রাজিব বাইসাইকেল চালিয়ে ভারতের সবচেয়ে উচু রাস্তায় দেশের পতাকা উড়ালেন

August 28, 2018, এই সংবাদটি ১,০৯৯ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার॥ মৌলভীবাজার সাইক্লিং কমিউনিটির স্বপ্ন দ্রষ্টা রাজীব দে অনিক বাইসাইকেল যোগে এক বিস্ময়কর অভিযানে বের হয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে মৌলভীবাজারবাসীর জন্য নিয়ে এসেছেন এক গৌরবান্বিত অর্জন।
মঙ্গলবার ২৮ আগস্ট দুপুরে মৌলভীবাজার সাইক্লিং কমিউিনিটি কর্তৃক প্রেসক্লাবে মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনের মধ্যে দিয়ে রাজিব জানান, মূলত মৌলভীবাজারবাসীর গর্ব করার মতো একটি আনন্দ সংবাদ সবাইকে জানানোর উদ্দেশ্যে। এই আনন্দের খবরটি শুধু মৌলভীবাজার জেলার নয় গোটা সিলেট বিভাগের জন্য গৌরবের।
“সী টু সামিট হিমালয়ান সাইকেল এক্সপেডিশন” নামের এই বিস্ময়কর যাত্রা ১৭ জুন ২০১৮ইং বাংলাদেশের কক্সবাজারের টেকনাফের শাহ্ পরীর দ্বীপের সমুদ্র পৃষ্টের ০ (শুন্য) ফিট থেকে মৌলভীবাজার সাইক্লিং কমিউনিটির রাজীব দে অনিক, গাজীপুর সাইকেল রাইডার্সের কাজী শরীফ ও জাহাঙ্গীরনগর সাইক্লিং ক্লাবের তোজ্জাম্মেল হোসেন মিলনসহ তিন সদসস্যের সাইক্লিষ্ট দলটি যাত্রা শুরু করে।
সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয়, বাইসাইকেল চালিয়ে দেশের ফুলবাড়ী সীমান্ত দিয়ে ভারতে প্রবেশ করেন তারা। পরে, ভারতের নয়টি প্রদেশ পশ্চিম বঙ্গ, বিহার, ঝাড়খন্ড, উত্তর প্রদেশ, দিল্লী, চন্ডিগড়, পাঞ্জাব, হিমাচল ও জুম্মু কাশ্মির ঘুরে ৬১ দিনে ৫ হাজার ১ শত ১২ কিলোমিটার বাইসাইকেল চালিয়ে গত ১৭ আগষ্ট ২০১৮ইং তারিখে পৌছান। তাদের কাঙ্খিত গন্তব্য বিশ্বের সবচেয়ে উচু যানবাহন চলাচলের রাস্তা খারদুংলা পাস-এ। যার উচ্চতা ১৮ হাজার ৩ শত ৮০ ফুট। দলগত ভাবে বাংলাদেশ থেকে এই বীরত্বপূর্ন অর্জন এই তিনজনেরই প্রথম এবং সিলেট বিভাগ থেকে রাজীব দে অনিক প্রথম সাইক্লিষ্ট, যিনি ১৮৩৮০ ফুট উপরে বাইসাইকেল চালিয়ে বাংলাদেশের পতাকা উড়িয়েছেন। এতে, বাংলাদেশ পররাষ্ট্রৃ মন্ত্রনালয়, বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন, ভারতের বাংলাদেশ হাই-কমিশন ও ভারতীয় হোম অফিস থেকে অনুমতি নিতে হয়।
উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ১১ই মার্চ মৌলভীবাজার সাইক্লিং কমিউনিটি প্রতিষ্ঠার পর থেকে সাইক্লিং এর মাধ্যমে মৌলভীবাজাররের জন্য অনেক অর্জন বয়ে আনে। তারমধ্যে উল্লেখযোগ্য, আমাদের ২ সদস্যের মাত্র ২৩ (তেইশ) দিনে দেশের ৬৪টি জেলা ভ্রমন দেশের একপ্রান্ত থেকে আরেক প্রান্ত টেকনাফ – তেতুলিয়া, ভোমরা – তামাবিল, হালুয়াঘাট – কুয়াকাটা, আমাদের কয়েকজন সদস্য মাদক, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, যৌতুক ও বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে সচেতনতা বৃদ্ধিতে ভ্রমন করেন। এছাড়াও,সামাজিক কর্মকান্ডে ও সাম্প্রতিকালে মৌলভীবাজার জেলায় হয়ে যাওয়া অকাল বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে সর্বাত্মক সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •