কমলগঞ্জে তেলেগু ব্যাপিষ্ট চার্চের সংবাদ সম্মেলন তেলেগু জনগোষ্ঠীর সাংবিধানিক স্বীকৃতির দাবি

December 24, 2013, এই সংবাদটি ৩৫৫ বার পঠিত

সরকারের তালিকায় তেলেগু জনগোষ্ঠীর সাংবিধানিক স্বীকৃতি, স্টার সান ডে-তে সরকারী ছুটি, খ্রীস্টান শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ধর্মীয় শিক্ষক নিয়োগ, অবাধে ধর্ম পালনের নিশ্চয়তা, সংখ্যালঘুদের উপর ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে হামলাকারীদের চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে নাজারেথ তেলেগু ব্যাপিষ্ট চার্চ, শমশেরনগর। ২৩ ডিসেম্বর সোমবার দুপুরে কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর চা বাগান এলাকায় তেলেগু ব্যাপিষ্ট চার্চ সংবাদ সম্মেলন করে সরকারের কাছে এসব দাবি তুলে ধরেছেন। নাজারেথ তেলেগু ব্যাঃ চার্চ শমশেরনগরের চার্চ পালক আপ্পানা পিরেগু এর সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন দাবি তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন শমশেরনগর ইউপি সদস্য মেরী রালফ ও চার্চ মুখপাত্র মিখা পিয়েগু। তেলেগু মুখপাত্র বলেন, বৃহত্তর সিলেটের অন্যতম নাজারেথ তেলেগু ব্যাঃ চার্চ। সরকারী বেসরকারী সহযোগীতা থেকে তারা বিভিন্ন সময়ে বঞ্চিত হচ্ছেন। তিনি আরও বলেন, পুলিশি পাহারা দিয়ে ধর্মীয় অনুষ্ঠান সেটা ঠিক নয়। আমরা স্বাধীনভাবে নিরাপদে ধর্মীয় অনুষ্ঠানের নিশ্চয়তা চাই। আমাদের ভাষা, সংস্কৃতি ও কৃষ্টি আলাদা। আমরা কোন উপজাতি নই। ক্ষুুদ্র জাতিগোষ্ঠী হিসাবে তেলেগুদের সাথে বিভিন্ন সময়ে বৈষম্যমুলক আচরণ করা হয়। এসবের প্রতিকার দাবী করেন।
সরকারের তালিকায় তেলেগু জনগোষ্ঠীর সাংবিধানিক স্বীকৃতি, স্টার সান ডে-তে সরকারী ছুটি, খ্রীস্টান শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ধর্মীয় শিক্ষক নিয়োগ, অবাধে ধর্ম পালনের নিশ্চয়তা, সংখ্যালঘুদের উপর ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে হামলাকারীদের চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে নাজারেথ তেলেগু ব্যাপিষ্ট চার্চ, শমশেরনগর। ২৩ ডিসেম্বর সোমবার দুপুরে কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর চা বাগান এলাকায় তেলেগু ব্যাপিষ্ট চার্চ সংবাদ সম্মেলন করে সরকারের কাছে এসব দাবি তুলে ধরেছেন। নাজারেথ তেলেগু ব্যাঃ চার্চ শমশেরনগরের চার্চ পালক আপ্পানা পিরেগু এর সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন দাবি তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন শমশেরনগর ইউপি সদস্য মেরী রালফ ও চার্চ মুখপাত্র মিখা পিয়েগু। তেলেগু মুখপাত্র বলেন, বৃহত্তর সিলেটের অন্যতম নাজারেথ তেলেগু ব্যাঃ চার্চ। সরকারী বেসরকারী সহযোগীতা থেকে তারা বিভিন্ন সময়ে বঞ্চিত হচ্ছেন। তিনি আরও বলেন, পুলিশি পাহারা দিয়ে ধর্মীয় অনুষ্ঠান সেটা ঠিক নয়। আমরা স্বাধীনভাবে নিরাপদে ধর্মীয় অনুষ্ঠানের নিশ্চয়তা চাই। আমাদের ভাষা, সংস্কৃতি ও কৃষ্টি আলাদা। আমরা কোন উপজাতি নই। ক্ষুুদ্র জাতিগোষ্ঠী হিসাবে তেলেগুদের সাথে বিভিন্ন সময়ে বৈষম্যমুলক আচরণ করা হয়। এসবের প্রতিকার দাবী করেন। কমলগঞ্জ প্রতিনিধি॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •