ধর্মীয় ও সামাজিক সেবা সংগঠন শেখ বোরহান উদ্দিন ইসলামি সোসাইটির ধর্ম ও সমাজ সেবায় অনন্য উদাহরণ: ঘাতক ব্যাধি করনায় ও পিছিয়ে নেই

November 23, 2021,

মুজিবুর রহমান মুজিব॥ মানুষ সৃষ্টির শ্রেষ্ট জীব। আশরাকুল মকলুখাত। সনাতনী শাস্ত্রানুসারে-নররূপী পারায়ন। মানুষের মেধা ও মনন প্রজ্ঞা ও পান্ডিত্য মানুষকে এই শ্রেষ্টত্বের আসনে বসিয়েছে।
মানব সভ্যতার ইতিহাস ক্রম বিকাশ ও ক্রম বিবর্তনের ইতিহাস। সমাজ বিজ্ঞানীদের ভাষ্যানুসারে বিকাশ ও বিবর্তনের মাধ্যমে আদি গুহা মানব থেকে আধুনিক মানব সভ্যতা ও মানব জাতির উত্থান ও অব¯’ান। রাষ্ট্র বিজ্ঞানীদের তথ্য ও গ্রহ্ণ মতে আধুনিক রাষ্ট্র ব্যব¯’ার চাইতে সামাজিক সংঘটন সমূহের বয়স প্রাচীন। অর্থাৎ আধুনিক রাষ্ট্র ব্যব¯’ার সৃষ্টির পূর্বে সামাজিক সেবা সংঘটন সমূহের জন্ম। রসুলে খোদা, হাবিবে আল্লাহ-মহামানব মোহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ নবুওতি প্রাপ্তির পূর্বে পবিত্র মক্কা শরীফে সামাজিক সেবা সংঘটন- “হিলফুল ফুযুল” গঠন করে সেবা ও ভালোবাসার মাধ্যমে গোত্র বিভক্ত ঝঞা বিক্ষুদ্ধ অন্ধকার আরবীয় সমাজ কর্তৃক “আলআমীন” উপাধি প্রাপ্ত হয়েছিলেন।
বৃটিশ ভারতে বাংলা-ভারতে স্বাধীন সরকার না থাকলেও ত্র্যংলো ওরিয়েন্টাল মোহামেডান সোসাইটি, অনুশীলনী সমিতি ইত্যাদি সামাজিক সংঘটন গন অধিকার ও সমাজ সেবার কার্য্যক্রম পরিচালনা করেছেন। পাকিস্তানী ঔপনিবেষিক শাসনামলে সামাজিক সাংস্কৃতিক সংঘটনের কার্য্যক্রম ছিল।
একাত্তোরের পর স্বাধীন বাংলাদেশে সরকারি উন্নয়ন কর্ম্মকান্ডের পাশাপাশি নবগঠিত ও যুদ্ধ বির্ধ্ব¯’ বাংলাদেশের সমাজ উন্নয়নে এগিয়ে আসেন দেশী বিদেশী সামাজিক সেবা সংঘটন। সরকারি উন্নয়ন কর্মকান্ডের পাশাপাশি এনজিও নামে পরিচিত সামাজিক সেবা সংঘটন সমূহ প্রশংসনীও উল্লেখ যোগ্য অবদান রাখেন। কর্ম সং¯’ান ছাড়াও দেশীয় আর্থ সামাজিক উন্নয়নে এনজিওদের ভূমিকা ইতিহাসের অংশ। আমাদের নিকট প্রতিবেশী জেলা হবিগঞ্জের কৃতি সন্তান স্যার ফজলে হাসান আবেদ প্রতিষ্ঠিত ব্র্যাক এখন পৃথিবীর বৃহত্তম এন.জি.ও।
স্বাধীনতা উত্তর কালে প্রয়োজনীয় যোগ্যতা থাকা স্বত্বেও একজন স্বপ্নবাজ মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে সরকারি চাকরিতে না গিয়ে প্রিয় মাতৃভূমি বিশেষত: নিজের এলাকাকে মনের মত করে সাজিয়ে তোলার জন্য একজন সমাজ কর্মি হিসাবে এখানেই থেকে গেলাম। আয় রোজগার-চাকরি-ব্যবসা বানিজ্যের ব্যাপারে আমার কাছে আমার পিতা-মাতার কোন দাবী ছিল না, শুধু লেখাপড়া ছাড়া। ফলতঃ পড়ালেখা শেষে স্বাধীন পেশা হিসাবে ¯’ানীয় এডভোকেট বারে যোগ দেই, রাজনীতি ও সমাজ কর্মে নিজেকে বিলিয়ে দেই।
তখন সমাজ কর্মি হিসাবে আমার সমাজ ও বন্ধু মহল আমাকে যখন যে দায়িত্ব দিয়েছেন সে দায়িত্ব আন্তরিক ভাবেই পালন করেছি, নিজের পেশার প্রতি কোন দিন খুব উৎসাহী ছিলাম না। পিতা-মাতার বড় ছেলে হলেও অপেক্ষাকৃত স্ব”ছল পরিবারের সন্তান হিসাবে আমাকে সংসার এর ভার বইতে হয় নি। ফলত স্বাধীনতা উত্তর কালে রেডক্রশ, প্রেসক্লাব, পাবলিক লাইব্রেরী, জেলা শিশু একাডেমি, বাবস-জাতীয় প্রতিষ্ঠানের সভাপতি/সম্পাদকের দায়িত্ব মনের সুখেই পালন করেছি।
জেলা আইনজীবী সমিতিতে মোট ছয় মেয়াদে সভাপতি সম্পাদকের দায়িত্ব পালন শেষে এখন স্বে”ছায় অবসরে আছি। পীরে কামেল হযরত সৈয়দ শাহ্ মোস্তফা শেরে সওয়ার চাবুকমার বোগদাদী (রঃ)’র পবিত্র মাজার শরীফ এবং আমার বাসা মুসলিম কোয়ার্টার¯’ রসুলপুর হাউস খুব দূরে নয় বরং কাছেই। আশি নব্বইর দশকে আমি নিয়মিত সৈয়দ মহসীন আলী, মোতাওয়াল্লী সৈয়দ খলিলুল্লাহ ছালিক জুনেদ, সৈয়দ মফ”িছল আলী সহ একত্রে জুম্মার নামাজ আদায় করতাম। দরগা মহল্লা এলাকায় আমার একাধিক বন্ধু বান্ধবের ও বাস¯’ান। এলাকার অনেক নয়, প্রায় সকলের সঙ্গেঁ আমার সম্পর্ক ও সখ্যতা বিদ্যমান।
দরগা মহ্লা এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে একজন সমাজ কর্মি আমার দৃষ্টি আকর্ষন করে। কালিয়ানা কিছিমের প্রায় ছ’ফুটি এম.মোহিবুর রহমান মুহিব এর মুখে একটি সলাজ মিষ্টি হাসি লেগে থাকত সব সময়। তাঁর পেশা ও পারিবারিক পরিচিতি সম্মন্ধে আমার কোন ধারনা কিংবা প্রয়োজন ও ছিল না। তাঁর সঙ্গেঁ পরিচয় থাকলেও বন্ধুত্বের মত সম্পর্ক ছিল না কারন সে প্রায় আমার সন্তানের বয়সি। তবুও তাঁর সমাজ কর্ম ও সদাচরন আমি পসন্দ করতাম। একজন বুজুর্গ শেখ বোরহান উদ্দিনের নামে এম.মোহিবুর রহমান তাঁর কতেক সহকর্মি গঠন করল শেখ বোরহান উদ্দিন ইসলামী সোসাইটি। তখন দুই গজি পলিষ্টার কাপড়ের একটি ব্যানার এর খরছা কুড়ি টাকাও নয়। আমি মোহিবকে তাঁর সকল ইসলামিক কার্য্যক্রমের সমর্থন এবং ব্যয় ভার বহনে অঙ্গীকার করলাম। দু’পাটি সাদা দাতবের করে নিঃশব্দে মিষ্টি করে হেসেছিল সমাজ কর্মি এম.মোহিবুর রহমান মোহিব। আমরা প্রাথমিক ভাবে দরগা মহল্লা এলাকায় নিয়মিত বৃক্ষ রোপন করেছি। পবিত্র মাহে রজমানে দরিদ্রদেরকে ইফতার পার্টি সহ বিভিন্ন ধর্মীয় কার্য্যক্রম করেছি। আমি সমিতির সদস্য-কর্মকর্তা না হলেও সহযোগিতা দিয়েছি। সং¯’ার পরিচিতি পরিধি বাঁড়তে থাকে। সদস্য সংখ্যা ও বৃদ্ধি পায়। মেধা নির্বাচনী পরিক্ষা করে আরোড়ন সৃষ্টি করে শেখ বোরহান উদ্দিন ইসলামী সোসাইটি। আমার বয়োঃবৃদ্ধি ও শারীরিক অসু¯’তায় সং¯’ার কার্য্যক্রমে শারীরিক ভাবে উপ¯ি’ত না হতে পারলেও একটি নৈতিক সমর্থন আছে, যোগাযোগ আছে সং¯’ার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এম.মোহিবুর রহমান মোহিবের সঙ্গেঁ।
সামাজিক ও ধর্মীয় সেবা সংঘটন শেখ বোরহান উদ্দিন ইসলামী সোসাইটি বিগত এবং বর্তমান ভয়াবহ বৈশ্বিক ব্যাধি করনায় দূঃসাহসিকতার সঙ্গেঁ যে সেবা কার্য্যক্রম দিয়েছেন-দি”েছন তা ধর্ম ও সমাজ সেবার সাম্প্রতিক ইতিহাসে একটি ঐতিহাসিক অধ্যায়।
বিশ্বব্যাপী বৈশ্বিক ব্যাধি ভয়ানক করনার আক্রমনে মানব সভ্যতার ভিতকে নাড়িয়ে দিয়েছে। ঘাতক ব্যাধি করনার কাছে ডাবলিউ এইচ ও অসহায়। বিব্রত। চীনরে উ-হান থেকে শুরু করে করনা ব্রাজিল আমেরিকা-ভারত-রাশিয়ায় হানা দিয়ে দিনকে দিন মৃত্যোর মিছিল লম্বা করতে লাগল। করনা ছোয়াছে বিধায় মৃতের দাফান-শেষ কৃত্যানুষ্ঠান নিয়ে সমস্যার সম্মুখীন হলেন কর্তৃপক্ষ। সরকারের স্ব্যা¯’ বিভাগ সূত্রে পরিবেসিত তথ্য মতে করনায় এ পর্য্যন্ত দেশ ব্যাপী ২৫ হাজার ৮৮৭ জন মৃত্যোবরণ করেছেন। এখন পর্য্যন্ত মোট সনাক্ত কৃত করনা রুগী ১৫ লক্ষ ৭৩ হাজার ৪৮৫ জন, মোট সু¯’ হয়ে উঠেছেন ১৫ লক্ষ ৩৪ হাজার ৩০০ জন রুগী।
দেশ ব্যাপী করনা চিকিৎসায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা যথেষ্ট আন্তরিক এবং তাঁর প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা থাকার পরও স্ব্যা¯’ মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের দায়িত্ব হীনতা, গাফিলতা, শাহেদী নয় ছয়, দূর্নীতি, চিকিৎসা ব্যব¯’া প্রশ্নবিদ্ধ। দূর্মূখেরা দাবী করছেন স্ব্যা¯’ বিভাগ অসু¯’, তাঁদের চিকিৎসা দরকার।
দেশীয় পর্য্যায়ে চিকিৎসা ব্যব¯’ার এই অব্যব¯’ার মাঝে আঞ্চলিক ভাবে করনা মোকাবিলা ও চিকিৎসায় আমাদের সিলেট অঞ্চল ঐহিহাসিক দায়িত্ব পালন করেছেন-ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন। সিলেটের দেশ ও সমাজ সেবক গণ করনা কালে ভয়ে ভীত হয়ে স্বে”ছা কোয়ারেন্টাইনে যান নি- জনগণের সেবায় জনগনের মাঝেই ছিলেন। করুনায় আক্রান্ত হয়ে ইন্তিকাল করেছেন সিলেটের জনপ্রিয় সাংসদ মাহমুদুস সামাদ চৌধুরী, সাবেক মেয়র আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ এর চেয়ারম্যান এম.আজিজুর রহমান আওয়ামী লীগ ও পরিবহন নেতা সৈয়দ মফ”িছল আলী, আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ্ব মাহমুদুর রহমান, আনকার আহমদ প্রমুখ।
করনা ভীতিকে উপেক্ষা করে জনগনের সঙ্গেঁ জনসেবায় কাজ করে জনপ্রিয় জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান অসু¯’ হয়েও জনসেবা থেকে ব্বিত হন নি। অধমআমি নিজেও করনা আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘ চিকিৎসা, খোদার দয়া ও সুহৃদদের, দোয়ায় বেঁচে এসেছি। সু¯’ আছি।
করনা রুগীদের সেবা ও শেষ কৃত্যানুষ্ঠানে নির্ভীক সমাজ সেবক এম.মোহিবুর রহমান মুহিবের নেতৃত্বে ধর্মীয় সংঘটন শেখ বোরহান উদ্দিন ইসলামী সোসাইটি প্রশংসনীয় ও শিক্ষনীয় ভূমিকা পালন করেছেন। সোসাইটির সংঘটনিক পরিধি ও এখন বৃদ্ধি পেয়েছে মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করছেন মিজানুর রহমান রাসেল। দাফন কাফন ও সৎকার টিমের প্রধান এর দায়িত্বে আছেন আশরাফুল খাঁন রুহেল। মোট আড়াই শত সদস্যের সোসাইটির নিবেদিত প্রাণ এক বিশাল কর্মি বাহিনী রয়েছেন। করনা রুগি, সেবা ছাড়াও সোসাইটি ৩৯ জন পুরুষ এবং ১১ জন মহিলার দাফন কাফন এর কাজ সম্পাদন করেছেন। এই মুসলিম সোসাইটি দুইজন মহিলা এবং একজন হিন্দুর সৎকার-শেষ কৃত্যানুষ্ঠান করে দিয়েছেন।
সোসাইটি সূত্রে প্রকাশ তাঁদেরকে সহায়তা কারিদের মধ্যে সৈয়দা জহুরা আলাউদ্দিন এম.পি.অগ্রণী ব্যাংক এর এম.ডি.ও সি.ই.ও মোহাম্মদ শামস-উল-ইসলাম, সাজ্জাদুর রহমান পুতুল ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা মনোওয়ার আহমদ, বৃটেন প্রবাসী কমিউনিটি নেতা মকিছ মনসুর, সিনিওর সহকারি সচিব তানাউর আহমদ তরফদার প্রমুখ এবং সং¯’াগত ভাবে মোহাম্মদ তৈয়ব ও সেয়দা তাহিরুন্নেছা ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন, একাটুনা ইউনিয়ন ডেভলাপমেন্ট এন্ড ওয়েলফেয়ার ট্রাষ্ট, মুরাদ খাঁন ফাউন্ডেশন, মৌলভীবাজার এইড.ইউ.কে এবং বৃটেন প্রবাসী আব্দুল লতিফ কয়ছর, জাকির হোসেন প্রমুখের কাছে তাঁরা ঋণী। একটি সেবামূলক সামাজিক সংঘটন হৃদয়বান বিত্তবান দাতাদের অর্থানুকুল্লেই চলে। সোসাইটি আল্লাহর অপার রহমত এবং দাতাদের সাহায্য সহযোগিতায় এই পর্য্যন্ত যখন এসেছে ইনশাল্লা থেমে থাকবে না, এগিয়ে যাবে সামনের দিকে।
একটি এমবুলেন্স এখন সময়ের দাবী। আশা করি এ ব্যাপারেও সহৃদয় দাতাগণ সহৃদয় তাঁর সাথে এগিয়ে আসবেন।
ধর্ম ও সমাজ সেবা মূলক সংঘটন শেখ বোরহান উদ্দিন ইসলামি সোসাইটির স্বে”ছাসেবক শুভাকাংখীগণকে অভিনন্দন শুভে”ছা ও অনেক দোয়া সহ স্ব্যা¯’বিধি মেনে চলুন-করনা মুক্ত থাকুন এই কামনায়।
[ষাটের দশকে ছাত্র লীগ নেতা। মুক্তিযোদ্ধা। কলামিষ্ট। সাবেক সভাপতি মৌলভীবাজার জেলা আইনজীবী সমিতি ও মৌলভীবাজার প্রেসক্লাব।]

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •