মুক্তিযোদ্ধা আজিজুর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকীতে জেলা পরিষদের দোয়া মাহফিল

August 18, 2021, এই সংবাদটি ১০১ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার॥ বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুর রহমানের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে ১৮ আগস্ট বুধবার বাদ যোহর মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের উদ্যোগে মিলাদ মাহফিল, দোয়া ও শিরনী বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগ সভপতি নেছার আহমদ, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগসাধারণ সম্পাদক মিছবাহুর রহমান, জেলা আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি আজমল হোসেন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালিক তরফদার শোয়েবসহ জেলা পরিষদ সদস্য ও আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ।
মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান, গণপরিষদ সদস্য ও সাবেক সংসদ সদস্য প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুর রহমান ২০২০ সালের ১৮ আগস্ট করোনা আক্রান্ত হয়ে ৭৭বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি ছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্নেহধন্য একজন পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ।
আজিজুর রহমান ১৯৪৩ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর মৌলভীবাজার সদর উপজেলার চাঁদনীঘাট ইউনিয়নের গুজারাই গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। তাঁর বাবার নাম আব্দুল ছাত্তার এবং মায়ের নাম মাহমুদা বেগম (কাঞ্চন বিবি)। তিনি শহরের শ্রীনাথ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক, মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক, মৌলভীবাজার সরকারি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক এবং হবিগঞ্জের বৃন্দাবন সরকারি কলেজ থেকে বি.কম ডিগ্রি অর্জন করেন।
পরিচ্ছন্ন, কর্মীবান্ধব এই রাজনীতিবিদ ২০১১ সালের ২০ ডিসেম্বর মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ প্রশাসক মনোনীত হোন। ২০১৬ সালের ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে তিনি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হোন।
ছাত্রজীবন থেকে মানুষের অধিকার আদায়ের যে আন্দোলনে যুক্ত হয়েছিলেন তার ধারাবাহিকতায় স্বাধীকার, স্বাধীনতার আন্দোলন, সামরিক, স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনসহ দেশের প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তিনি ছিলেন একজন নিবেদিত প্রাণ যোদ্ধা।
১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ পাকবাহিনী তাঁকে গ্রেফতার করে এবং তাঁর ওপর চালায় নির্মম নির্যাতন। মুক্তিযোদ্ধারা সিলেট কারাগার থেকে জেল ভেঙে তাঁকে বের করে নিয়ে আসেন।
তাঁর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ এবং পরিবারের পক্ষ থেকে মিলাদ, দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •