কমলগঞ্জে ১৩ লাখ মুল্যের ভারতীয় শাড়ীসহ আটক ২

December 19, 2013, এই সংবাদটি ৪৪৩ বার পঠিত

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে পাচারকালে প্রায় ১৩ লাখ টাকা মুল্যের ২৫০ পিছ ভারতীয় শাড়ীসহ ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ। গত ১৭ ডিসেম্বর মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯ টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভানুগাছ বাজার চৌমুহনী থেকে গাড়ীসহ এসব শাড়ী আটক করে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কুলাউড়া উপজেলার ব্রাক্ষ্মনবাজার হতে শ্রীমঙ্গলের উদ্যোশে প্রচুর পরিমান অবৈধ ভারতীয় শাড়ী টয়েটা টু ওয়ানস মাইক্রোবাস (ঢাকা মেট্রো চ ১৪-০০৪২) যোগে পাচার হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কমলগঞ্জ থানার ওসি নীহার রঞ্জন নাথ,ওসি (তদন্ত) বদরুল ইসলাম ও এসআই আনজিরের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম রাত সাড়ে ৯টায় ভানুগাছ বাজারে শাড়ী ভর্তি গাড়ীটি আসা মাত্র গাড়ী চালক কুলাউড়া মির্জাপুর গ্রামের কামরুল ইসলাম, সহযোগী শ্রীমঙ্গলের সাতগাঁও গ্রামের অরুন গোয়ালাসহ শাড়ী ভর্তি গাড়ীটি আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। গাড়ীতে প্রায় ৫টি কার্টুনের ভিতরে ২৫০ পিছ ভারতীয় দামী জর্জেট শাড়ি পাওয়া যায়। যার আনুমানিক বাজার মুল্য প্রায় ১৩ লাখ টাকা। এ ব্যাপারে বুধবার কমলগঞ্জ থানার এসআই আনজির হোসেন বাদী হয়ে ৪ জনকে আসামী করে ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে কমলগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন (মামলা নং ১১, তাং ১৮/১২/২০১৩ইং)। গতকাল বুধবার কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নীহার রঞ্জন নাথ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ব্যাপারে ৪ জনকে আসামী করে কমলগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে। শাড়ীর প্রকৃত মালিক কে তা তদন্ত করা হচ্ছে।
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে পাচারকালে প্রায় ১৩ লাখ টাকা মুল্যের ২৫০ পিছ ভারতীয় শাড়ীসহ ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ। গত ১৭ ডিসেম্বর মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯ টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভানুগাছ বাজার চৌমুহনী থেকে গাড়ীসহ এসব শাড়ী আটক করে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কুলাউড়া উপজেলার ব্রাক্ষ্মনবাজার হতে শ্রীমঙ্গলের উদ্যোশে প্রচুর পরিমান অবৈধ ভারতীয় শাড়ী টয়েটা টু ওয়ানস মাইক্রোবাস (ঢাকা মেট্রো চ ১৪-০০৪২) যোগে পাচার হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কমলগঞ্জ থানার ওসি নীহার রঞ্জন নাথ,ওসি (তদন্ত) বদরুল ইসলাম ও এসআই আনজিরের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম রাত সাড়ে ৯টায় ভানুগাছ বাজারে শাড়ী ভর্তি গাড়ীটি আসা মাত্র গাড়ী চালক কুলাউড়া মির্জাপুর গ্রামের কামরুল ইসলাম, সহযোগী শ্রীমঙ্গলের সাতগাঁও গ্রামের অরুন গোয়ালাসহ শাড়ী ভর্তি গাড়ীটি আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। গাড়ীতে প্রায় ৫টি কার্টুনের ভিতরে ২৫০ পিছ ভারতীয় দামী জর্জেট শাড়ি পাওয়া যায়। যার আনুমানিক বাজার মুল্য প্রায় ১৩ লাখ টাকা। এ ব্যাপারে বুধবার কমলগঞ্জ থানার এসআই আনজির হোসেন বাদী হয়ে ৪ জনকে আসামী করে ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে কমলগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন (মামলা নং ১১, তাং ১৮/১২/২০১৩ইং)। গতকাল বুধবার কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নীহার রঞ্জন নাথ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ব্যাপারে ৪ জনকে আসামী করে কমলগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে। শাড়ীর প্রকৃত মালিক কে তা তদন্ত করা হচ্ছে। কমলগঞ্জ প্রতিনিধি॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •