সিলেট বিভাগের চা বাগানের শিশু ও নারীর সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে বিশ্লেষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

May 19, 2016, এই সংবাদটি ২১১ বার পঠিত

স্টাফ রিপোটার॥ সিলেট বিভাগীয় কমিশনারের উদ্যোগে চা বাগানের শিশু ও নারীদের স্বাস্থ্য, শিক্ষা, পুষ্টি ও শিশু সুরক্ষা বিষয়ক সার্বিক পরিস্থিতি বিশ্লেষণে কর্মশালা আয়োজন করা হয়।
১৭ মে মঙ্গলবার শ্রীমঙ্গলস্থ গ্র্যান্ড সুলতান টি রিসোর্টে জেলা প্রসাশন ও চা বাগানের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাদের অংশগ্রহনে “সিলেট বিভাগের চা বাগানের শিশু ও নারী পরিস্থিতি” শীর্ষক আয়োজিত এই কর্মশালায় সহায়তা করে ইউনিসেফ বাংলাদেশ।
মৌলভাবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল হাসানে সভাপতিত্বে ও বিভাগীয় কনভার্জেন্স সমন্বয় কমিটির সদস্যগণের উপস্থিতিতে আয়োজিত এই কর্মশালার উদ্বোধনী অধিবেশনে বক্তব্য রাখেন উপমহা পুলিশ পরিদর্শক মিজানুর রহমান (পিপিএম), বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডাঃ গৌর মনি সিনহা, ঢাকাস্থ ইউনিসেফ বাংলাদেশের ফিল্ড সার্ভিসেস এর প্রধান সারা বোর্দাস এডি ও ইউনিসেফ সিলেট কার্যালয়ের প্রধান কাজী দিল আফরোজা ইসলাম প্রমুখ ।
সিলেট কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার মোঃ জামাল উদ্দীন আহমেদ। আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ চা বাগান এ্যাসোসিয়েশন সিলেট শাখার চেয়ারম্যান শিবলী আহমেদ এবং ন্যাশনাল টি গার্ডেন-এর ডেপুটি ম্যানেজার এ এস এম শাহজাহান।
কর্মশালায় চা বাগানে শিশু পরিস্থিতি বিষয়ে দু’টি গবেষণালব্ধ প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃতত্ত্ব বিভাগের প্রধান অধ্যাপক মাযহার মোর্শারফ প্রথম উপস্থাপনায় শিশুদের স্বাস্থ্য, শিক্ষা, পয়:নিষ্কাশষণ, শিশু সুরক্ষা বিষয়ক একটি সার্বিক চিত্র তুলে ধরেন।
দ্বিতীয় উপস্থাপনায় মৌলভীবাজার জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) প্রকাশ কান্তি চৌধুরী, চা বাগানের নারী ও শিশুদের সেবা পরিস্থিতি বিষয়ে সুনির্দিষ্ট তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপন করেন। দু’টি গবেষণার ফলাফল থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী কিছু সুপারিশ তুলে ধরা হয়। তাঁরা জাতীয় উন্নয়ন কৌশল ও পরিকল্পনায় চা বাগানকে বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে বলে সুপারিশ করেন।
‘চা বাগানে বিভিন্ন উন্ন্য়ন কার্যক্রম গ্রহণের ক্ষেত্রে কৌশল ও পরিকল্পনা নির্ধারনের শুরু থেকেই বাগান কর্তৃপক্ষকে সম্পৃক্ত করা জরুরী’ বলে অভিমত দেন হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক সাবিনা আলম।
কর্মশালায় সিলেটের জেলা প্রশাসক জয়নাল আবেদীন মতমত দেন যে, চাবাগানের নারী ও শিশুদের বিভিন্ন চাহিদার বিষয়ে বিবেচনা করে জাতীয় বাজেটে বিশেষ বরাদ্দ রাখা প্রয়োজন। বক্তারা অভিমত দেন যে জাতীয় বাজেট ও অন্যান্য কর্মসূচীতে চা বাগানকে গুরুত্বের সাথে উল্লেখ করতে হবে।
কর্মশালার শেষে সর্বসম্মতিক্রমে চা বাগানের নারী ও শিশুর সেবা বিষয়ক চারটি টাস্কফোর্স গঠনের সিদ্ধান্ত হয়।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •