জেলা ও সাত উপজেলার শিক্ষা কর্মকর্তার সমন্বয়ে কমলগঞ্জে এক যোগে সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ

September 5, 2016,

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি॥ “মান সম্মত শিক্ষার জন্য চাই, মানসম্মত শিক্ষক” এই শ্লোগানকে নিয়ে প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে মৌলভীবাজার জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস ও সাত উপজেলার শিক্ষা অফিসের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে গঠিত একটি কমিটি বিভিন্ন ভাগে বিভক্ত হয়ে একযোগে কমলগঞ্জ উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করেন। কমলগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগের আয়োজনে ৫ সেপ্টেম্বর সোমবার সকাল ১০টা থেকে কমলগঞ্জ উপজেলার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো পর্যবেক্ষণ করা হয়।
পর্যবেক্ষণকালে বিদ্যালয়ের ভবন, শ্রেণি কক্ষ, শ্রেণি কক্ষ পাঠদান উপযোগী কিনা, ছাত্রদের ইউনিফর্ম আছে কিনা, বিদ্যালয়ের টয়লেট ছাত্ররা ব্যবহার করে কিনা, পাঠদান পদ্ধতি, বিদ্যালয়ের গড় ফলাফলসহ লেখা পড়ার মান উন্নয়নে করণীয় এসব বিষয়ে নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হয়।  বেলা দুইটার মধ্যে পর্যবেক্ষণ শেষে মধ্যাহ্নভোজের পর শমশেরনগর স্যুইস ভেলী রিসোর্টে পর্যালোচনা ও পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। কমলগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা গকুল চন্দ্র দেবনাথের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম। পর্যালোচনা সভায় পিটিআই মৌলভীবাজার এর সুপার ও ইন্সট্রাক্টর, সাত উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস থেকে আগত পর্যবেক্ষণকারী শিক্ষা কর্মকর্তা, সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা ও উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের ইন্সট্রাক্টররা তাদের বক্তব্যে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের সমস্যা ও সমস্যা থেকে উত্তরণ করে মান সম্মত পাঠদানের বিষয়ে পরামর্শ মূলক মন্তব্য করেন।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেন, কয়েকজন বিভাগীয় কর্মকর্তাকে নিয়ে তিনিও বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যবেক্ষণ করেছেন। এ আয়োজন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের লেখা পড়ার মান বাড়াবে বলেও তিনি মনে করেন। কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক রফিকুর রহমান বলেন, আসলেই এ উদ্যোগ প্রশংসার দাবী রাখে। এভাবে নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করলে বিদ্যালয়গুলো সুন্দরভাবে পরিচালিত হবে ও লেখা পড়ার মান বাড়বে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •