মৌলভীবাজার-২ (কুলাউড়া-কমলগঞ্জ আংশিক) আসনে ৭২টি ঝুঁকিপুর্ণ

January 4, 2014, এই সংবাদটি ১২৮ বার পঠিত

মৌলভীবাজার-২ (কুলাউড়া-কমলগঞ্জ আংশিক) আসনে ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। এর মধ্যে মহাজোট মনোনীত জাতীয় পার্টির প্রার্থী মুহিবুল কাদির চৌধুরী (পিন্টু) লাঙ্গল প্রতীক ও স্বতন্ত্র প্রার্থী কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি ও কুলাউড়া উপজেলা চেয়ারম্যান মো: আব্দুল মতিন আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। নির্বাচনে জোট প্রার্থী থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল মতিন সুবিধাজনক অবস্থানে আছেন। স্থানীয় ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীর একটি বড় অংশ স্বতন্ত্র প্রার্থীর আনারসের পক্ষে মাঠে কাজ করছেন। এ আসনে ১২২টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৭২ টি ভোট কেন্দ্রই ঝুঁকিপুর্ণ। কুলাউড়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ শহীদুল ইসলাম জানান, মৌলভীবাজার-২ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৮১ হাজার। ১২২টি ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ অনুষ্টিত হবে। কুলাউড়া উপজেলায় ৯৩ টি ও কমলগঞ্জ উপজেলায় ২৯টি ভোট কেন্দ্র রয়েছে। এসব কেন্দ্রগুলোর মধ্যে ৭২ টি ভোট কেন্দ্র ঝুঁকিপুর্ণ। এর মধ্যে ২২ অধিক ঝুঁকিপুর্ণ ও ৫০টি ঝুঁকিপুর্ণ। আরো জানা যায়, জাপা থেকে নির্বাচিত সাবেক এমপি এডভোকেট নওয়াব আলী আব্বাছ খান, বিএনপি’র সাবেক এমপি এমএম শাহীন এবং আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদের গ্রামের বাড়ি কুলাউড়া উপজেলার পৃথিমপাশা, কাদিপুর ও ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নে নির্বাচনে ভোট গ্রহণ কঠিন হতে পারে। কেননা এরা সবাই নির্বাচনের বিপক্ষে অবস্থান করছেন। যেসব কেন্দ্র ঝুঁকিপুর্ণ সেসব কেন্দ্রে অতিরিক্ত নিরাপত্তার পাশাপাশি টহলরত সেনাবাহিনী, বিজিবি, টহল পুলিশ সার্বক্ষণিক নজরদারিতে থাকবে বলে ও জানান।
মৌলভীবাজার-২ (কুলাউড়া-কমলগঞ্জ আংশিক) আসনে ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। এর মধ্যে মহাজোট মনোনীত জাতীয় পার্টির প্রার্থী মুহিবুল কাদির চৌধুরী (পিন্টু) লাঙ্গল প্রতীক ও স্বতন্ত্র প্রার্থী কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি ও কুলাউড়া উপজেলা চেয়ারম্যান মো: আব্দুল মতিন আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। নির্বাচনে জোট প্রার্থী থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল মতিন সুবিধাজনক অবস্থানে আছেন। স্থানীয় ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীর একটি বড় অংশ স্বতন্ত্র প্রার্থীর আনারসের পক্ষে মাঠে কাজ করছেন। এ আসনে ১২২টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৭২ টি ভোট কেন্দ্রই ঝুঁকিপুর্ণ। কুলাউড়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ শহীদুল ইসলাম জানান, মৌলভীবাজার-২ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৮১ হাজার। ১২২টি ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ অনুষ্টিত হবে। কুলাউড়া উপজেলায় ৯৩ টি ও কমলগঞ্জ উপজেলায় ২৯টি ভোট কেন্দ্র রয়েছে। এসব কেন্দ্রগুলোর মধ্যে ৭২ টি ভোট কেন্দ্র ঝুঁকিপুর্ণ। এর মধ্যে ২২ অধিক ঝুঁকিপুর্ণ ও ৫০টি ঝুঁকিপুর্ণ। আরো জানা যায়, জাপা থেকে নির্বাচিত সাবেক এমপি এডভোকেট নওয়াব আলী আব্বাছ খান, বিএনপি’র সাবেক এমপি এমএম শাহীন এবং আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদের গ্রামের বাড়ি কুলাউড়া উপজেলার পৃথিমপাশা, কাদিপুর ও ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নে নির্বাচনে ভোট গ্রহণ কঠিন হতে পারে। কেননা এরা সবাই নির্বাচনের বিপক্ষে অবস্থান করছেন। যেসব কেন্দ্র ঝুঁকিপুর্ণ সেসব কেন্দ্রে অতিরিক্ত নিরাপত্তার পাশাপাশি টহলরত সেনাবাহিনী, বিজিবি, টহল পুলিশ সার্বক্ষণিক নজরদারিতে থাকবে বলে ও জানান। à¦•à¦®à¦²à¦—ঞ্জ প্রতিনিধি॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •