মৌলভীবাজারে পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির মিছিল ও স্মারকলিপি প্রদান

September 9, 2013, এই সংবাদটি ২৭৫ বার পঠিত

শিক্ষা আইন ২০১৩ এর কয়েকটি ধারা-উপধারা বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ ও জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি মৌলভীবাজার জেলা শাখা। ৯ সেপ্টেম্বর সোমবার বেলা বারোটায় বিক্ষোভ মিছিলটি শহরের শহীদ মিনার প্রাঙ্গন থেকে শুরু হয়ে জেলা কালেক্টরেট ভবনের সম্মুখে এসে শেষ হয়। এসময় সমাবেশে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন, সমিতির জেলা শাখার সভাপতি জোবের আহমদ, সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমদ যোবের, এস.এম.এ রউফ, আব্দুল হামিদ হক, মোঃ সামারুজ্জামান সহ জেলার সকল পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতাগন প্রমুখ। বক্তারা বলেন, উল্লেখিত ধারাসমূহ প্রণীত হলে পর্যাপ্ত বই এর অভাবে জ্ঞান, বিজ্ঞান চর্চা ও গবেষণা ব্যাহত হবে। এছাড়া প্রকাশনা শিল্পের সাথে জড়িত ছাপাখানা, বাঁধাই কারখানা, বই বিক্রেতা ও প্রকাশকরা যেমন ক্ষতির সম্মুখীন হবেন তেমনি দেশ জুড়ে এই শিল্পের সাথে জড়িত প্রায় ২৫ লাখ লোক বেকার হয়ে পড়বে। সমাবেশ শেষে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দেওয়া হয়।
শিক্ষা আইন ২০১৩ এর কয়েকটি ধারা-উপধারা বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ ও জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি মৌলভীবাজার জেলা শাখা। ৯ সেপ্টেম্বর সোমবার বেলা বারোটায় বিক্ষোভ মিছিলটি শহরের শহীদ মিনার প্রাঙ্গন থেকে শুরু হয়ে জেলা কালেক্টরেট ভবনের সম্মুখে এসে শেষ হয়। এসময় সমাবেশে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন, সমিতির জেলা শাখার সভাপতি জোবের আহমদ, সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমদ যোবের, এস.এম.এ রউফ, আব্দুল হামিদ হক, মোঃ সামারুজ্জামান সহ জেলার সকল পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতাগন প্রমুখ। বক্তারা বলেন, উল্লেখিত ধারাসমূহ প্রণীত হলে পর্যাপ্ত বই এর অভাবে জ্ঞান, বিজ্ঞান চর্চা ও গবেষণা ব্যাহত হবে। এছাড়া প্রকাশনা শিল্পের সাথে জড়িত ছাপাখানা, বাঁধাই কারখানা, বই বিক্রেতা ও প্রকাশকরা যেমন ক্ষতির সম্মুখীন হবেন তেমনি দেশ জুড়ে এই শিল্পের সাথে জড়িত প্রায় ২৫ লাখ লোক বেকার হয়ে পড়বে। সমাবেশ শেষে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দেওয়া হয়। স্টাফ রিপোর্টার॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •