শ্রাবণের রাণী দৃষ্টিনন্দন পদ্ম ফুল

August 17, 2021, এই সংবাদটি ৯৩ বার পঠিত

শংকর দুলাল দেব॥ বর্ষা মৌসুমে গ্রামীণ জনপদে পরিচিত একটি ফুলের নাম পদ্ম। হাওর, বিল ও কিছু কিছু পুকুরে লাল, সাদা ও নীল রঙের পদ্ম ফুটে। শাপলা ও পদ্ম দেখতে একই রকম হলেও পদ্ম’র সৌন্দর্য আলাদা এবং শাপলা ও পদ্মের মাঝে বিস্তর ফারাক। অনিন্দ্য সৌন্দর্যের কারণে পদ্মকে জলজ ফুলের রাণী বলা হয়। তাছাড়া শ্রাবণ মাসের শেষের দিকে এই ফুল ফোটে বলে একে শ্রাবণের রাণী বলেও আখ্যায়িত করেছেন গবেষকরা।
সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সংখ্যার দিক দিয়ে তৃতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় অনুষ্ঠান মনষা পূজা পদ্ম ফুল ছাড়া হয়না। প্রতি বছর শ্রাবণী সংক্রান্তিতে মনসা পূঁজা অনুষ্ঠিত হয়। সনাতন বঙ্গাব্দ মতে গতকাল ছিল মনসা পূঁজার দিন। এ পূঁজায় ১০১ টি পদ্মের প্রয়োজন হয়। অনেক সময় পদ্ম পাওয়া না গেলে শাপলা ফুল দিয়ে পূঁজানুষ্ঠান সম্পন্ন করা হয়। তবে ফুলের সংখ্যা বিজোড় হতে হয়। মনষা পূঁজা প্রতি বছর শ্রাবণ মাসের শেষ তারিখে হয়।
জানাযায়, শালুক (শাপলা) দেখতে পদ্মফুলের মতো হলেও শালুক পরিবারের (Nympheaceae) এর সঙ্গে পদ্ম পরিবারের (Nelumbonaceae) খুব একটা নিকটত্ব নেই। এদের পাতা দেখলে সহজেই পৃথক করা যায়। শ্রাবণ থেকে আশি^ন মাস পর্যন্ত গ্রামীন জনপদে পদ্মের খোঁজ মিলে। পদ্মের বিভিন্ন নামের মধ্যে উল্লেখযোগ্য কমল, শতদল, সহস্রদল, মৃনাল, পংকজ, মিরজ, শরজ, নলিনি ইত্যাদি। ‘পদ্ম’ কন্দ জাতীয় ভূ-আশ্রয়ী বহু বর্ষর্জীবী জলজ উদ্ভিদ। এর বৈজ্ঞানিক নাম: Nelumbo nucifera (নিলাম্বো নুচিফেরা)। এর বংশ বিস্তার ঘটে কন্দের মাধ্যমে। পাতা পানির ওপরে ভাসলেও এর কন্দ বা মূল পানির নিচে মাটিতে থাকে। পানির উচ্চতা বৃদ্ধির সঙ্গে গাছ বৃদ্ধি পেতে থাকে। পাতা বেশ বড়, পুরু, গোলাকার ও রং সবুজ। পাতার বোটা বেশ লম্বা, ভেতর অংশ অনেকটাই ফাঁপা থাকে। ফুলের ডাটার ভিতর অংশে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অসংখ্য ছিদ্র থাকে। ফুল আকারে বড় এবং অসংখ্য নরম কোমল পাপড়ির সমন্বয়ে সৃষ্টি পদ্ম ফুলের। ফুল ঊধ্বর্মুখী, মাঝে পরাগ অবস্থিত। ফুটন্ত তাজা ফুলে মিষ্টি সুগন্ধ থাকে। ফুল ফোটে রাত্রি বেলা এবং ভোরবেলা থেকে রৌদ্রের প্রখরতা বৃদ্ধির পূর্ব পযন্ত প্রস্ফুটিত থাকে। মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার মুন্সিবাজার ইনিয়নের মেদেনিমহল বিলে, পাঁচগাও নিউনিয়নের সরকারবাজার পুকুর, উত্তরভাগ ইউনিয়ন, মনসুরনগর ইউনিয়ন ও রাজনগর সদর ইউনিয়নের অনেক গ্রামে সাদা ও লাল রঙের পদ্ম দেখা যায়।
গবেষকদের মতে, পদ্ম’র একটু সুভাষ বেশি, শাপলার সুভাষ তুলনামুলক কম। গাছ দুটো দু’ধরনের জাতের। ফুল, পাতা আলাদা আলাদা। পদ্ম ফুল শাপলা ফুল থেকে আকারে বড়। অপরদিকে পদ্মফুল আকারে ছোট, পাপড়িগুলো চিকন এবং লালচে রঙের। তবে পদ্মফুলে এক জাতীয় ফল হয়। পদ্মকে অনেকে ভারতের জাতীয় ফুল বলে মনে করেন, কিন্তু সাংবিধানিকভাবে তা নয়।
এ ব্যাপারে মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের উদ্ভিদ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মেহেরুন্নেছা বলেন, পদ্ম আর শাপলা এক নয়। এদের নাম, পরিবার ও আকার ভিন্ন। গ্রামীণ জনপদের অনেকেই শাপলা আর পদ্মকে নিশ্চিত করতে চিন্তায় পড়ে যান। তিনি বলেন, জাতীয় ফুল শাপলা আর ফুলের রাণী পদ্ম। শ্রাবণ মাসের শেষের দিকে এই ফুল ফুটে বলে গবেষকেরা একে শ্রাবণের রাণী বলেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •