৬০ ঘন্টার হরতাল শেষ দিনেও ব্যারিকেট : যানচলাচল বন্ধ : নাসেরের নেতৃত্বে ১৮ দলের সমাবেশ : বড়লেখায় সংঘর্ষে আহত ১০

October 29, 2013, এই সংবাদটি ২৬২ বার পঠিত

রাস্তা ব্যারিকেট, বাশ, ইট, লাটি দিয়ে ঢাকা-সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ ও খন্ড খন্ড মিছিলের মাধ্যমে মৌলভীবাজারে ১৮ দলীয় জোটের ডাকা ৬০ ঘন্টার হরতাল শেষ হয়েছে। ২০ অক্টোবর বুধবার দূপুর সাড়ে ১২ টায় বড়লেখা উপজেলায় ছাত্রলীগ ও ছাত্র শিবিরের মুখোমুখি সংঘর্ষে দু গ্রুফের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। সকাল ৮ টায় জেলা শহরের জুগিডর এলাকায় লাটি হাতে নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে বিএনপি, জামায়াত সহ ১৮ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা। সমশের নগর, চাদঁনীঘাট ও শ্রীমঙ্গল সড়কে ১৮দলীয় জোট নেতা-কর্মীরা রাস্তায় চেয়ার-টেবিল নিয়ে বসে ব্যারিকেট দিয়ে পিকেটিং করে এবং সরকার বিরোধী শ্লোগান দেয়। দুপুরে ১৮ দলের উদ্যেগে স্থানীয় চৌমুহনা চত্বরে এক সমাবেশ অনুষ্টিত হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ১৮ দলের আহবায়ক জেলা বিএনপির সভাপতি এম নাসের রহমান, যুগ্ম আহবায়ক জেলা জামায়াতের আমীর আব্দুল মান্নান, যুগ্ম আহবায়ক অধ্যাপক মাওঃ আব্দুস সবুর, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি এডভোকেট মুজিবুর রহমান মুজিব, আলহাজ্ব ইউসুফ আলী, বিএনপি নেতা এডভোকেট আনোয়ারা আক্তার শিবলী, মৌলভীবাজার জেলা জামায়াত সেক্রেটারী এম শাহেদ আলী, সদর থানা বিএনপির আহ্বায়ক মৌলভী আব্দুল ওয়ালী সিদ্দিকী, যুগ্না আহ্বায়ক মোঃ ফখরুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় যুবদল নেতা মতিন বক্স, মৌলভীবাজার জামায়াতের পৌর আমীর ইয়ামীর আলী, জামায়াত সদর উপজেলা আমীর আলাউদ্দিন শাহ, যুবদল নেতা মুজিবুর রহমান মজনু, মোবারক আহমদ, জাবেদ আহমদ, ছাত্রশিবির মৌলভীবাজার শহর সভাপতি হাফেজ তাজুল ইসলাম, ছাত্রশিবির মৌলভীবাজার জেলা সভাপতি দেলোওয়ার হোসেন, জেলা ছাত্রদলের যুগ্না আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেন কামাল, ছাত্রশিবির শহর সেক্রেটারী ফখরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মুর্শেদ আহমদ চৌধরী, আলী সদ্ধর খান বাবর, কলেজ ছাত্রদল সভাপতি আব্দুল হাই টিগলু, রিপন আহমদ, শাওন খান, টিটুসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। সমাবেশে বক্তার বলেন গত ৫ বছরে সরকারের দুর্নীতি, দুঃশাসন, আকাশছোয়া দ্রব্যমূল্য, চরম জনদুর্ভোগ, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি, বিরোধী দলের ওপর নির্যাতন, গ্যাস, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে এবং খুন, গুম ও শেয়ারবাজার লুটের সাথে জড়িতদের বিচার, প্রশ্নবদ্ধ ও বিতর্কিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল বাতিল, যুদ্ধাপরাধের বিচারের নামে প্রহসন বন্ধ, জামায়াতে ইসলামীর আমীর মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী, সাবেক আমীর অধ্যাপক গোলাম আযম, নায়েবে আমীর মাওলানা দেলওয়ার হোসাইন সাঈদী, সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামানসহ আটক নেতা-কর্মীদের মুক্তি, আওয়ামী লীগ সরকারের পদত্যাগ, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষ্যে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার পুনর্বহাল করার দাবি জানান। সহ জোটের নেতৃবৃন্ধ। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। এছাড়াও জেলার অন্যান্য উপজেলায় শান্তিপূর্নভাবে হরতাল পালিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। অপর দিকে জেলা বিএনপির একাংশের নেতা ফয়জুল করিম ময়ুন ও মোয়াজ্জেম হোসেন মাতুক এর নেতৃত্বেহরতালের সমর্থনে শহরে মিছিল বের হয়। পরে পশ্চিম বাজার এলাকায় এক সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মিজানুর রহমান মিজান, জাকির হোসেন উজ্জল, তপধীর রায় বরুন, কাউন্সিলর স্বাগতকিশোর দাস প্রমুখ।
রাস্তা ব্যারিকেট, বাশ, ইট, লাটি দিয়ে ঢাকা-সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ ও খন্ড খন্ড মিছিলের মাধ্যমে মৌলভীবাজারে ১৮ দলীয় জোটের ডাকা ৬০ ঘন্টার হরতাল শেষ হয়েছে। ২০ অক্টোবর বুধবার দূপুর সাড়ে ১২ টায় বড়লেখা উপজেলায় ছাত্রলীগ ও ছাত্র শিবিরের মুখোমুখি সংঘর্ষে দু গ্রুফের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। সকাল ৮ টায় জেলা শহরের জুগিডর এলাকায় লাটি হাতে নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে বিএনপি, জামায়াত সহ ১৮ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা। সমশের নগর, চাদঁনীঘাট ও শ্রীমঙ্গল সড়কে ১৮দলীয় জোট নেতা-কর্মীরা রাস্তায় চেয়ার-টেবিল নিয়ে বসে ব্যারিকেট দিয়ে পিকেটিং করে এবং সরকার বিরোধী শ্লোগান দেয়। দুপুরে ১৮ দলের উদ্যেগে স্থানীয় চৌমুহনা চত্বরে এক সমাবেশ অনুষ্টিত হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ১৮ দলের আহবায়ক জেলা বিএনপির সভাপতি এম নাসের রহমান, যুগ্ম আহবায়ক জেলা জামায়াতের আমীর আব্দুল মান্নান, যুগ্ম আহবায়ক অধ্যাপক মাওঃ আব্দুস সবুর, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি এডভোকেট মুজিবুর রহমান মুজিব, আলহাজ্ব ইউসুফ আলী, বিএনপি নেতা এডভোকেট আনোয়ারা আক্তার শিবলী, মৌলভীবাজার জেলা জামায়াত সেক্রেটারী এম শাহেদ আলী, সদর থানা বিএনপির আহ্বায়ক মৌলভী আব্দুল ওয়ালী সিদ্দিকী, যুগ্না আহ্বায়ক মোঃ ফখরুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় যুবদল নেতা মতিন বক্স, মৌলভীবাজার জামায়াতের পৌর আমীর ইয়ামীর আলী, জামায়াত সদর উপজেলা আমীর আলাউদ্দিন শাহ, যুবদল নেতা মুজিবুর রহমান মজনু, মোবারক আহমদ, জাবেদ আহমদ, ছাত্রশিবির মৌলভীবাজার শহর সভাপতি হাফেজ তাজুল ইসলাম, ছাত্রশিবির মৌলভীবাজার জেলা সভাপতি দেলোওয়ার হোসেন, জেলা ছাত্রদলের যুগ্না আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেন কামাল, ছাত্রশিবির শহর সেক্রেটারী ফখরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মুর্শেদ আহমদ চৌধরী, আলী সদ্ধর খান বাবর, কলেজ ছাত্রদল সভাপতি আব্দুল হাই টিগলু, রিপন আহমদ, শাওন খান, টিটুসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। সমাবেশে বক্তার বলেন গত ৫ বছরে সরকারের দুর্নীতি, দুঃশাসন, আকাশছোয়া দ্রব্যমূল্য, চরম জনদুর্ভোগ, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি, বিরোধী দলের ওপর নির্যাতন, গ্যাস, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে এবং খুন, গুম ও শেয়ারবাজার লুটের সাথে জড়িতদের বিচার, প্রশ্নবদ্ধ ও বিতর্কিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল বাতিল, যুদ্ধাপরাধের বিচারের নামে প্রহসন বন্ধ, জামায়াতে ইসলামীর আমীর মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী, সাবেক আমীর অধ্যাপক গোলাম আযম, নায়েবে আমীর মাওলানা দেলওয়ার হোসাইন সাঈদী, সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামানসহ আটক নেতা-কর্মীদের মুক্তি, আওয়ামী লীগ সরকারের পদত্যাগ, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষ্যে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার পুনর্বহাল করার দাবি জানান। সহ জোটের নেতৃবৃন্ধ। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। এছাড়াও জেলার অন্যান্য উপজেলায় শান্তিপূর্নভাবে হরতাল পালিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। অপর দিকে জেলা বিএনপির একাংশের নেতা ফয়জুল করিম ময়ুন ও মোয়াজ্জেম হোসেন মাতুক এর নেতৃত্বেহরতালের সমর্থনে শহরে মিছিল বের হয়। পরে পশ্চিম বাজার এলাকায় এক সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মিজানুর রহমান মিজান, জাকির হোসেন উজ্জল, তপধীর রায় বরুন, কাউন্সিলর স্বাগতকিশোর দাস প্রমুখ। স্টাফ রিপোর্টার॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •