কুলাউড়ায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে উল্টো মামলায় গ্রাহক গ্রেপ্তার ও হয়রানির প্রতিবাদে মানববন্ধন

September 16, 2022,

স্টাফ রিপোর্টার॥ মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি সাব জোনাল অফিসের এজিএম নাজমুল হক তারেক ও বরমচাল অভিযোগ কেন্দ্রের ইনর্চাজ জয়নাল আবেদীন এর বিভিন্ন নানা অনিয়ম, দুর্নীতি ও গ্রাহক হয়রানির কারণে মানববন্ধন করেছেন স্থানীয় এলাকাবাসী।
১৬ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টায় কুলাউড়া স্টেশন চৌমুহনীতে এলাকাবাসীর আয়োজনে মানবনবন্ধন ও প্রতিবাদ কর্মসূচীতে ভুক্তভোগী গ্রাহক আজিজুল হায়দারের পরিচালনায় একাত্মতা পোষণ করে বক্তব্য দেন জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক মইনুল ইসলাম শামীম, ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের ইউপি সদস্য ছয়ফুল ইসলাম, সমাজকর্মী নাজমুল ইসলাম প্রমুখ। মানববন্ধন কর্মসূচীতে স্থানীয় এলাকার নারীসহ প্রায় শতাধিক গ্রাহক উপস্থিত ছিলেন।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, গ্রাহক লুৎফুল হায়দারের বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা সত্ত্বেও ২০ দিন ধরে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রাখায় সংবাদ সম্মেলন করেন। এঘটনায় উল্টো মিথ্যে মামলা দিয়ে সেই গ্রাহককে গ্রেপ্তার করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।
অবিলম্বে গ্রাহককে মুক্তি প্রদান ও মামলা প্রত্যাহার করে সংযোগ পুনঃস্থাপন করার দাবি জানান ও দুর্নীতিবাজ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ওই দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়া হলে পরবর্তীতে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারী দেন বক্তারা।
ভুক্তভোগী গ্রাহক আজিজুল হায়দার জানান, আমার মাতা একজন ডায়বেটিস, হার্ট ও পেসারের রোগী। বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করলেও এই জেরে ২০ দিন ধরে আমাদের বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ পুনঃস্থাপন না করায় আমার অসুস্থ মাতা মাহমুদা খানম অতি গরমে কষ্টের মধ্যে আছেন। বিদ্যুৎ না থাকায় আমার মায়ের পায়ের হাঁড় ক্ষয় ও কোমরের হাঁড় ক্ষয়ের জন্য থেরাপি এবং শ্বাস কষ্টের জন্য নেবুলাইজার দিতে পারছিনা। আমরা দ্রুত বিদ্যুৎ সংযোগের দাবি জানাচ্ছি।
জানা গেছে, এক মাসের বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা সত্ত্বেও পল্লী বিদ্যুৎ বরমচাল অভিযোগ কেন্দ্রের জয়নাল আবেদীন তাঁর লোকজনদের নিয়ে ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের শেরপুর গ্রামের বাসিন্দা গ্রাহক লুৎফুর হায়দারের বসতবাড়ির বিদ্যুৎ লাইন গত ২৮ আগস্ট বিচ্ছিন্ন করে দেন। এর প্রেক্ষিতে গত ৮ সেপ্টেম্বর সংবাদ সম্মেলন করে এজিএম নাজমুল হক ও ইনচার্জ জয়নাল আবেদীনের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ তুলে ধরলে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার ১২দিন পর গ্রাহক লুৎফুর হায়দারকে হয়রানিমূলক মামলা দিয়ে গ্রেপ্তার করা হয়।
কুলাউড়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির এজিএম এম নাজমুল হক তারেক বলেন, ওই গ্রাহক পুনঃসংযোগের কোন আবেদন করেননি। আবেদন করলে আমাদের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •