মন্দিরের শিবলিঙ্গ চুরির ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহ শ্রীমঙ্গল থেকে আটক-৬

July 10, 2013, এই সংবাদটি ৩২৪ বার পঠিত

মৌলভীবাজারের শমশেরনগর চা বাগানে মন্দিরে দুটি শিবলিঙ্গ চুরির ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহ ৬ জনকে শ্রীমঙ্গল থেকে আটক করছে পুলিশ। গত ৯ জুলাই মঙ্গলবার রাত্র ৮টার দিকে কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক মো. আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে ও শ্রীমঙ্গল থানার এস আই হুমায়ুন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে শহর ও শহরতলীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদেরকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা দক্ষিণ উত্তরসুর গ্রামের বিলাল মিয়া (২৮), উত্তর-উত্তরসুর গ্রামের মাছ ব্যবসায়ী ছোবহান মিয়া (২৮) বড়লেখা উপজেলার মনির হোসেন (৩০) শ্রীমঙ্গল হোটেল ইউনাইটেডের ম্যানেজার জুবায়ের আহমেদ (৩৫), কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুর গ্রামের হাসানুর রহমান বাবলু (৩০) ও বিপ্লব (২৯)। আটককৃতদের কমলগঞ্জ থানায় জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। তবে হোটেল ম্যানেজারের পরিবারের দাবী সে ষড়যন্ত্রের শিকার। তার আটকের বিষয়টি নিয়ে সচেতন মহল প্রশ্ন বিদ্ধ। আটকৃকতদের কাছ থেকে শিবলিঙ্গ উদ্ধার করা যায়নি। প্রসঙ্গত গত ৭ জুলাই রবিবার কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর চা-বাগানে মন্দিরের তালা ভেঙে দুর্বৃত্তরা শিবলিঙ্গ চুরি করে নিয়ে যায়। পরদিন খবর পেয়ে শমশেরনগর চা-বাগান ও তার চার ফাঁড়ি দেওছড়া, কানিহাটি, ডবলছড়া ও বাঘিছড়া চা-বাগানের চা শ্রমিকরা অবস্থান ধর্মঘটের ডাক দেয়। শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল্লাহ আটকের বিষয়টি মুঠোফোনে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
মৌলভীবাজারের শমশেরনগর চা বাগানে মন্দিরে দুটি শিবলিঙ্গ চুরির ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহ ৬ জনকে শ্রীমঙ্গল থেকে আটক করছে পুলিশ। গত ৯ জুলাই মঙ্গলবার রাত্র ৮টার দিকে কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক মো. আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে ও শ্রীমঙ্গল থানার এস আই হুমায়ুন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে শহর ও শহরতলীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদেরকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা দক্ষিণ উত্তরসুর গ্রামের বিলাল মিয়া (২৮), উত্তর-উত্তরসুর গ্রামের মাছ ব্যবসায়ী ছোবহান মিয়া (২৮) বড়লেখা উপজেলার মনির হোসেন (৩০) শ্রীমঙ্গল হোটেল ইউনাইটেডের ম্যানেজার জুবায়ের আহমেদ (৩৫), কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুর গ্রামের হাসানুর রহমান বাবলু (৩০) ও বিপ্লব (২৯)। আটককৃতদের কমলগঞ্জ থানায় জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। তবে হোটেল ম্যানেজারের পরিবারের দাবী সে ষড়যন্ত্রের শিকার। তার আটকের বিষয়টি নিয়ে সচেতন মহল প্রশ্ন বিদ্ধ। আটকৃকতদের কাছ থেকে শিবলিঙ্গ উদ্ধার করা যায়নি। প্রসঙ্গত গত ৭ জুলাই রবিবার কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর চা-বাগানে মন্দিরের তালা ভেঙে দুর্বৃত্তরা শিবলিঙ্গ চুরি করে নিয়ে যায়। পরদিন খবর পেয়ে শমশেরনগর চা-বাগান ও তার চার ফাঁড়ি দেওছড়া, কানিহাটি, ডবলছড়া ও বাঘিছড়া চা-বাগানের চা শ্রমিকরা অবস্থান ধর্মঘটের ডাক দেয়। শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল্লাহ আটকের বিষয়টি মুঠোফোনে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। ষ্টাফ রিপোর্টার॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •