শ্রীমঙ্গল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডাক্তারের  ভুল চিকিৎসায় ৮ মাস বয়সি শিশুটি মরতে বসেছিল

May 8, 2016, এই সংবাদটি ১৮৮ বার পঠিত

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি॥ শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৮ মাস বয়সী এক শিশুকে ভুল চিকিৎসা দেয়া হয়েছে । ভাল স্বাস্থ্য সেবা পাওয়ার জন্য ১ মে রোববার লাখাইছড়া চা বাগানের চা শ্রমিক মিলন শীল তার ৮ মাস বয়সী শিশু পুত্র বাপ্পী শীলের প্রচন্ড জ্বর হলে তাকে শ্রীমঙ্গল হাসপাতালে নিয়ে আসে। রাত ৮ টায় বাপ্পী শীলকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ৪ নং বেডে ভর্ত্তি করা হয় । বুধবারে বাপ্পী শীলের অবস্থার উন্নতি হলে তাকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয় । ছাড় পত্র দেবার সময় কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে কিছু ঔষধের নাম লিখে দেন ।

মেডিকেল অফিসার ডা রিপা পালের স্বাক্ষরিত এ ব্যাবস্থাপত্র হাতে পেয়ে চক্ষু কপালে উঠে যায় রোগীর নিকটাতœীয় চিকিৎসক জনাব আব্দুস সাত্তারের। তিনি জানান, লিখিত সকল ঔষধই বড়দের এবং এ ঔষধগুলো শিশুটির জন্য প্রানঘাতী । বিষয়টি নিয়ে হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা ডাঃ মহসীনের সাথে যোগাযোগ করলে তিনিও জানান আমরা ডাঃ রিপা পালকে শোকজ করেছি। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ডাঃ রিপা পালের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায় নি।

বিষয়টি নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ জয়নাল আবেদিন টিটুর সথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন আমি বিষয়টি শুনেছি।  ব্যবস্থাপত্রের স্বাক্ষরের সাথে কর্তব্যরত ডাক্তারের স্বাক্ষর মিলছে না। ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে । তদন্ত রিপোর্টের ভিত্তিতে ব্যস্থা নেয়া হবে ।

সিনিয়র একাধিক ডাক্তাররা এটিকে অমার্জনীয় ভুল বলে আখ্যায়িত করেন বলেন এতে বাচ্চাটির মারা যাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশী ছিল।

 

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •