দুবাইয়ের বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আল আভির বাজার কমপক্ষে ৬০ থেকে ৭০ বছরের পুরোনো। স্বাধীনতার পর বাংলাদেশ থেকে প্রবাসীরা সেখানে যেতে শুরু করে।দুবাই শহর থেকে প্রায় ১০ কিলোমিটার দূরের আল-আওয়ির ফ্রুট অ্যান্ড ভেজিটেবল মার্কেট। তবে আবির মার্কেট বলে পরিচত সবার কাছে।
মরুভূমির কারণে দুবাইয়ে ফল কিংবা সবজি কিছুই উৎপাদিত হয় না। তবে আশপাশের দেশগুলোথেকে আবিরের ব্যবসায়ীরা ফল ও সবজি আমদানি করে এখানে বিক্রি করেন। পৃথিবীতে যে ফলই উৎপাদিত হোক, সবার আগে তা পাওয়া যাবে আবির মার্কেটে।
এখানকার ব্যবসায়ীরা জানান, পাইকারি ও খুচরা বিক্রেতা এবং শ্রমিক মিলে এই মার্কেটে বাংলাদেশীর সংখ্যা ১০ হাজারের বেশি। পাকিস্তান, ভারতসহ অন্যান্য দেশের নাগরিক রয়েছেন আরও ৩ হাজারের মতো। বাংলাদেশিদের মধ্যে চট্টগ্রামের বিভিন্ন স্থানের বাসিন্দা প্রায় ৬ হাজার, সিলেটের প্রায় ৩ হাজারের বেশি এছাড়াও কুমিল্লা, ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষ এখানে ব্যবসা করছেন। বলা যায়, মার্কেটের মূল চালিকাশক্তি বাংলাদেশিরা।মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম বড় ফল ও সবজির এ বাজারে পাইকারি আড়তদারের মধ্যে ৭০% লোকইবাংলাদেশি। ভোর সকাল ৪টা থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত বাজারে বিভিন্ন দেশ হতে সবজি আসে এসময় পাইকারি ও আড়তদার থেকে খুচরা ব্যবসায়ীরা মালামাল ক্রয় করে থাকেন। এখানে বাংলাদেশীদের আধিপত্যবেচাকেনা চলে বিকেল চারটা থেকে রাত এগারোটা এবং রাত চারটা থেকে সকাল আটটা পর্যন্ত।
সিলেটের জকিগঞ্জের জুবায়ের আহমেদ আবির বাজারের একজন খুচরা ব্যবসায়ী। তিনি জানান, দুবাইয়ের মধ্যে ব্যস্ততম বাজার হচ্ছে এই বাজার। এখান থেকেআরব আমিরাতের বিভিন্ন স্থানের ব্যবসায়ীরা সবজি ও ফল ক্রয় করে ছোট ছোট গ্রোসারিতে খুচরা বিক্রয় করে থাকেন।
পাইকারি বিক্রেতা চট্টগ্রামের আলম হোসেনবলেন, আমিরাতে সব প্রদেশের পাশাপাশি মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশবাহরাইন, ওমান, সৌদি আরব, কাতার ও কুয়েতে এ বিপণিকেন্দ্র থেকে ফল ও সবজি যায়।
এ ছাড়া সড়কপথে ফল ও সবজি আসে ইরান, লেবানন, জর্ডান ও মিসর থেকে। আর আকাশপথে আসে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ব্রাজিল, চীন, চিলি, পেরু, আর্জেন্টিনা ও তুরস্ক থেকে। তবে আমদানি–রপ্তানিকারকদের মধ্যে বেশির ভাগ অন্য দেশের ব্যবসায়ী। এর মধ্যে বাংলাদেশি আছেন ৩০ শতাংশ।
সরেজমিনে বাজার ঘুরে দেখা যায়, বড় শেডের নিচে প্যাকেটভর্তি ফল ও সবজি নিয়ে ব্যস্ততা বিক্রেতাদের। ট্রলিভর্তি ফল ও সবজির প্যাকেট ঢুকছে।শেডে সারি করে রাখতেই বিক্রেতারা শুরু করছেন দরদাম। দরদামে বনিবনা হলেই এসব পণ্য শ্রমিকেরা তুলে দিচ্ছেন কাভার্ড ভ্যান কিংবা ছোট-বড় ট্রাকে। ব্যবসায়ীদের আবার আক্ষেপও রয়েছে।
বেশির ভাগ ব্যবসায়ী বলেন, আমিরাতে ভিসা জটিলতার কারণে অনেককে এখান থেকে চলে যেতে হয়েছে।ভিসাপদ্ধতি সহজ হলে আরও বাংলাদেশি এখানে কাজের সুযোগ পেতেন। এখন সাধারণ ক্ষমায় অনেকে নতুন পাসপোর্ট পাচ্ছেন। কিন্তু ভিসা বদল কিংবা নতুন ভিসা পাওয়ার কাজটি সহজ হয়নি। তাঁরা এসব বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।
আবির বাজারে ফলের মধ্যে রয়েছে আপেল, আঙুর, তরমুজ, খেজুর, কমলা, আনারস, সাম্মাম (হলুদ তরমুজ), ড্রাগন, পেঁপে,আম, স্ট্রবেরি, অ্যাভোকাডো, মানডারিন, সফেদা, চেরি, পিচ, নাশপাতি, পেয়ারা, জলপাই, মাল্টা, বাতাবিলেবু, কাঁঠাল, কলা প্রভৃতি।
সবজির মধ্যে রয়েছে ফুলকপি, আলু, টমেটো, শসা, শালগম, গাজর, ঢ্যাঁড়স, মিষ্টিকুমড়া, লাউ, ভুট্টা, ব্রকোলি, ক্যাপসিকাম, কাঁকরোল, করলা, পটোল, কচুর লতি প্রভৃতি। এ ছাড়া আদা, রসুন, পেঁয়াজ, কাঁচা মরিচসহ শাকও বিক্রি হয়।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •