আলিম-উলামাদের নিয়ে কুৎসা রটনাকারী ইসলামবিদ্বেষীরা নিজেরাই দুর্নীতি ও অসততায় নিমজ্জিত —–হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী

May 19, 2022,

স্টাফ রিপোর্টার॥ বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহ’র মুহতারাম সভাপতি মাওলানা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী বলেছেন, মহান আল্লাহর মনোনীত দ্বীনের কাজকে এগিয়ে নিতে আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের (সা.) অনুসরণ এবং মানুষের প্রতি দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। দ্বীনি খেদমতের অন্যতম একটি কাজ হলো সমাজ¯’ অন্যায়, অবিচার ও অশ্লীলতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াানো। সমাজের অবক্ষয় রোধে সাহাবা ও আউলিায়ে কিরাম যে পথ আমাদের দেখিয়ে গেছেন সে পথের উপর পরিচালিত হওয়ার বিকল্প নেই।হযরত আবু বকর, হযরত উমর (রা.) ও হযরত ওয়াইসক্বারনী (র.) এর জীবনের বিভিন্ন দিক বিশ্লেষণ করলে দেখা যায় তাঁরা তাঁদের জীবনের বৃহৎ একটি অংশ উম্মতের খেদমতের জন্য ওয়াকফ করেছেন। হযরত শাহজালাল (র.), হযরত সায়্যিদ আহমদ শহীদ (র.) তাদের জীবনকে উম্মাহর খেদমতে কুরবান করেছেন। সাহাবায়ে কিরাম ও আউলিয়ায়ে কেরামের দেখানো পথ অনুসরণের মাধ্যমে আমাদের সামাজিক অ¯ি’রতা দূর করতে হবে। তাদের দেখানো পথ ব্যতিত অন্য পথে বা জোরপূর্বক সমাজকে পরিবর্তন করা সম্ভবপর নয়। আমাদেরকে দ্বীনি জ্ঞান যথাযথ অন্বেষণপূর্বক সত্যকে জানতে ও উপলব্ধি করতে হবে। এদেশের মানুষের বিশেষত ছাত্রসমাজের নির্ভরযোগ্য আশ্রয়¯’ল হলো তালামীযে ইসলামিয়া। এই সংগঠন আজ অবধি নীতি ও আদর্শের সাথে কখনো কোন আপোষ করেনি। এই আদর্শ যথাযথ অবিচল রাখা যাবে কর্মীদের যথাযথ আচরণ তথা আখলাকে হাসানার যথাযথ চর্চার মাধ্যমে। আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের সš‘ষ্টি পেতে হলে আগে ভালো মানুষ হতে হবে, ভালো মানুষ হওয়া ব্যতিত আল্লাহওয়ালা হওয়া সম্ভব নয়। মুসলমানদের উত্তম ও ব্যবহারের অনুপম সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে যুগে যুগে মানুষ ইসলামের সুশীতল ছায়াতলে এসেছে। এজন্য তালামীযে ইসলামিয়ার কর্মীদের দায়িত্ব হলো আখলাকে হাসানা নিজেদের জীবনে প্রতিফলন ঘটানোর মাধ্যমে ইসলামের সুমহান সৌন্দর্য মানুষের দ্বারে দ্বারে পৌঁছাতে হবে এবং সমাজের খেদমতে নিজেদের নিবেদিত করতে হবে।
তিনি আরো বলেন, বর্তমান সময়ে তারাই আলেম-উলামাদের নিয়ে কুৎসা রটনা করছে যাদের সত্য উপলব্ধির কোন যোগ্যতা নেই এবং যারা লাম্পট্যতে লিপ্ত। এদের প্রকৃত মুখোশ আজ দেশবাসীর কাছে উম্মোচিত হয়েছে। এরা প্রকৃত দ্বীনদার ফকীহ মুহাদ্দিস, মুফাসসিরদের সাথে যারা আলিম-ই নয় তাদেরকে এক কাতারে নিয়ে এসেছে। এদের প্রকৃত উদ্দেশ্য ইসলামকে হেয় করা। যাদের রন্ধ্রে রন্ধ্রে দুর্নীতি ও অসততায় ভরপুর তারাই আলেমদের দুর্নীতি খুঁজতে ব্যস্ত। কিš‘ এগুলো ইসলাম ও আলেমসমাজের প্রতি এদেশের মানুষের ভালোবাসাকে কমাতে পারবে না, বরং শতগুণে বাড়িয়ে দিবে।
১৮ মে বুধবার বাদ যুহর মৌলভীবাজার শহরের অভিজাত একটি কনফারেন্স হলে বাংলাদেশ আনজুমানে তালামীযে ইসলামিয়া মৌলভীবাজার জেলা শাখা আয়োজিত ‘কর্মী স্তর উন্নয়ন পরীক্ষা ও প্রশিক্ষণ কর্মশালা’য় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
প্রধান বক্তার বক্তব্যে তালামীযে ইসলামিয়ার কেন্দ্রীয় সভাপতি দুলাল আহমদ বলেন, মহান আল্লাহ তায়ালার বিধান নামাজের প্রতি আমাদেরকে অধিক যত্নবান হতে হবে এবং যথাযথভাবে নামায আদায়ে অন্যদেরকেও উৎসাহিত করতে হবে। নামাযের মাধ্যমে চারিত্রিক বিশুদ্ধতা অর্জিত হয়। ঈমান ও আমলের হেফাজতে আমাদেরকে সর্বদা সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াতের আক্বিদা বিশ্বাস অনুযায়ী নিজের জীবন পরিচালনা করতে হবে।
শাখা সভাপতি এম. কাওছার আহমদ’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নাসির খান’র সঞ্চালনায় কর্মশালায় প্রশিক্ষণ প্রধান করেন মৌলভীবাজার জেলা আল ইসলাহ’র সভাপতি মাওলানা মুফতি মুহাম্মদ শামছুল ইসলাম, সহ-সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ইসহাক আহমদ, অফিস সম্পাদক মাওলানা শফিকুল আলম সুহেল।
শাখা সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মামুনুর রশীদ’র শুভেছা বক্তব্যের মাধ্যমে সূচিত কর্মশালায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- ভারতের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও রাজনীতিবিদ আজিজুর রহমান তালুকদার, তালামীযে ইসলামিয়ার কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মনজুরুল করিম মহসিন, অর্থ সম্পাদক এম এ জলীল, কেন্দ্রীয় সদস্য শেখ কাদের আল হাসান।
এসময় উপ¯ি’ত ছিলেন শাখা সহ-সভাপতি আব্দুল মুহাইমিন ফাহাদ, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আফসার ইবনে রহিম, রাশেদ আহমদ, প্রচার সম্পাদক শাহ সামাউন কবির, সহ-প্রচার সম্পাদক মুস্তাকুর রহমান সাদীক, আফজাল হোসেন সাজু, আজিজুল ইসলাম রিয়াদ প্রমুখ।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •