সততার বিরল দৃষ্টান্ত !

April 17, 2016, এই সংবাদটি ২০৫ বার পঠিত

বড়লেখা প্রতিনিধি॥ বড়লেখায় কুঁড়িয়ে পাওয়া স্বর্ণালঙ্কার প্রকৃত মালিককে ফিরিয়ে দিয়ে সততার বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন মধ্যবিত্ত পরিবারের গৃহবধু মাবিয়া আক্তার মুক্তা। তিনি উপজেলার গাংকুল গ্রামের শহিদুল ইসলামের স্ত্রী।

জানা গেছে, বুধবার ১৩ এপ্রিল বিকেলে বড়লেখা পৌর শহরের আব্দুল আলী ট্রেড সেন্টারের সামনে কাগজে মোড়ানো পরিত্যাক্ত একটি পুটলা দেখে হাতে নিয়ে খোলার পর এতে পৌনে তিন ভরি ওজনের একটি স্বর্ণের চেইন দেখতে পান গৃহবধু মুক্তা। এদিন উপজেলার শাহবাজপুর এলাকার প্রবাসীর স্ত্রী পপি বেগম মাকের্টিং করতে গিয়ে স্বর্ণের চেইন ফেলে যান। মুক্তার স্বামী শহিদুল ইসলাম কুড়িয়ে স্বর্ণের চেইন পাওয়ার বিষয়টি বড়লেখা হাজীগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ি সমিতির সাধরণ সম্পাদক ছাদ উদ্দিনকে অবহিত করেন। ছাদ উদ্দিন চেইনের প্রকৃত মালিককে খোঁজে বের করতে উপজেলা জুড়ে মাইকিং করান।

খবর পেয়ে স্বর্ণালঙ্কারের প্রকৃত মালিক পপি বেগম হাজীগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ি সমিতির সাধারণ সম্পাদক ছাদ উদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করে নিজের হারানো চেইন সনাক্ত করেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় ছাদ উদ্দিনের উপস্থিতিতে পপি বেগমের হাতে স্বর্ণের চেইনটি তুলে দেন মাবিয়া আক্তার মুক্তা।

ছাদ উদ্দিন চেইনের প্রকৃত মালিকের কাছে তা হস্তান্তরের সত্যত্য নিশ্চিত করে জানান, চেইনটির বাজার মূল্য লক্ষাধিক টাকা। প্রকৃত মালিকের কাছে মূল্যবান স্বর্ণালঙ্কারটি ফিরিয়ে দিয়ে গৃহবধু মাবিয়া আক্তার মুক্তা সততার যে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন তা স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •