বিনামূল্যে স্কুলড্রেস প্রদান ও উপবৃত্তির নাম অর্ন্তভুক্তিতে টাকা দাবির অভিযোগ

January 19, 2023,

আব্দুর রব॥ বড়লেখায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে আউট অব স্কুল চিলড্রেন এডুকেশন প্রোগ্রামের (উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রম) উপজেলা কো-অর্ডিনেটর জয়নাল আবেদীনের বিরুদ্ধে দরিদ্র শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বিনামূল্যে বিতরণের স্কুলড্রেস প্রদানে জনপ্রতি ৩০০ টাকা এবং উপবৃত্তির তালিকায় নাম অর্ন্তভুক্তির জন্য ৫০০ টাকা দাবীর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

দাবিকৃত টাকা প্রদান না করায় স্কুলড্রেস বঞ্চিত একটি বিদ্যালয়ের হতদরিদ্র শিক্ষার্থীরা ও কয়েকজন অভিভাবক বৃহস্পতিবার ১৯ জানুয়ারি দুপুরে ইউএনও’র কাছে অভিযোগ করেছেন। ইউএনও’র নিকট অভিযোগ দিতে আসা ওই প্রোগ্রামের মুর্শিবাদকুরা উপানুষ্ঠানিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী তানিয়া বেগম, ঝুমন আহমদ, মাশরাফি আহমদ শান্তা বিশ্বাস, অভিভাবক নাসিমা বেগম, সুলতানা বেগম, শিক্ষিকা শিল্পী বিশ্বাস প্রমুখ অভিযোগ করেন নতুন বছরের প্রথম মাস প্রায় অতিবাহিত হওয়ার পথে।

এখনও শিক্ষার্থীরা নতুন বই পায়নি। বিনামূল্যের স্কুলড্রেস পাওয়ার জন্য উপজেলা কো-অর্ডিনেটর জয়নাল আবেদীন স্কুলে গিয়ে বলেন, জনপ্রতি ৩০০ টাকা করে না দিলে কাউকে স্কুলড্রেস দেওয়া হবে না। এছাড়া উপবৃত্তির তালিকায় নাম উঠাতেও ৫০০ টাকা করে দিতে হবে। আমরা হতদরিদ্র মানুষ, এত টাকা পাবো কোথায়। এমনিতেই লেখাপড়া বন্ধ ছিল। ওই স্কুল চালু হওয়ায় পুনরায় ভর্তি হই, পড়াশুনা শুরু করি। স্কুলড্রেস প্রদানে ও উপবৃত্তির তালিকায় নাম অর্ন্তভুক্ত করতে টাকা চাওয়ায় আমরা ইউএনও স্যারের কাছে বিচার দিতে এসেছি।

জানা গেছে, আউট অব স্কুল চিলড্রেন এডুকেশন প্রোগ্রাম পিইডিপি-৪, সাব-কম্পোনেট-২.৫ এর আওতায় প্রাথমিকের ঝরেপড়া রোধে বড়লেখায় ৭০টি উপানুষ্ঠানিক প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলা হয়েছে। উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে ইউনাটেড এফর্ট ফর রুরাল ডেভলাপমেন্ট নামক একটি এনজিও সংস্থা। মোট ৭০টি কেন্দ্রের শিক্ষার্থী সংখ্যা ২০১৪ জন। প্রতিটি কেন্দ্রে একজন করে শিক্ষক পাঠদানে নিয়োজিত রয়েছেন।

এব্যাপারে এই প্রোগ্রামের উপজেলা কো-অর্ডিনেটর জয়নাল আবেদীন জানান, স্কুলড্রেস বিতরণ ও উপবৃত্তির তালিকায় নাম অর্ন্তভুক্তির জন্য তিনি কোনো টাকা চাননি। অন্য কারণে এই স্কুলের শিক্ষার্থীদের স্কুলড্রেস বিতরণ বিলম্বিত হচ্ছে। তিনি ও তার এক উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এ নিয়ে রিপোর্ট না করতে এই প্রতিবেদককে অনুরোধ করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুনজিত কুমার চন্দ বৃহস্পতিবার বিকেলে জানান, অভিযোগ পেয়েছেন। এব্যাপারে খোঁজখবর নিবেন। অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •