শ্রীমঙ্গলে গরু চুরি বৃদ্ধির প্রতিবাদে সভা অনুষ্ঠিত

September 4, 2021, এই সংবাদটি ৬৮ বার পঠিত

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি॥ শ্রীমঙ্গলের প্রবীণ মুরব্বি হাজী মুছাব্বির আল মাসুদ এর উদ্যেগে গরু চুরির প্রতিবাদে এলাকা থেকে চুরি উত্তরণে করনীয় বিষয়ক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শুক্রবার ৩ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় উপজেলার কালাপুর ইউনিয়নের কাকিয়া বাজারে উক্ত ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও সাবেক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মতলিব মিয়ার সভাপতিত্বে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।
হাজী মুসাব্বির আল মাসুদের ডাকে সাড়া দিয়ে স্থানীয় বিভিন্ন পর্যায়ের মুরুব্বীসহ এলাকার প্রায় তিন শতাধিক লোক সভায় অংশ নেন।
এসময় কালাপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে গরু চুরি বৃদ্ধির প্রতিবাদ জানিয়ে বক্তব্য রাখেন, মৌলভীবাজার জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি ফজলুর রহমান ফজলু, উপজেলা আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক শেখ উপরু মিয়া, ইউপি সদস্য মোঃ আব্দুল মুকিত, বিশিষ্ট সমাজ সেবক তুহিন চৌধুরী, বিশিষ্ট মুরব্বি, ফজলু নুর ভূঁইয়া, কাজল মিয়া, ফুল মিয়া ভূঁইয়া, মোঃ ছালামত মিয়া, মোঃ মাসুক বক্ ও কদর আলী প্রমুখ।
সভায় বক্তারা বলেন, চলতি বছর কালাপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের প্রায় ৪৫ থেকে ৫০টি গরু চুরি হয়। এর মধ্যে প্রশাসনের সহযোগিতায় কিছু গরু উদ্ধার করা হয়েছে। তারা বলেন, অন্যান্য সময়ের তুলনায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি খুবই ভাল ছিল। তবে হঠাৎ করে ইদানিং গরু চুরি বেড়ে গেছে। বক্তারা বলেন, এলাকায় কিছু চিহ্নিত গরুচোর রয়েছে। তাদের সহযোগিতায় মৌলভীবাজার সদর থানা এলাকা থেকে চোরেরা এসে গরু চুরি করে নিয়ে যায়। ইতিমধ্যে চুরি করে নিয়ে যাওয়া কিছু গরু সেখান থেকে পুনরায় টাকার বিনিময়ে ছুটিয়ে আনা হয়েছে। যা অত্যন্ত দুঃখজনক। তারা আরও বলেন, যেসব লোক গরু পালন করেন তারা নিতান্তই গরীব মানুষ, গরু গুলোই তাদের একমাত্র সম্বল। গরু গুলো যখন চুরি হয় তারা সর্বস্বান্ত হয়ে পড়ে।
সভার উদ্যোক্তা হাজী মুছাব্বির আল মাসুদ বলেন, আগামী ১৫ দিনের মধ্যে এলাকার সবাইকে নিয়ে স্থানীয় যারা গরু চুরির সাথে জড়িত তাদের সাথে বৈঠক করা হবে। সেখানে তারা যেন চুরি না করে সেজন্য তাদের পূর্ণবাসনের ব্যবস্থা করা হবে। তিনি বলেন, সমাজ ব্যবস্থা যে অবনতি হয়েছে তার থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। পরবর্তী প্রজন্মকে একটি পরিচ্ছন্ন ও সুস্থ সমাজ উপহার দেয়ার লক্ষ্যে ইউনিয়নের গ্রামে গ্রামে সভা করে জনসচেতনতা বাড়াতে হবে। বিশেষ করে উঠতি বয়সী যুবকদের নেশার কবল থেকে দূরে রাখা দরকার। সেই লক্ষ্যে সবার সাথে বসে আলোচনা করে রাস্তা বের করা হবে। তিনি বলেন, সকলে সহযোগিতা করলে শ্রীমঙ্গল উপজেলার মাঝে কালাপুর ইউনিয়নকে একটি মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •