রমজানের শুরুতেই কমলগঞ্জে নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর দাম বৃদ্ধি ॥ দুর্ভোগে নিম্নবিত্তরা

June 8, 2016,

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি॥ পবিত্র রমজান মাসের শুরু থেকেই কমলগঞ্জ উপজেলার সবগুলো হাটবাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর দাম বেড়ে গেছে। রোজা রাখার পর ভাল ইফতার ও খাবার গ্রহনের ভাবনায় ক্রেতারা বাধ্য হয়ে বেশী দামে সামগ্রী কিনতে বাধ্য হলেও নিম্নবিত্তরা  দুর্ভোগে পড়েছেন। কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর, ভানুগাছ, আদমপুর, মুন্সীবাজারসহ বিভিন্ন হাট বাজার ঘুরে এ চিত্র পাওয়া যায়।
১ জুন কমলগঞ্জে মোদী সামগ্রী ছোলা কেজি প্রতি ছিল ৮২ টাকা। এখন কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে (বাজার বেদে) ৯৫ টাকা থেকে ১২০ টাকা দরে। আগে প্রতি কেজি চিনির দাম ছিল ৫০ টাকা। এখন বিক্রি হচ্ছে ৬৫-৬৮ টাকা দরে। তবে সোয়াবিন তেল আগের মতই প্রতি লিটার ৮০ থেকে ৯০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। আগে খেসারী ডাল কেজি প্রতি ছিল ৭৪ টাকা। এখন বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা দরে। মুশুরী ডাল আগে ছিল ১৪০ টাকা, এখন বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা দরে। গুড়া মরিচ আগে ছিল কেজি প্রতি ১৮০ টাকা। এখন বিক্রি হচ্ছে ২২০ টাকা করে। সব্জির ক্ষেত্রে ৪০ টাকা কেজির কালো বেগুন এখন বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা দরে। কাঁচা মরিছ আগে বিক্রি হয়েছিল কেজি প্রতি ৩০ টাকা করে। এখন বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা করে। অন্য দিকে ফার্মের মুরগীর দাম কেজি প্রতি ২০ টাকা করে বেড়ে গেছে। এখন প্রতি কেজি মোরগ বিক্রি হচ্ছে ১৬০ টাকা করে। গরুর মাংস ৪০০ টাকা থেকে বেড়ে এখন ৫০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
দিন মজুর আব্দুল্লাহ মিয়া, শহিদ মিয়া, আং রাজ্জাক, রফিক মিয়া বলেন, রোজাকে মূলধন করে সুবিধাভোগী ব্যবসায়ীরা এসব নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর দাম বাড়িয়ে বিক্রি করছে। যাদের আয় বেশী তারা বেশী দামে এসব সামগ্রী কিনছেন। কিন্তু তাদের সীমিত আয় দিয়ে জিনিসপত্র কেনা সম্ভব হচ্ছে না।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •