কমলগঞ্জে অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করলে অসাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গিবাদ দূর করা সম্ভব

August 25, 2013, এই সংবাদটি ৩৫০ বার পঠিত

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা, টিআইবি’র চেয়ারপার্সন ও মানবাধিকার নেত্রী অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল বলেছেন, শুধুমাত্র জিপিএ-৫ অর্জন করলে চলবে না। মেধাবী শিক্ষার্থীদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে একটি সুন্দর অসাম্প্রদায়িক দেশ গড়ার কাজে অংশ নিতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করলে অসাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গিবাদ দূর করা সম্ভব। মুক্তিযুদ্ধের মধ্যদিয়ে বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক চেতনার সৃষ্টি হয়েছিল। কিন্তু আজকে দেশ সাম্প্রদায়িক চেতনার দিকে ধাবিত হচ্ছে। মেধাবী শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানতে হবে এবং অসাম্প্রদায়িক দেশ গঠনে ভূমিকা রাখতে হবে। তিনি ২৪ আগষ্ট শনিবার দুপুরে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার রানীরবাজারস্থ দয়াময় সিংহ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বাংলাদেশ মণিপুরী আদিবাসী ফোরাম আয়োজিত মেধাবী শিক্ষার্থী সংবর্ধনায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। বাংলাদেশ মণিপুরী আদিবাসী ফোরামের সভাপতি প্রকৌশলী আব্দুল মজিদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও মনিপুরী সাহিত্য সংকলন পৌড়ির সম্পাদক সুশিল সিংহের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার কান্ট্রি প্রধান পিনাক চক্রবর্তী, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ডা. গৌরমনি সিনহা, সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতœতত্ত্ব বিভাগের প্রধান প্রফেসার আব্দুল আউয়াল বিশ্বাস, কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞা, কমলগঞ্জ গণ মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ মো: কামরুজ্জামান মিঞা, প্রাক্তন অধ্যক্ষ রসময় মোহান্ত, আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান সাব্বির আহমদ ভূঁইয়া ও আইনজীবি সুপ্রিয় চক্রবর্তী। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মণিপুরী আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সমরজিত সিংহ। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক মুজিবুর রহমান, শাহীন আহমদ, শিক্ষক আব্দুল আজিজ, অসমঞ্জু প্রসাদ রায় চৌধুরী, রসমোহন সিংহ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ২০১৩ সনে অনুষ্ঠিত কমলগঞ্জ উপজেলার পিএসসি, জেএসসি, এসএসসি ও এইচএসসি উত্তীর্ণ ৮৫০ জন মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে একটি করে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমানের লেখা বঙ্গবন্ধু সহজপাঠ, সনদপত্র, সংবিধানের ছোট আকারের কপি, কলম ও অভিধান প্রদান করা হয়।
তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা, টিআইবি’র চেয়ারপার্সন ও মানবাধিকার নেত্রী অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল বলেছেন, শুধুমাত্র জিপিএ-৫ অর্জন করলে চলবে না। মেধাবী শিক্ষার্থীদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে একটি সুন্দর অসাম্প্রদায়িক দেশ গড়ার কাজে অংশ নিতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করলে অসাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গিবাদ দূর করা সম্ভব। মুক্তিযুদ্ধের মধ্যদিয়ে বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক চেতনার সৃষ্টি হয়েছিল। কিন্তু আজকে দেশ সাম্প্রদায়িক চেতনার দিকে ধাবিত হচ্ছে। মেধাবী শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানতে হবে এবং অসাম্প্রদায়িক দেশ গঠনে ভূমিকা রাখতে হবে। তিনি ২৪ আগষ্ট শনিবার দুপুরে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার রানীরবাজারস্থ দয়াময় সিংহ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বাংলাদেশ মণিপুরী আদিবাসী ফোরাম আয়োজিত মেধাবী শিক্ষার্থী সংবর্ধনায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। বাংলাদেশ মণিপুরী আদিবাসী ফোরামের সভাপতি প্রকৌশলী আব্দুল মজিদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও মনিপুরী সাহিত্য সংকলন পৌড়ির সম্পাদক সুশিল সিংহের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার কান্ট্রি প্রধান পিনাক চক্রবর্তী, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ডা. গৌরমনি সিনহা, সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতœতত্ত্ব বিভাগের প্রধান প্রফেসার আব্দুল আউয়াল বিশ্বাস, কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞা, কমলগঞ্জ গণ মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ মো: কামরুজ্জামান মিঞা, প্রাক্তন অধ্যক্ষ রসময় মোহান্ত, আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান সাব্বির আহমদ ভূঁইয়া ও আইনজীবি সুপ্রিয় চক্রবর্তী। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মণিপুরী আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সমরজিত সিংহ। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক মুজিবুর রহমান, শাহীন আহমদ, শিক্ষক আব্দুল আজিজ, অসমঞ্জু প্রসাদ রায় চৌধুরী, রসমোহন সিংহ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ২০১৩ সনে অনুষ্ঠিত কমলগঞ্জ উপজেলার পিএসসি, জেএসসি, এসএসসি ও এইচএসসি উত্তীর্ণ ৮৫০ জন মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে একটি করে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমানের লেখা বঙ্গবন্ধু সহজপাঠ, সনদপত্র, সংবিধানের ছোট আকারের কপি, কলম ও অভিধান প্রদান করা হয়। কমলগঞ্জ প্রতিনিধি॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •