শহীদ সাইফুল ইসলাম স্মরণে শ্রীমঙ্গলে ছাত্র মজলিসের আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল

April 30, 2016, এই সংবাদটি ২২৪ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার॥ ছাত্র মজলিসের মৌলভীবাজার জেলা সভাপতি মুহাম্মদ এহসানুল হক বলেন, ছাত্র মজলিসের ৭ম শহীদ সাইফুল ইসলাম সমাজ বিপ্লবের কর্মীদের প্রেরণার উৎস। তাঁর শাহাদত দ্বীন কায়েমের আন্দোলনে নিয়োজিত কর্মীদের অনুপ্রেরণাকে শাণিত করেছে। সাইফুল ইসলামের  স্মৃতি আল্লাহর প্রিয়তা, সংগঠনের প্রতি ও ত্যাগের নজরানা আমাদের জন্য অনুস্মরণীয়।

বৃহস্পতিবার ২৮এপ্রিল রাত সাড়ে নয়টায় শ্রীমঙ্গল ছাত্র মজলিসের উদ্যোগে আয়োজিত শহীদ সাইফুল স্মরণে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথাগুলো বলেন ।

ছাত্র মজলিসের সাবেক ঢাকা জেলা সভাপতি শহীদ সাইফুল ইসলামের ২য় শাহাদত বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ছাত্র মজলিস মজলিস শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার উদ্যোগে ২৮ এপ্রিল, (বৃহস্পতিবার) রাত সাড়ে নয়টায় সংগঠনের শ্রীমঙ্গল উপজেলা কার্যালয়ে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথির আলোচনা পেশ করেন, সংগঠনের মৌলভীবাজার জেলা সভাপতি মুহাম্মদ এহসানুল হক।

ছাত্র মজলিস শ্রীমঙ্গল উপজেলা সভাপতি সাদিকুর রহমানের সভাপতিত্বে ও  উপজেজেলা সেক্রেটারি আতিকুর রহমানের পরিচালনায় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ছাত্র মজেিসর সাবেক শ্রীমঙ্গল উপজেলা সভাপতি হাফেজ শুয়াইবুর রহমান চৌধুরী,  ছাত্র মজলিস শ্রীমঙ্গল উপজেলা তত্ত্বাবধায়ক খালিদ সাইফুল্লাহ প্রমুখ।

প্রসঙ্গত,  বিগত ৫ জানুয়ারি’১৪-ভোটারবিহীন নির্বাচনের আগের রাতে (৪ জানুয়ারি) রাজধানীর ধামরাইতে সংগঠনের একটি ছাত্রাবাসে গভীর রাতে হানা দিয়ে যৌথ বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হন ছাত্র মজলিসের ঢাকা জেলা সভাপতি, সাভার সরকারি কলেজের একাউন্টিংয়ে অনার্স ফাইনাল পরীক্ষার্থী সাইফুল ইসলাম। বিনা মামলায় তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে মিথ্যে মামলা পুলিশের উপর হামলা-গাড়ী ভাঙচুরসহর বিস্ফোরক আইনে মামলায় পুলিশ তাকে অভিযুক্ত করে। দীর্ঘ ৪ মাসে থানায় জেলে বন্দি বাবরবার রিমান্ডে নিয়ে  অবর্ণনিয় নির্যাতন করে তাকে সুপরিকল্পিতভাবে হত্যা করে । ২৪ এপ্রিল লাইফ সাপোর্টে যখন তখন সাইফুলকে জামিন দেয়া আদালত। চারদিন লাইফ সাপোর্টে থাকার পর ২৭ এপ্রিল গভীর রাজধানীর মগবাজারস্থ ইনসাব ডায়াগনস্টিক ও আল-বারাকা কিডনি হাসপাতালে তিনি শাহাদতের অমীয় সুধা পান করেন

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •